চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

আফগানিস্তানে সেভ দ্য চিলড্রেন কার্যালয়ে হামলার দায় স্বীকার

আফগানিস্তানের জালালাবাদ শহরে আন্তর্জাতিক দাতা সংস্থা সেভ দ্য চিলড্রেন কার্যালয়ে হামলার ঘটনায় এখনও পর্যন্ত দু’জন নিহত এবং ১২ জন আহত হয়েছে। নিহতদের মধ্যে একজন নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্য। অন্যজনের পরিচয় এখনও সনাক্ত করা যায়নি।

জঙ্গি গোষ্ঠী ইসলামিক স্টেট (আইএস) হামলার দায় স্বীকার করেছে। তবে ইসলামিক স্টেট তাদের আমাক বার্তা সংস্থায় হামলার দায় স্বীকার করলেও এ দাবির পক্ষে তাৎক্ষণিক কোন প্রমাণ দেয়নি।

বিজ্ঞাপন

জালালাবাদে সেভ দ্য চিলড্রেন কম্পাউন্ডের বাইরে বুধবার স্থানীয় সময় সকাল ৯টার দিকে প্রথমে আত্মঘাতী গাড়ি বোমা হামলা হয়। পরে বন্দুকধারীরা ভবনটিতে প্রবেশ করে। হামলার পর আফগান টেলিভিশনে সম্প্রচারিত ফুটেজে কম্পাউন্ড থেকে ঘন কালো ধোঁয়ার কুণ্ডলি ও অন্তত একটি গাড়িতে আগুন জ্বলতে দেখা যায়।

এই ঘটনায় আহত ১২ জনকে হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে প্রাদেশিক স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। হামলার সময় এই কার্যালয়ে ৫০ জনের মতো মানুষ ছিল বলে কর্মকর্তারা ধারণা করছেন।

বিজ্ঞাপন

জঙ্গিদের মুখপাত্র ‘আমাক’ জানিয়েছে, একটি গাড়িবোমা হামলাসহ অন্য আরও তিনটি হামলা চালানো হয়েছে। তিন আইএস যোদ্ধা হামলা চালিয়েছে। এ হামলার লক্ষ্য ছিল জালালাবাদের ব্রিটিশ, সুইডিশ এবং আফগান সরকারি প্রতিষ্ঠানগুলো।

প্রাদেশিক সরকারের মুখপাত্র আতাউল্লাহ খগিয়ানি বলেন, ‘হামলাকারীরা সেভ দ্য চিলড্রেন দপ্তরের ভেতরে প্রবেশ করেছে এবং নিরাপত্তারক্ষীদের সঙ্গে তাদের লড়াই চলছে।’ অনিশ্চিত কয়েকটি খবরে দুই হামলাকারী নিহত হওয়ার কথা বলা হয়েছে। বেজমেন্ট থেকে সেনাবাহিনী ৪৫ জনকে উদ্ধার করার কথা জানিয়েছে।

কয়েকজন প্রত্যক্ষদর্শী বলেছেন, তারা পুলিশের পোশাক পরা অন্তত চার হামলাকারীকে দেখেছেন। এক বন্দুকধারী প্রবেশপথে রকেট চালিত গ্রেনেড হামলাও চালিয়েছে। হামলা ঠেকাতে আফগান কমান্ডোদের সঙ্গে যোগ দিয়েছে পুলিশ।

সম্প্রতি আফগানিস্তানে পুলিশ ও সেনাবাহিনীর পোশাকে হামলার ঘটনা বেড়েছে। এর মাত্র চারদিন আগে তালেবান বন্দুকধারীরা রাজধানী কাবুলের বিলাসবহুল ইন্টারকন্টিনেন্টাল হোটেলে হামলা চালিয়ে অন্তত ২২ জনকে হত্যা করে। সেখানেও হামলাকারীরা আফগান সেনাদের পোশাক পরে এসেছিল।