চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

আন্তর্জাতিক শিক্ষকদের জন্য টিচিং প্রোগ্রামে ফুলব্রাইট ডিসটিংগুইশড অ্যাওয়ার্ড

আবেদনের শেষ তারিখ: ১০ জুন বুধবার ২০২০

ঢাকার যুক্তরাষ্ট্র দূতাবাস আন্তর্জাতিক শিক্ষকদের জন্য টিচিং প্রোগ্রামে ফুলব্রাইট ডিসটিংগুইশড অ্যাওয়ার্ড (ফুলব্রাইট ডিএআই)-এর জন্য আবেদন গ্রহণ করছে।

এই কর্মসূচির মাধ্যমে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে প্রাথমিক ও মাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষা কার্যক্রমে নিয়োজিত শিক্ষকরা তাদের পেশাগত উন্নতির লক্ষ্যে যুক্তরাষ্ট্রে যাবেন। তারা সেখানে একটি আমেরিকান বিশ্ববিদ্যালয়ের আয়োজনে এক সেমিস্টারের একটি পেশাগত উন্নয়ন প্রোগ্রামে অংশ নেবেন।

বিজ্ঞাপন

প্রোগ্রামের মধ্য দিয়ে ফুলব্রাইট অ্যাওয়ার্ড পাওয়া শিক্ষকরা তাদের নিজ নিজ বিষয়ভিত্তিক দক্ষতা উন্নয়নের সুযোগ পাবেন, তাদের শিক্ষাদানের দক্ষতা বাড়বে, এবং যুক্তরাষ্ট্র সম্পর্কে জ্ঞান প্রসারিত হবে ।

যুক্তরাষ্ট্রের ডিপার্টমেন্ট অফ স্টেটের অর্থায়নে পরিচালিত ফুলব্রাইট ডিএআই প্রোগ্রামটি বাস্তবায়নের দায়িত্বে রয়েছে ওয়াশিংটন ডিসি-ভিত্তিক অলাভজনক সংস্থা আইরেক্স (IREX)। প্রোগ্রামটি ২০২১ সালের জানুয়ারি থেকে মে মাসের মধ্যে অনুষ্ঠিত হবে।

ফুলব্রাইট ডিএআই প্রোগ্রামে অংশগ্রহণকারীদের শিক্ষণ বা পাঠদান পদ্ধতি, পাঠ পরিকল্পনা, এবং শেখানোর কৌশলের উপর নিবিড় প্রশিক্ষণ দেয়া হবে যাতে করে তারা নিজ নিজ দেশে ফিরে এসে সেগুলো কাজে লাগাতে পারেন।

এছাড়াও তাদেরকে ইন্টারনেট, ওয়ার্ড প্রসেসিং এবং শিক্ষাদানের একটি মাধ্যম হিসেবে কম্পিউটারের ব্যবহার শেখানো হবে। এই প্রোগ্রামের আওতায় অংশগ্রহণকারীরা আমেরিকার একটি মাধ্যমিক স্কুলে দুই মাসের জন্য ইন্টার্নশিপ করার সুবাদে আমেরিকার শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের সাথে ঘনিষ্ঠভাবে কাজ করার সুযোগ পাবেন। তাদেরকে যুক্তরাষ্ট্রের সংস্কৃতি-সমৃদ্ধ দর্শণীয় স্থানগুলোতে ঘুরতে নিয়ে যাওয়া হবে এবং পুরো প্রোগ্রাম জুড়েই একাডেমিক সহায়তা দেয়া হবে।

