চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

আফ্রিকায় থাকতে চান প্রিন্স হ্যারি

ব্রিটিশ রাজপরিবারে প্রিন্স হ্যারি ভবিষ্যতে যুক্তরাজ্য ছেড়ে আফ্রিকাতে থাকার ইচ্ছা পোষণ করেছেন। অন্যদিকে প্রিন্স হ্যারির স্ত্রী মেগান মার্কেল রাজকীয় জীবন এবং মিডিয়ার চাপের সাথে লড়াই করতে গিয়ে তিনি শুধু ‘অস্তিত্বে’ আছেন তবে ‘বেঁচে নেই’ বলে মন্তব্য করেছেন।

প্রিন্স হ্যারি ভবিষ্যতে আফ্রিকায় তার এবং মেগানের কাজের মূল কেন্দ্রবিন্দু হবে বলে মন্তব্য করেন।

বিজ্ঞাপন

সাউথ আফ্রিকায় সফরকালে আইটিভির একটি তথ্যচিত্রের জন্য ব্রডকাস্টার টম ব্র্যাডবীর কাছে দেয়া এক সাক্ষাত্কারের সময় তারা এসব কথা বলেন।

হ্যারি ও মেগান সাউথ আফ্রিকার দশ দিনের সফর আসেন। বিবাহিত হওয়ার পরে এই দশ দিনের সফর রাজকীয় দম্পতিকে বিবাহের সময় থেকে আবেগপ্রবণ করে তোলে।

ঘণ্টাব্যাপী প্রামাণ্যচিত্রে হ্যারি যুক্তরাজ্য ত্যাগ করার ইচ্ছা প্রকাশ করেন এবং একদিন আফ্রিকাতে থাকার কথা জানান।

বিজ্ঞাপন

তিনি বলেন: ‘আমি জানি না আমরা এই মুহূর্তে আফ্রিকাতে কোথায় থাকতে পারি। আমরা কেবল কেপটাউন থেকে এসেছি, তবে এটি আমাদের নিজেদেরকে সক্ষম হওয়ার জন্য একটি আশ্চর্যজনক জায়গা হবে, অবশ্যই এটি হবে।

তিনি বলেন: ‘আমাদের বাকী জীবনগুলি, বিশেষত আমাদের জীবনের কাজগুলি মূলত আফ্রিকা, সংরক্ষণের দিকে মনোনিবেশ করবো।

হ্যারি বলেন, ‘এই মহাদেশ জুড়ে ১৯ টি কমনওয়েলথ দেশ রয়েছে, অনেক কিছুই করার দরকার আছে, এখানে অনেক সমস্যা আছে তবে সমাধানের বিশাল সম্ভাবনাও রয়েছে।’

মেগান বলেন, ‘আমরা একসময় এটি একদিন নিয়ে যাচ্ছি,’ স্বীকার করার আগে এই দম্পতি বর্তমানে ‘বিদ্যমান, বেঁচে নেই।’

প্রকাশিত ওই ডকুমেন্টারিতে ডাচেস টুইটার ব্যবহারকারীদের কাছ থেকে সমর্থন পেয়েছিলেন, যাতে তিনি স্বীকার করেছিলেন যে তিনি ‘সত্যই ঠিক নেই’।

Bellow Post-Green View