চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

আমিরের বিচ্ছেদের খবরেও সরব কঙ্গনা

যে কোনো আলোচিত ইস্যু নিয়ে কথা বলা অভ্যেসে পরিণত করেছেন বলিউডের ‘কুইন’ খ্যাত অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাউত। আর এই মুহূর্তে বিটাউনের চর্চিত বিষয় আমির খান ও কিরণ রাওয়ের বিচ্ছেদ! এমন সময় কী করে চুপ থাকেন কঙ্গনা?

ঠিকই এই ইস্যুকে কেন্দ্র করে ভিনধর্মের বিয়ে নিয়ে কিছু প্রশ্ন তুলেন তিনি।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

ইনস্টাগ্রামে কঙ্গনা লিখেছেন, “পাঞ্জাবের বহু পরিবার এক সন্তানকে হিন্দু হিসেবে, আরেক সন্তানকে শিখ হিসেবে বড় করে তোলে। এই বিষয়টা হিন্দু-মুসলিম বা শিখ-মুসলিম কিংবা অন্য কোনও ভিন্ন ধর্মের মানুষদের সঙ্গে মুসলিম সম্প্রদায়ের মানুষের বিয়ের ক্ষেত্রে দেখা যায় না। আমির খান স্যারের দ্বিতীয় ডিভোর্সের পর আমার মনে প্রশ্ন জাগল, ভিনধর্মের বিয়ের ক্ষেত্রে কেন সন্তানদের মুসলিম হতেই হয়, আর কেনই বা মহিলারা হিন্দু থাকতে পারেন না? পরিবর্তিত সময়ের দাবি মেনে আমাদের এই প্রথাও পালটানো উচিত। এক পরিবারে যদি হিন্দু, জৈন, বৌদ্ধ, শিখ, রাধাস্বামী এবং নাস্তিকরা মিলেমিশে থাকতে পারেন তাহলে মুসলমিরা কেন থাকতে পারবেন না? কেন মুসলিম সম্প্রদায়ের কাউকে বিয়ে করতে গেলে ধর্ম পরিবর্তন করতে হয়?”

বিজ্ঞাপন

গেল শনিবার সকালে আচমকা নিজেদের বিচ্ছেদ নেয়ার কথা ঘোষণা করেন আমির খান ও কিরণ রাও। জানান, যৌথভাবেই ছেলে আজাদের দায়িত্ব নেবেন দু’জনে।

আমির-কিরণের এই ঘোষণার পরই শোরগোল পড়ে যায় সোশ্যাল মিডিয়ায়। কেন ১৫ বছরের দাম্পত্যে ফাটল ধরল? তা নিয়ে চলে আলোচনা-সমালোচনা। এর জন্য আবার অনেকে আমির ও ফাতিমা সানা শেখের ঘনিষ্ঠতাকেও দায়ী করেন।

রবিবার আবার আমির-কিরণ হাসিমুখে ক্যামেরার সামনে এসে জানান, বিবাহবিচ্ছেদ হলেও তাদের মধ্যে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক বজায় থাকবে। আর এনিয়ে অনুরাগীদের বিশেষ চিন্তিত হতেও বারণ করেন।