এই ফেলোশিপের জন্য আর্থিক ও অ-আর্থিক যে সহায়তাগুলো পাওয়া যাবে তার মধ্যে রয়েছে জে-১ ভিসা সহায়তা, ঢাকায় একটি প্রি-ডিপারচার ওরিয়েন্টেশন, ঢাকা থেকে যুক্তরাষ্ট্র উভয়পথে এবং যুক্তরাষ্ট্রের অভ্যন্তরে যাতায়াতের বিমান ভাড়া, ওয়াশিংটন ডিসি-তে একটি ওয়েলকাম ওরিয়েন্টেশন, একাডেমিক প্রোগ্রাম বা শিক্ষা কার্যক্রমের খরচ, বাসস্থান (সাধারণত অন্য কারো সাথে রুম শেয়ার করতে হয়), খাবার, দুর্ঘটনা ও স্বাস্থ্য বীমা, ইন্টার্নশিপ স্কুলে যাতায়াত খরচ (যদি দরকার হয়), বইপত্র কেনা/পেশাগত উন্নয়নের জন্য ভাতা, যুক্তরাষ্ট্রের আয়োজক বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর একটিতে আয়োজিত সমাপনী সেমিনার, এবং পরবর্তীতে পেশাগত উন্নয়নের লক্ষ্যে অনুদানের জন্য আবেদনের সুযোগ।

এই প্রোগ্রামে আবেদনের জন্য একজন আবেদনকারীর অবশ্যই নিম্নলিখিত যোগ্যতাগুলো থাকতে হবে:

বিজ্ঞাপন

প্রাথমিক এবং/অথবা মাধ্যমিকের একজন পূর্ণকালীন শিক্ষক হিসেবে বিভিন্ন বিষয় যেমন সামাজিক অধ্যয়ন, নাগরিক শিক্ষা, গণিত, বিদেশী ভাষা হিসেবে ইংরেজি, এবং বিজ্ঞান নিয়ে পাঁচ বা বেশি বছর ধরে শ্রেণিকক্ষে পাঠদানের অভিজ্ঞতা;
এছাড়াও শিক্ষা বিষয়ক কাউন্সেলর এবং/অথবা বিশেষ শিক্ষা সমন্বয়কারী হিসেবে যারা নিয়মিতভাবে শিক্ষার্থীদের সাথে আলাপ আলোচনা করেন, তারাও ফুলব্রাইট ডিএআই এওয়ার্ডের জন্য আবেদন করতে পারেন;
পূর্ণকালীন (ফুলটাইম) শিক্ষক হিসেবে পাঁচ বছরের জন্য শিক্ষকতার অভিজ্ঞতা কিংবা শিক্ষা বিষয়ক অন্য কোন দায়িত্বের কারণে শিক্ষার্থীদের সাথে কাজ করার অভিজ্ঞতা;
পেশাগত উন্নয়ন কর্মকান্ড এবং নেতৃত্ব দেয়ার যোগ্যতার প্রামাণ্য দলিলপত্র;
বাংলাদেশের নাগরিক এবং দ্বৈত নাগরিকত্ব নেই;
ইংরেজিতে কথা বলা ও লেখায় দক্ষ। ফুলব্রাইট ডিএআই প্রোগ্রামের জন্য ইংরেজি ভাষায় ভালোমানের দক্ষতা থাকার দরকার আছে। কারণ এই প্রোগ্রামের আওতায় যারা যুক্তরাষ্ট্রে যাবেন তাদেরকে একাকী চলাফেরা করা, নিজের কাজগুলো করতে পারা এবং ইউনিভার্সিটি বা গ্রাজুয়েট স্তরের কোর্সগুলোতে এবং পেশাগত আলোচনায় নিজের ধারণা ও মতামত সুস্পষ্ট ও কার্যকরভাবে প্রকাশ করতে পারতে হবে;
সাধারণ মানের কম্পিউটারে দক্ষতা থাকতে হবে যাতে করে কম্পিউটারে ওয়ার্ড প্রসেসিং বা লেখার কাজ করতে পারা, ফাইল ব্যবস্থাপনার প্রাথমিক জ্ঞান ও ইন্টারনেট ব্রাউজিং করতে পারা এবং মাইক্রোসফট অফিস সম্পর্কে ধারণা থাকে;
একটি পূর্ণাঙ্গ আবেদনপত্র জমা দিতে হবে, যার মধ্যে থাকবে:
১. একটি পূরণকৃত আবেদন ফরম (অনুগ্রহ করে নির্দেশাবলীর পৃষ্ঠাগুলো সংযুক্ত করবেন না);
২. একটি বর্তমান (হালনাগাদ করা) সিভি;
৩. সুপারভাইজর কর্তৃক পূরণকৃত একটি প্রাতিষ্ঠানিক সহায়তা ও রেফারেন্স ফরম (ISRF-আইএসআরএফ);
৪. একটি পূরণকৃত ছুটির আবেদন ফরম (LAF-এলএএফ);
৫. আবেদনকারীর পাসপোর্টের ফটোকপি (কেবলমাত্র তথ্য আছে এমন পৃষ্ঠাগুলো);
৬. একটি পাসপোর্ট সাইজের ছবি; এবং
৭. শিক্ষাগত যোগ্যতার সনদপত্রের অনুলিপি(শুধুই মার্কশিট বা ট্রান্সক্রিপ্ট)।

