চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

আকবরের সেঞ্চুরি, দীপুর ৬ রানের আক্ষেপ

টিকে থাকলে আকবর আলীর আগেই সেঞ্চুরি পেয়ে যেতেন শাহাদাত হোসেন দীপু। নার্ভাস নাইনটিজে নোমান চৌধুরীর দ্রুতগতির এক ডেলিভারিতে উইকেটের পেছনে ক্যাচ তুলে দেন তিনি। ৬ রানের জন্য পাননি সেঞ্চুরি। আকবর অবশ্য ভুল করেননি। তিন অঙ্ক ছুঁয়েছেন ধৈর্যের চরম পরীক্ষা দিয়ে।

আকবর থেমেছেন ১৩৬ রানের দুর্দান্ত ইনিংস খেলে। শাহাদাত ৯৪, আর শামীম পাটোয়ারির ৬৭ রানের ঝড়ো ইনিংসে বিসিবি হাই-পারফরম্যান্স ‘এ’ দল ৭ উইকেটে ৪০৬ রান তুলে ইনিংস ঘোষণা করেছে।

বিজ্ঞাপন

নিজেদের মধ্যে এটিই প্রথম অনুশীলন ম্যাচ। যেখানে আলো ছড়িয়েছেন অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ জয়ী দলের খেলোয়াড়রা। মঙ্গলবার দুই দিনের ম্যাচের শেষদিনে ব্যাট করবে হাই-পারফরম্যান্স ‘বি’ দল।

আকবর ও শাহাদাত চতুর্থ উইকেটে ১৩৭ রান যোগ করেন। শের-ই-বাংলা স্টেডিয়ামের ২২ গজে দলের ওপেনিং জুটিও খারাপ হয়নি। তানজিদ হোসেন তামিমকে নিয়ে শাহাদাত যোগ করেন ৫৫ রান।

বিজ্ঞাপন

তিনে ব্যাট করা মাহমুদুল হাসান জয় করেন ৩০ রান। বেশিক্ষণ টিকতে পারেননি আফিফ হোসেন। ১২ বলে ১২ রান করে হন এলবিডব্লিউ। লোয়ার মিডলঅর্ডারে সুমন খান করেন ৯ রান।

রাকিবুল হাসান ২ ও মুকিদুল ইসলাম ১ রানে অপরাজিত থেকে দিনের খেলা শেষ করেন। প্রথমদিন খেলা হয়েছে ৮০ ওভার।

বিশ্বজয়ী যুব অধিনায়ক আকবরের ১৬১ বলে ১৩৬ রানের ইনিংসে ছিল ২০ চার, ২টি ছক্কা। শাহাদাত ৯৪ রান করতে খেলেন ১৬২ বল। এ ওপেনারের ইনিংসে ছিল ১৪টি চার।

৬৭ রান করতে শামীম খেলেন মাত্র ৪৬ বল। তার ইনিংস ৮ চার ও ৩ বিশাল ছয়ের মারে সাজানো।

শরিফুল ইসলাম ও রেজাউর রহমান নেন ২টি করে উইকেট। নোমান চৌধুরী, শাহিন আলম ও রিশাদ হোসেন নেন একটি করে উইকেট।