চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

আন্তর্জাতিক মহাকাশ কেন্দ্রে গেলো ফ্লাইং ব্রেন ‘সাইমন’

নভোচারীকে সহায়তা করতে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণকারী স্পেস এক্সের ফ্যালকন নাইন রকেটে আন্তর্জাতিক মহাকাশ স্টেশনে (আইএসএস) গেছে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার রোবট ‘সাইমন’।

গোলাকার শরীরে একটি মনিটরে মানুষের মতো টুডি মুখাবয়বের সাইমন, মহাকাশ স্টেশনে শূন্যে ভেসে ভেসে জার্মান নভোচারী আলেকজান্ডার গ্রেস্টকে সহায়তা করবে। সাইমনকে তাই ‘ফ্লাইং ব্রেন’ও বলা হচ্ছে।

তবে এধরণের কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার রোবট আদৌ মহাকাশচারীদের কতটুকু কাজে আসবে তার উত্তর পাওয়া যাবে সাইমন সফল হলে।

বিজ্ঞাপন

আপাতত মাইক্রোফোন এবং কয়েকটি ক্যামেরায় সজ্জিত সাইমন কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা প্রয়োগের মাধ্যমে আইএসএস এ অবস্থানরত জার্মান নভোচারীর কাজে সময় বাঁচাতে কাজ করবে। কারণ আন্তর্জাতিক স্পেস স্টেশনে সময় খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

আইএসএস এ পাঠানো সাইমন সম্পর্কে মার্কিন প্রতিষ্ঠান ইন্টারন্যাশনাল বিজনেস মেশিনস করপোরেশনের (আইবিএম) প্রকৌশলী ম্যাথিয়াস বিনিয়ক জানান, আপাতত স্পেস স্টেশনে নভোচারীর প্রাত্যহিক কাজে সময় বাঁচাতে আমরা সাইমনকে পাঠিয়েছি।

জার্মান ন্যাশনাল স্পেস এজেন্সির (ডিএলআর) জন্য ইংরেজিতে কথা বলতে সক্ষম সাইমনকে নির্মাণ করেছে এয়ারবাস এবং আইবিএম। জার্মান নভোচারী চাইলে রোবটটিকে গোপনীয় কাজের সময়ে অফলাইনেও রাখতে পারবেন।

১৩ ডিসেম্বর সাইমনের পৃথিবীতে ফিরে আসার কথা রয়েছে।

বিজ্ঞাপন