চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

আর্সেনিক দূষণের কবলে বেকহ্যামের ‘স্বপ্নের’ প্রকল্প!

হবে ফুটবল স্টেডিয়াম। যা ঘিরে গড়ে তোলা হবে শপিং মল, বিলাসবহুল হোটেল, পার্কিং লট। সবকিছু ঠিকও হয়ে গিয়েছিল। কিন্তু শেষ মুহূর্তে জানা গেল যে স্থানকে ঘিরে এত পরিকল্পনা সেই মিয়ামিতে বেড়ে গেছে আর্সেনিকের প্রাদুর্ভাব। ফলে থমকে গেছে ডেভিড বেকহ্যামের ১ বিলিয়ন ডলারের বিলাসবহুল প্রকল্প!

মার্কিন ফুটবল দল ইন্টার মিয়ামির মালিকানা আছে সাবেক ইংলিশ ফুটবলার ডেভিড বেকহ্যামের। সম্প্রতি সেই ক্লাবের জন্য নতুন স্টেডিয়াম গড়ে তোলার পরিকল্পনা হাতে নেয়া হয়েছে। সঙ্গে আছে শপিং মল ও হোটেল।

বিজ্ঞাপন

কিন্তু পরিবেশগত প্রতিবেদন হাতে পাওয়ার পর এখন শঙ্কার মুখে ওই প্রকল্প। প্রতিবেদনে দেখানো হয়েছে, মিয়ামির যেখানে হওয়ার কথা স্টেডিয়াম সেখানকার মাটিতে নিরাপদ পরিমাণের চেয়ে প্রায় দ্বিগুণ আর্সেনিকের অস্তিত্ব পাওয়া গেছে। এরইমধ্যে অনির্দিষ্টকালের জন্য পাশের মেলরিজ গলফ কোর্স বন্ধ করে দিয়েছে মিয়ামি সিটি কাউন্সিল।

বিজ্ঞাপন

‘বিষয়টি অবশ্যই ভাবনার। আসলে, প্রকল্পের আশেপাশে যে পরিমাণ আর্সেনিক আছে সেটা বাণিজ্যিক সহনশীলতারও বাইরে’ মিয়ামি হেরাল্ড পত্রিকাকে এমনটাই বলেছেন শহরটির মেয়র ফ্রান্সিস সুয়ারেজ।

আক্রান্ত এলাকায় প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হলে বড় রকমের অসুস্থতায় আক্রান্ত হতে পারেন দর্শক, খেলোয়াড়রা। চর্ম রোগ থেকে শুরু করে হতে পারে ক্যান্সার পর্যন্ত।

ওই এলাকার বাইরে সরে বিকল্প জায়গাও খুঁজে পাচ্ছে না ইন্টার মিয়ামি। বিকল্প হিসেবে প্রস্তাবিত স্টেডিয়াম মিয়ামি ফ্রিডম পার্কের কাজও শেষ হয়নি। এদিকে ক্লাবের হাতে সময়ও ফুরিয়ে আসছে। ২০২০ সালে মার্কিন সকার লিগে অংশ নেবে ডেভিড বেকহ্যামের দল। ক্লাবটির বর্তমান স্টেডিয়ামটির আসন সংখ্যা সর্বসাকুল্যে ১৮ হাজার।

Bellow Post-Green View