চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

আগুয়েরোর আইকনিক গোলের ভাস্কর্য বানাল ম্যানসিটি

২০১২ সালের ১৩মে, ইতিহাদ স্টেডিয়ামে অনন্য এক ইতিহাস গড়তে দেখেছে ফুটবলবিশ্ব। জিতলেই মিলবে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের শ্রেষ্ঠত্ব, এমন ম্যাচে কুইন্স পার্ক রেঞ্জার্সের বিপক্ষে শেষপর্যন্ত লড়াই করতে হয়েছিল ম্যানচেস্টার সিটিকে। অতিরিক্ত সময়ের শেষ মিনিটের গোলে সিটিজেনদের প্রথম ইপিএল শিরোপা জয়ের উল্লাসে ভাসান সার্জিও আগুয়েরো। আর্জেন্টাইন সাবেক ফরোয়ার্ডের সেই আইকনিক গোলকে স্মরণীয় করে রাখতে ভিন্নধর্মী আয়োজন করেছে সিটি।

আইকনিক সেই গোলের ১০ বছর পূর্তি উপলক্ষে ইতিহাদ স্টেডিয়ামের বাইরে আগুয়েরোর ভাস্কর্য বানিয়েছে ম্যানসিটি। শুক্রবার আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ডের উপস্থিতিতে ভাস্কর্য উন্মোচন করা হয়েছে।

Reneta June

নিজেকে ভাস্কর্যে দেখে উচ্ছ্বসিত আগুয়েরো বলেছেন, ‘অসাধারণ, বেশ খুশি লাগছে। এটি আমার জন্য বিশেষ একটা ব্যাপার। ওই মুহূর্তটা আমার জীবন পরিবর্তন করে দিয়েছে। ওটা আমার জীবনের সেরা মুহূর্ত। আজীবন এর স্মৃতি হৃদয়ে অক্ষত থাকবে।’

বিজ্ঞাপন

‘জানি না ওই বছর প্রিমিয়ার লিগে হারলে এখন এই অবস্থায় আসতে পারতাম কিনা। বছরটা সবকিছু পরিবর্তন করে দিয়েছে, কারণ এর পরের বছর থেকেই আমরা ট্রফি জিততে শুরু করেছি।’

আগুয়েরোর আইকনিক গোল নিয়ে উদযাপন শুধু এখানেই সীমাবদ্ধ থাকছে না। সেই টাইটেল-ক্লিনিং গোলের দশবছর পূর্তিতে নতুন প্রশিক্ষণ জার্সি পরে শ্রদ্ধা জানিয়েছে পেপ গার্দিওলার সিটি।

শ্রদ্ধায় শুধু টি-শার্টই নয়, সেদিনের ম্যাচে আর্জেন্টাইন তারকা যে বুট পরেছিলেন, সেই রং ও ডিজাইনের বুটও এনেছে সিটির পৃষ্ঠপোষক প্রতিষ্ঠান পুমা। বিশেষ সংস্করণের জুতার গায়ে বিখ্যাত ওই গোলের স্বারক হিসেবে লেখা থাকছে ৯৩:২০। ১৩ মে পুমা স্টোরস এবং সিটির অফিসিয়াল দোকান থেকে জার্সি ও জুতাগুলো সংগ্রহ করতে পারবেন সমর্থকরা।

২০১১-২১ সাল, দশ বছরের ক্যারিয়ারে সিটিজেনদের হয়ে অনেককিছু জিতেছেন আগুয়েরো। ক্লাবটির হয়ে জালের দেখা পেয়েছেন ২৬০ বার। বহুদিনের সম্পর্ক ছিন্ন করে বার্সেলোনায় গিয়েছিলেন। কিন্তু হৃদরোগের কারণে তাকে দ্রুতই ফুটবল ছাড়তে হয়েছে। গত বছরের ডিসেম্বরে ৩৩ বছর বয়সে অবসরের সিদ্ধান্ত জানান আর্জেন্টাইন তারকা।