চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে বিদায় বললেন ধোনি

অবশেষে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে বিদায় বললেন ভারতের সর্বকালের সেরা অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনি। শনিবার সন্ধ্যায় নিজের ইনস্টাগ্রামে আন্তর্জাতিক থেকে সরে দাঁড়ানোর ঘোষণাকে দেন ভারতকে ওয়ানডে, টি-টুয়েন্টি বিশ্বকাপ ও আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি জেতানো অধিনায়ক।

শনিবার ভারত সময় সন্ধ্যা ৭টা ২৯ মিনিটে ইনস্টাগ্রামে প্রায় ৪ মিনিটের এক ভিডিও পোস্ট করে নিজের ক্যারিয়ারের প্রতিচ্ছবি তুলে ধরেন ধোনি। ২০০৪ সালে বাংলাদেশের বিপক্ষে ওয়ানডে অভিষেকে শূন্য রানে রান আউট থেকে শুরু করে ভারতকে ২০০৭ টি-টুয়েন্টি বিশ্বকাপ জেতানো, ২০১১ সালে ওয়ানডে বিশ্বকাপ জয়, দেশকে টেস্ট র‍্যাঙ্কিংয়ে শীর্ষে তোলা সবকিছুই উঠে এসেছে। ভিডিও শেষ হয়েছে ২০১৯ বিশ্বকাপে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সেমিফাইনালের ম্যাচটি দিয়ে। ৫০ করে রান আউট হওয়া সেই ম্যাচটিই ধোনির ক্যারিয়ারের শেষ আন্তর্জাতিক ম্যাচ।

বিজ্ঞাপন

গায়ক মুকেশের কণ্ঠ মেলানো ভিডিওর ক্যাপশনে ধোনি লিখেছেন, ‘ ধন্যবাদ- ধন্যবাদ আপনাদের ভালোবাসা ও সমর্থনের জন্য। ১৯২৯ ঘণ্টা (৭টা ২৯ মিনিট) থেকে ধরে নেবেন আমি এখন অবসরপ্রাপ্ত।’

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

অবসর কি কেবল আন্তর্জাতিক নাকি সমস্ত ক্রিকেট থেকেই সেটা অবশ্য খোলাশা করেননি ধোনি। তবে ধরে নেওয়া হচ্ছে আরব আমিরাতে ১৯ সেপ্টেম্বর থেকে শুরু হওয়া আইপিএলে তাকে দেখা যাবে। তার আইপিএল দল চেন্নাই সুপার কিংসের প্রধান নির্বাহীর আশা, অন্তত ২০২২ সাল পর্যন্ত আইপিএলে খেলবেন সদ্য সাবেক হয়ে হয়ে যাওয়া এই উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান।

২০০৪ সালে বাংলাদেশের বিপক্ষে অভিষিক্ত ধোনি ওয়ানডে খেলেছেন ৩৫০টি। সঙ্গে ৯০ টেস্ট ও ৯৮টি টি-টুয়েন্টি খেলা এই ডানহাতি ব্যাটসম্যান আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারে ১৬ সেঞ্চুরিতে করেছেন ১৫ হাজারের বেশি রান। উইকেটের পেছনে ৮০০র বেশি ডিসমিসালে ব্যাটসম্যানদের ফেরত পাঠিয়েছেন সাজঘরে।

তবে ব্যাটসম্যান কিংবা উইকেটরক্ষকের চেয়ে ধোনিকে ক্রিকেটবিশ্ব মনে রাখবে একজন ঠাণ্ডা মাথার অধিনায়ক হিসেবে। ২০১১ বিশ্বকাপে ছক্কা মেরে দলকে শিরোপা জেতানো কিংবা ২০০৭ টি-টুয়েন্টি বিশ্বকাপের ফাইনালের শেষ ওভারে যোগিন্দর শর্মার হাতে বল তুলে দেওয়া; ঠাণ্ডা মাথার ধোনি তার ক্ষুরধার ক্রিকেট মস্তিষ্ক দিয়েই জয় করেছেন শত কোটি ভারতীয়র মন।