বাছাইকৃত প্রার্থীদের সংক্ষিপ্ত তালিকায় থাকা প্রার্থীদের টোফেল বা আইইএলটিএস পরীক্ষা দিতে হবে। কারণ এই প্রোগ্রামের জন্য ইংরেজিতে ভালোমানের দক্ষতা থাকার প্রয়োজন রয়েছে। ফুলব্রাইট ডিএআই প্রোগ্রামে অংশ নেয়ার জন্য আইইএলটিএসে ৬.৫ বা তারচেয়ে বেশি স্কোর কিংবা ইংরেজি ভাষার অন্য কোন পরীক্ষায় সমমানের স্কোর থাকতে হবে। আবেদনকারীদের মধ্যে যারা আগেই ইংরেজি ভাষায় টোফেল বা আইইএলটিএস পরীক্ষা দিয়েছেন এবং স্কোর বৈধ রয়েছে (স্কোরের মেয়াদ শেষ হয়নি) তাদেরকে নতুন করে পরীক্ষা দেয়ার দরকার নেই। যুক্তরাষ্ট্রের দূতাবাস প্রয়োজনানুযায়ী সকল পরীক্ষার ব্যবস্থা করবে।

আবেদনকারীদের অবশ্যই আবেদন করার সকল নির্দেশাবলী এবং জমা দেওয়ার নির্দেশনা মেনে আবেদনপত্র জমা দিতে হবে। উপরে তালিকাভুক্ত যোগ্যতার চাহিদা পূ‍রণ করে না এমন আবেদনপত্রগুলো বাছাই কমিটিতে পাঠানো হবে না। বাছাইকৃত প্রার্থীদের সাক্ষাত্‌কারের জন্য ডাকা হবে।

ফুলব্রাইট অ্যাওয়ার্ডের ঘোষণা এবং আবেদন করার ফরমগুলো পেতে নিচের লিঙ্কে ক্লিক করুন:
https://bd.usembassy.gov/education-culture/programs-for-professionals/

আপনার পূর্ণাঙ্গ আবেদনপত্র ১০ই জুন, ২০২০ বুধবারের মধ্যে জনাবা তানিয়া শহীদ বরাবর নিচের ঠিকানায় পাঠিয়ে দিন।

Attention: Ms. Tahnia Shahid
The American Center
U.S. Embassy Annex
J Block, Progoti Sharoni
Baridhara, Dhaka-1212

আবেদন করার শেষ তারিখটি চূড়ান্ত, এটি আর বাড়ানো হবে না। যারা আবেদন করবেন তাদেরকে স্মরণ করিয়ে দেয়া যাচ্ছে যে, এটি একটি বিশ্বব্যাপী প্রতিযোগিতা এবং সকল আবেদনকারীকে একটি তীব্র প্রতিযোগিতাপূর্ণ বাছাই প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়ে যেতে হবে। ফুলব্রাইট ডিএআই-এর জন্য চূড়ান্তভাবে নির্বাচিতদের ২০২০ সালের সেপ্টেম্বর মাসের শেষে জানানো হবে।

এই প্রোগ্রাম সম্পর্কে আরো তথ্য জানতে অনুগ্রহ করে প্রোগ্রাম ম্যানেজার মিজ তানিয়া শহীদ এর সাথে যোগাযোগ করুন। তার ফোন নাম্বার: (০২) ৫৫৬৬-২০০০; এবং ই-মেইল ঠিকানা: [email protected]