চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

আগুয়েরোর শ্রেষ্ঠত্ব নিয়ে তর্ক

ম্যাচের পর রেফারির সঙ্গে হাত মেলাতে গিয়ে বল চান অনেকেই। ছয় গোলের ম্যাচ বলে কথা। বলের চাহিদা তো থাকবেই। রেফারি মাইক ডিন কিন্তু বেশ কঠোর। কাউকে বল না দিয়ে নিজের শার্টের পেছন দিকে ঢুকিয়ে রাখেন।

বলটা তিনি বের করলেন তখনই, যখন সার্জিও আগুয়েরো তার সঙ্গে হাত মেলাতে আসেন। বলটি তুলে দেন ম্যাচের নায়কের হাতে। হ্যাটট্রিক হিরো ছাড়া আর কাকেই বা দিতেন বলটা! ছবিটা রোববার রাতের। ওই রাতে প্রবল প্রতিদ্বন্দ্বী চেলসিকে ৬-০ গোলে উড়িয়ে দেয় ম্যানচেস্টার সিটি।

বিজ্ঞাপন

ম্যাচের পর আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ডের বক্তব্য, ‘জেতা এবং সবচেয়ে বেশি হ্যাটট্রিকের রেকর্ড ছোঁয়ার জন্য খুশি। এই ক্লাবের (সিটি) খেলোয়াড় হওয়াটা আমার কাছে সম্মানের। দারুণ সতীর্থ, দুর্দান্ত সমর্থক আছে এই দলের সঙ্গে। কামঅন সিটি।’

চেলসির বিরুদ্ধে আগুয়েরোর পারফরম্যান্সের পরেই আবার উঠে পড়েছে সেই তর্ক। প্রিমিয়ার লিগে খেলা সেরা বিদেশি কি এই আর্জেন্টানই ফরোয়ার্ডই?

বিজ্ঞাপন

এক দিকে গোল করেই চলেছেন আগুয়েরো। অন্যদিকে ভেঙে যাচ্ছে রেকর্ডের পর রেকর্ড। রোববারই যেমন ছুঁয়ে ফেলেন অ্যালান শিয়েরারকে। ১১টি হ্যাটট্রিক করে।

যার রেকর্ড ছুঁয়েছেন সেই শিয়েরারের মন্তব্য, ‘তাকে দেখে সত্যিই ভালো লাগে। তার মতো খেলোয়াড়কে পেয়ে সিটি ভাগ্যবান। অঁরি আর আগুয়েরোর মধ্যে একজনকে বাছতে বললে আমি আগুয়েরোকেই বাছব এবং সেটা তার ফিনিশিং দক্ষতার জন্য।’

এক মাঠে হ্যাটট্রিকের সংখ্যায় টপকে যান থিয়েরি অঁরিকে। আর্সেনালের আগের স্টেডিয়াম হাইবেরিতে আটটি হ্যাটট্রিক ছিল অঁরির। আর ইতিহাদ স্টেডিয়ামে আগুয়েরোর হ্যাটট্রিক এখন নয়টি। যে কারণে সর্বকালের সেরা বিদেশি নিয়ে বিতর্ক, সেটি হল বড় দলের বিরুদ্ধে গোল। গত সাত-আট বছরে বড় ছয়টি দলের বিরুদ্ধে সবচেয়ে বেশি গোল আগুয়েরোরই।

২০১১-১২ মৌসুম থেকে ছয়টি বড় ক্লাবের বিরুদ্ধে প্রিমিয়ার লিগে গোল-সার্জিও আগুয়েরো ৪৩, জেমি ভার্ডি ২৯, ওয়েন রুনি ২৩ ও হ্যারি কেন ২১।

Bellow Post-Green View