চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে স্থায়ী মিশনের ভার্চুয়াল অনুষ্ঠান

যথাযোগ্য মর্যাদায় জাতিসংঘ সদর দপ্তরে ৫ম বারের মত উদযাপিত হলো মহান ২১ ফেব্রুয়ারি ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস। ভার্চুয়াল এই আয়োজনে বাংলাদেশের সহ আয়োজক ছিল ব্রাজিল, মিশর, কানাডা, লিথুনিয়া, নিউজিল্যান্ড, জাতিসংঘ সচিবালয় ও ইউনেস্কো।

আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে আয়োজিত এই অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা বক্তৃতা করেন জাতিসংঘে নিযুক্ত বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি রাবাব ফাতিমা।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

তিনি বলেন, ভাষা শহীদদের আত্মত্যাগের ফলেই বাংলা রাষ্ট্রভাষার মর্যাদা লাভ করে। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ভাষা আন্দোলনে নেতৃত্ব দিয়েছিলেন এবং এই পথ ধরেই বাংলাদেশ স্বাধীন হয়েছিলো। যে সকল প্রবাসী বাংলাদেশি বাংলা ভাষাকে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা করার উদ্যোগ নিয়েছিলেন তাদেরকে ধন্যবাদ জানান স্থায়ী প্রতিনিধি।

বিজ্ঞাপন

এসময় বাংলা ভাষাকে জাতিসংঘের দাপ্তরিক ভাষা হিসাবে স্বীকৃতি দিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জাতিসংঘে যে প্রস্তাবনা রেখেছেন তা পুনরুল্লেখ করেন রাবাত ফাতিমা।

আলোচনায় অংশ নিয়ে জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের সভাপতি ভলকান বজকির বলেন, মাতৃভাষা সংরক্ষণে সাধারণ পরিষদ প্রতিশ্রতিবদ্ধ। এ ব্যাপারে ২০১৭ সালে জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদে একটি প্রস্তাবনা পাশ হওয়ার কথাও উল্লেখ করেন ভলকান বজকির।

ভার্চুয়াল আলোচনায় অংশ নেন সহ আয়োজক দেশগুলোর স্থায়ী প্রতিনিধিগণ, জাতিসংঘের বহুভাষিক সমন্বয়কারী, জেনারেল এসেম্বলি ও ম্যানেজমেন্ট বিভাগের আন্ডার সেক্রেটারি, জাতিসংঘের বৈশ্বিক বিভাগের আন্ডার সেক্রেটারি। এছাড়া ইউনেস্কোর মহাপরিচালকের ভিডিও বার্তা ও নিউইয়র্ক সিটি মেয়রের বার্তা ভার্চুয়াল এই অনুষ্ঠানে উপস্থাপন করা হয়।  এ সময় বক্তারা, মাতৃভাষা ও বিশ্ববব্যাপী এগিয়ে নেওয়ার ক্ষেত্রে বাংলাদেশ যে নেতৃত্বস্থানীয় ভূমিকা পালন করছে তার প্রশংসা করেন।

অনুষ্ঠানে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের থিমসং ‘আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙ্গানো একুশে ফেব্রুয়ারি’র ভিন্ন মাত্রার পরিবেশনা সবার নজর কাড়ে। বাংলাদেশের এশিয়ান ইউনিভার্সিটি অব উইমেনের শিক্ষার্থীরা বহু ভাষার সমন্বয়ে গানটি পরিবেশন করেন। এছাড়া জাতিসংঘ আন্তর্জাতিক স্কুলের শিক্ষার্থীদের পরিবেশনায় ৩৮টি ভাষায় ক্ষুদে ভিডিও বার্তা ভার্চুয়াল অনুষ্ঠানে অন্যরকম আবহের তৈরি করে।

বিজ্ঞাপন