চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

আকারে ছোট হলেও সংসদে অবদান রাখতে পারে বিএনপি

ক্ষমতার পালাবদল আর গণতান্ত্রিক স্বাভাবিক নিয়মে গত তিন টার্ম ক্ষমতায় না থাকলেও বিভিন্ন ইস্যুতে দেশের রাজনীতিতে সক্রিয় দেশের অন্যতম প্রধান রাজনৈতিক দল বিএনপি। অনেক নাটকীয়তা আর কখনো ‘না’ কখনো ‘হ্যাঁ’ এর মধ্যে দিয়ে এখন বিএনপি সংসদে। সর্বশেষ আজ শপথ নিয়েছেন বিএনপি থেকে মনোনীত মহিলা সাংসদ ব্যারিস্টার রুমিন ফারহানা

সাম্প্রতিক নির্বাচনে তারা অংশ নিলেও এরআগের নির্বাচনে তারা অংশ না নেয়াতে সেই নির্বাচন ছিল অনেকটাই প্রশ্নবিদ্ধ। ঐক্যফ্রন্টের সঙ্গে এক হয়ে সাম্প্রতিক নির্বাচনে তারা নির্বাচন করে কোনো উল্লেখ করার মতো ফলাফল না করলেও কয়েকটি আসনে তারা জয়লাভ করেছে। নির্বাচনের পরপরই তাদের শীর্ষ নেতাদের তাৎক্ষনিক প্রতিক্রিয়ায় মনে হয়েছিল, নির্বাচনে কয়েকজন জয়লাভ করলেও সংসদে যাবে না বিএনপি। কিন্তু নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যেই শুধুমাত্র একজন বাদে তাদের সব সাংসদ শপথ নিয়ে সংসদে যোগ দিয়েছে। দলে ভাঙন ঠেকাতে জয়লাভ করা সাংসদদের অনিচ্ছা স্বত্ত্বেও সংসদে যেতে দিয়েছে বলে জানিয়েছিল দলটি। পরে বেশ আনুষ্ঠানিকভাবে মহিলা কোটার একজন সাংসদ মনোনিত করে সংসদে পাঠিয়েছে বিএনপি। বিষয়টি বেশ ইতিবাচক বলে আমাদের মনে হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

বেশ কয়েকবার ক্ষমতায় থেকে দেশ পরিচালনা করায় দলটির রয়েছে রাজনৈতিক প্রজ্ঞা ও অভিজ্ঞতা। সংসদ ভিত্তিক দেশের গণতন্ত্রে তাদের অংশগ্রহণ করার ও অবদান রাখার সুযোগ আছে বলে আমরা মনে করি। দলটির যে কয়জন সংসদ সদস্য সংসদে যাচ্ছে, তাদের মাধ্যমে জনগণের নানা দাবি-দাওয়া ও আইন-নীতি পরিবর্তন বিষয়ে তারা পরিকল্পিতভাবে আওয়াজ তুললে তাও অনেক কার্যকর হতে পারে।

আন্দোলন ও জ্বালাও-পোড়াও সংস্কৃতি দেশের জনগণ একদমই পছন্দ করে না, সেইসঙ্গে কোনো অন্যায় আচরণ ও কর্মকাণ্ডও তারা মেনে নেয় না। এটা বহুল পরীক্ষিত। দেশের রাজনীতিতে যেসব দল বর্তমানে সক্রিয়, তাদের সবারই যৌক্তিক আর আচরণগত ন্যায্যতার মধ্যে দিয়েই জনগণের কথা বলা ও জনগণের জন্য কাজ করা উচিত বলেই আমরা মনে করি। এই বিষয়টি ক্ষমতাসীন দল ও বিরোধী দল সবাই সমানভাবে মাথায় রেখে কাজ করে গেলে, দেশের উন্নয়নের সুফল পাবে দেশের জনগণ। আমাদের আশাবাদ, জনগণের কাছে নানা অঙ্গীকার করে নির্বাচিত দল ও নেতারা এই বিষয়ে সচেষ্ট হবেন।