চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

আর অভিবাসী নেবে না অস্ট্রিয়া

নতুন করে আর কোনো অভিবাসী না নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে অস্ট্রিয়া। এখন থেকে সীমান্তে আবারো চালু করা হবে আগের সবনিয়ম-কানুন। এখনো অস্ট্রিয়া সীমান্তে আশ্রয়ের আশায় রয়েছে অভিবাসন প্রত্যাশী হাজার হাজার মানুষ।

বিজ্ঞাপন

যদিও কঠিন এ পদক্ষেপটি ধাপে ধাপে শেষ করার ঘোষণা দিয়েছেন অস্ট্রিয়ার চ্যান্সেলর ওয়ার্নার ফেম্যান।

বিজ্ঞাপন

অভিবাসীদের সহায়তায় জার্মানি ৬ বিলিয়ন ইউরো দেওয়ার ঘোষণা দিলেও এ ইস্যুতে নেওয়া পদক্ষেপের জন্য নিজ দেশে সমালোচিত হয়েছেন চ্যান্সেলর আঙ্গেলা মেরকেল। হাজারো মানুষকে হাসিমুখে আশ্রয় দেওয়ার পর এবার দুয়ার বন্ধ করতে চাইছে ইউরোপ।

জার্মান চ্যান্সেলর বলেছেন, তার দেশের উপর অভিবাসন প্রত্যাশীদের চাপ ভবিষ্যতে বড় ধরনের প্রভাব ফেলতে পারে। অভিবাসীদের জন্য আবাসন ব্যবস্থা আরো বাড়ানো হবে জানিয়ে ইউরোপীয় ইউনিয়নভুক্ত অন্যান্য দেশকেও এ ব্যাপারে সহায়তার আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।

ফরাসি প্রেসিডেন্ট ফ্রাঁসোয়া ওঁলাদ বলেছেন, তার দেশ প্রায় ২৪ হাজার অভিবাসীকে আশ্রয় দিতে পারে।

পার্লামেন্টে বক্তৃতায় ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরন জানিয়েছেন, ২০ হাজার অভিবাসীকে ২০২০ সালের মধ্যে আশ্রয় দেওয়া হবে।

অস্ট্রিয়ার অভিবাসী না নেওয়ার সিদ্ধান্ত ঘোষণার পর আবারো অনিশ্চিয়তায় অভিবাসন-প্রত্যাশীরা।

বর্তমানে গ্রিসে ৬৬ হাজার, হাঙ্গেরিতে ৫৪ হাজার এবং ইটালিতে ৪৪ হাজার অভিবাসী অবস্থান করছে। তাদেরকে সামলাতে ইউরোপীয় ইউনিয়নের সহায়তা চেয়েছে গ্রিস।

হাঙ্গেরি এবং মেসিডোনিয়ায় অভিবাসনপ্রত্যাশীদের সঙ্গে নিরাপত্তাবাহিনীর একাধিক সংঘর্ষও হয়েছে।

Bellow Post-Green View