চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

আগস্টে কমেছে মূল্যস্ফীতি

আগস্টে মূল্যস্ফীতি কমেছে শূন্য দশমিক ১৩ শতাংশ। মূল্যস্ফীতি পয়েন্ট টু পয়েন্ট ভিত্তিতে কমে দাঁড়িয়েছে ৫ দশমিক ৪৯ শতাংশ। আগের মাসে যা ছিল ৫ দশমিক ৬২ শতাংশ।

খাদ্যদ্রব্যের মূল্যস্ফীতি কমে দাঁড়িয়েছে ৫ দশমিক ২৭ শতাংশে, যা তার আগের মাসে ছিল ৫ দশমিক ৪২ শতাংশ। খাদ্য বহির্ভূত পণ্যেও মূল্যস্ফীতি কমে অবস্থান করছে ৫ দশমিক ৮২ শতাংশে, যা আগের মাসে ছিল ৫ দশমিক ৯৪ শতাংশ।

বিজ্ঞাপন

মঙ্গলবার রাজধানীর শেরেবাংলা নগরের এনইসি সম্মেলন কক্ষে একনেক সভা শেষে ব্রিফিংয়ে পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান এ তথ্য জানান।

পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। আশা করছি আগামীতে আরও কমে আসবে। আর্থিক ব্যবস্থাপনার কারণে এটা সম্ভব হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

এর আগের মাসে মূল্যস্ফীতি কিছুটা বেড়েছিল। গত ২০ আগস্ট পরিকল্পনামন্ত্রী বলেছিলেন, ঈদে মানুষ কেনাকাটা বেশি করেছে। আবার বন্যার কারণে অনেক শাকসবজি নষ্ট হয়েছে। সেই সঙ্গে সরবরাহ চেইনের মধ্যে সমস্যা ছিল। তাই মূল্যস্ফীতি বেড়েছে।

এছাড়া, গ্যাসের দাম বাড়ার কারণে মূল্যস্ফীতি কিছুটা বেড়েছে বলে জানিয়েছিলেন তিনি।

তথ্যানুযায়ী, গ্রামে সার্বিকভাবে পয়েন্ট টু পয়েন্ট ভিত্তিতে মূল্যস্ফীতি কমে দাঁড়িয়েছে ৫ দশমিক ৩৪ শতাংশে, এটি আগের মাসে ছিল ৫ দশমিক ৪৯ শতাংশ। খাদ্যদ্রব্যের মূল্যস্ফীতি কমে দাঁড়িয়েছে ৫ দশমিক ৩৮ শতাংশে, যা তার আগের মাসে ছিল ৫ দশমিক ৬০ শতাংশ। খাদ্য বহির্ভূত পণ্যের মূল্যস্ফীতি কমে দাঁড়িয়েছে ৫ দশমিক ২৫ শতাংশে, যা তার আগের মাসে ছিল ৫ দশমিক ২৭ শতাংশ।

শহরে সার্বিক মূল্যস্ফীতি পয়েন্ট টু পয়েন্ট ভিত্তিতে কমে দাঁড়িয়েছে ৫ দশমিক ৭৫ শতাংশে, আগের মাসে যা ছিল ৫ দশমিক ৮৮ শতাংশ। খাদ্যদ্রব্যের মূল্যস্ফীতি কমে দাঁড়িয়েছে ৫ দশমিক শূন্য ২ শতাংশে, যা তার আগের মাসে ছিল ৫ দশমিক শূন্য ৩ শতাংশ। এছাড়া খাদ্য বহির্ভূত পণ্যের মূল্যস্ফীতি কমে দাঁড়িয়েছে ৬ দশমিক ৬০ শতাংশে, যা আগের মাসে ছিল ৬ দশমিক ৮৪ শতাংশ।

ব্রিফিংয়ে আরও উপস্থিত ছিলেন পরিকল্পনা সচিব নুরুল আমিন এবং বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর মহাপরিচালক কৃষ্ণা গায়েন।

Bellow Post-Green View