চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

আটকে পড়া শ্রমিকদের ট্রেন ভাড়া বহন করবে কংগ্রেস: সোনিয়া গান্ধী

লকডাউনের জেরে ভারতের বিভিন্ন প্রান্তে আটকে পড়া শ্রমিকদের বাড়ি ফিরতে ট্রেন ভাড়ার খরচ বহন করার ঘোষণা দিয়েছে কংগ্রেস সভানেত্রী সোনিয়া গান্ধী।  

সোমবার কংগ্রেস দলের পক্ষ থেকে এক বিবৃতিতে এ ঘোষণা দেয়া হয় বলে জানিয়েছে হিন্দুস্থান টাইমস।

বিজ্ঞাপন

বিভিন্ন রাজ্যে আটকে পড়া শ্রমিক, পড়ুয়া, পর্যটকদের জন্য ‘শ্রমিক স্পেশ্যাল’ ট্রেন চালু করে ভারতীয় সরকার।

বিজ্ঞাপন

কিন্তু দেশটির রেল মন্ত্রণালয় জানায়, ভাড়ার ক্ষেত্রে কোনওরকম ছাড় দেওয়া হবে না। যাত্রীদের বাড়তি ৫০ টাকা দিতে হচ্ছে। তা নিয়ে সরব হয়েছেন বিরোধীরা।

এ বিষয়ে বিজেপি সরকারের সমালোচনা করে কংগ্রেসের অন্তর্বর্তীকালীন সভাপতি সোনিয়া গান্ধী বলেন, সংকটের মুহূর্তের আটকে পড়া শ্রমিকদের থেকে কেন্দ্র ও রেলমন্ত্রণালয় যেভাবে ভাড়া নিচ্ছে, তা অত্যন্ত কষ্টদায়ক। ‘আমাদের সরকারের দায়িত্ব কী তাহলে? লাখ লাখ পরিযায়ী শ্রমিক দেশের বিভিন্ন প্রান্তে সমস্যার সম্মুখীন হয়েছেন এবং তারা বাড়িতে ফিরতে চাইছেন। কিন্তু তাদের কাছে না পর্যাপ্ত টাকা আছে, না বিনামূল্যে পরিবহনের সুযোগ আছে। শ্রমিকরা আমাদের অর্থনীতির মেরুদণ্ড। তাদের কঠোর পরিশ্রম ও আত্মত্যাগ দেশের ভিত্তি।’

বিজ্ঞাপন

সোনিয়ার দাবি, লকডাউন-পর্বে বিষয়টি নিয়ে বারবার কেন্দ্রের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছে কংগ্রেস। পরিযায়ী শ্রমিকরা যাতে সুরক্ষিত ও বিনামূল্যে রেলযাত্রা করে ভিটেয় ফিরতে পারেন, তা নিয়ে কেন্দ্রের কাছে দরবার করা হয়েছে। ‘বারবার বলা সত্ত্বেও আমাদের দাবি পুরোপুরি উপেক্ষা করেছে কেন্দ্র ও রেল মন্ত্রণালয়।’

সেজন্য প্রদেশ কংগ্রেসের তরফে প্রত্যেক পরিযায়ী শ্রমিকের ট্রেন ভাড়ার টাকা বহন করা হবে এবং প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ করা হবে বলে জানান সোনিয়া। তিনি বলেন, ‘দেশবাসীর প্রতি এটা কংগ্রেসের মানবিক সহায়তা এবং তাদের পাশে দাঁড়ানোর বিষয়।’

এ দিকে মায়ের সুরে সোমবার কেন্দ্রের বিরুদ্ধে সমালোচনায় সামিল হয়েছেন রাহুল গান্ধীও।

এক টুইটবার্তায় তিনি বলেন, ‘একদিকে ভিনরাজ্যে আটকে থাকা পরিযায়ী শ্রমিকদের থেকে ভাড়া নিচ্ছে রেল মন্ত্রণালয়। অন্যদিকে, পিএম-কেয়ার্স তহবিলে তারা ১৫১ কোটি টাকা দান করছে। দয়া করে এই হেঁয়ালির সমাধান করুন।’ টুইটের সঙ্গে রেলের অনুদান দেওয়া সংক্রান্ত একটি প্রতিবেদনের স্ক্রিনশটও পোস্ট করেছেন রাহুল।

এদিকে, সোনিয়ার বিবৃতির পর সব রাজ্যের কংগ্রেস নেতৃত্বকে স্থানীয়ভাবে সাহায্য করার জন্য প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণের নির্দেশ দিয়েছেন কোষাধ্যক্ষ আহমেদ প্যাটেল।