চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

আলেপ্পো ছেড়ে তুরস্কে ছুটছে সিরীয় শরণার্থীরা

সিরিয়ার আলেপ্পো প্রদেশে সরকারী বাহিনী ও বিদ্রোহীদের মধ্যে চলমান লড়াই থেকে বাঁচতে কমপক্ষে ৩৫ হাজার সিরীয় শরণার্থী তুরস্ক সীমান্তে আশ্রয় নিয়েছেন। ঢুকতে না দিলেও তুরস্ক জানিয়েছে, শরণার্থীদের জন্য তাদের দরজা চিরতরে বন্ধ নয়।বিপদগ্রস্ত মানুষকে খাবারসহ জরুরী মানবিক সহায়তা দিচ্ছে তুর্কি সরকার।

রাশিয়ার বিমান হামলার সহায়তা নিয়ে কয়েকদিন ধরেই বিদ্রোহীদের সাথে লড়াই করছে সিরিয়ার সেনাবাহিনী। মূল লড়াইটা আলেপ্পো শহরে। সরকারি বাহিনী ও বিদ্রোহীদের লড়াইয়ের তীব্রতা বাড়ায় অবরুদ্ধ মানুষ শহর ছেড়ে ছুটছেন তুরস্ক সীমান্তে।

Advertisement

ক্রমেই আশ্রয় নেয়াদের সংখ্যা বাড়ছে। তাদের সহায়তায় এগিয়ে এসেছে তুরস্ক সরকার। তবে আপাতত শরণার্থীদের জন্য সীমান্ত বন্ধই রাখছে দেশটি। শরণার্থীদের ঠাঁই দেয়া তুর্কি প্রদেশ কিলিসের গভর্নর জানিয়েছেন তুরস্ক সিরীয় সীমান্তে জড়ো হওয়া মানুষকে সব ধরনের সহায়তা দিতে প্রস্তুত। তবে তিনিও শরণার্থীদের মূল ভূখণ্ডে ঢুকতে না দেয়ার পক্ষে।

শরণার্থীদের সীমান্ত খুলে দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন। ইইউ এর এনলার্জমেন্ট কমিশন মনে করিয়ে দিয়েছে জেনেভা কনভেনশন অনুযায়ী শরণার্থীদের আশ্রয় দিতে বাধ্য তুরস্ক। সিরিয়ায় সহিংসতা বন্ধে শান্তি প্রক্রিয়ার প্রয়োজনীয়তা আবারও তুলে ধরেছে ন্যাটো। তবে সামরিক জোটটির মত, সিরীয় সেনাবাহিনীর অভিযানে রাশিয়ার বিমান সহায়তা – বারবার শান্তির পথে বাধা হয়ে দাঁড়াচ্ছে।