চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

আইসিটি খাতে আরো ৫ বছর আয়কর থাকছে না

আইসিটি খাতের উন্নয়নে সফটওয়্যার রপ্তানিতে আরো ৫ বছর আয়কর অব্যাহতি থাকছে। আগামী বাজেটে আইসিটি খাত প্রসারিত করতে ১০ হাজার কোটি টাকা বরাদ্দের পাশাপাশি প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণাও আসতে পারে।

সেই সঙ্গে হাইটেক পার্ক চালু হলে ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার কাজ আরেক ধাপ এগিয়ে যাবে মনে করে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ।

বিজ্ঞাপন

বর্তমান অত্যাধুনিক প্রযুক্তিভিত্তিক দুনিয়ার সঙ্গে পাল্লা দিতে হলে খুব দ্রুতই তথ্য প্রযুক্তিতে উন্নয়ন প্রয়োজন। গত বেশ কবছর ধরেই এই নিয়ে কাজও করছে সরকার, কিছু দৃশ্যমান সাফল্যও আছে।

২০০৮ সালে বাংলাদেশ থেকে বিশ্বের ৩০টি দেশে রপ্তানি হতো ২৩ মিলিয়ন মার্কিন ডলার এর সফটওয়্যার, আর গত বছর সফটওয়্যার রপ্তানি ১১গুণ বেড়ে দাড়িয়েছে ২’শ ৫০ মিলিয়ন ইউএস ডলারে।

আইসিটি খাতে প্রণোদনা হিসেবে গত বছরের বাজেটে আয়কর অব্যাহতি দেয়া হয় ২০১৯ সাল পর্যন্ত। আগামী বাজেটেও এর প্রতিফলন থাকছে।

আইসিটি বিশেষজ্ঞ শামীম আহসান মনে করেন ২০২৪ সাল পর্যন্ত যদি এই খাতকে আয়কর অব্যাহতি দেওয়া হয় তাহলে, আগামী ৪-৫ বছরের মধ্যে আইসিটি খাত থেকেই ১ বিলিয়ন ডলার আয় করা সম্ভব।  

বিজ্ঞাপন

আইসিটি বিশেষজ্ঞ মোস্তফা জব্বারের দাবি, তথ্য-প্রযুক্তি বাজেটকে পুরোটাই ডিজিটাল বাংলাদেশ নামে নতুন একটি খাত সৃষ্টি করে তাতে বরাদ্দ। তারপর যদি সেটি বিভিন্ন মন্ত্রনালয়ে বরাদ্দও করা হয় তাতেও আপত্তি নেই এই আইসিটি বিশেষজ্ঞের।     

কারওয়ান বাজারের জনতা টাওয়ার, কালিয়াকৈর ও যশোরের হাইটেক পার্ক এবং রাজধানীর কুড়িল বস্তিতে ১৯৯৭ সালের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী আইটি ভিলেজ চালু আর শিশু শ্রেণী থেকে তথ্য প্রযুক্তি শিক্ষা বাধ্যতামূলক করার পরামর্শ বিশেষজ্ঞদের।

তারা বলেন, হাইটেক পার্কগুলো যদি দ্রুত বাস্তবায়ন সম্ভব হয় এবং সেই সঙ্গে ঢাকা থেকে কালিয়াকৈরে দ্রুত গতির ট্রেনের ব্যবস্থা করা যায় তাহলে এই খাতে আরও বেশি বিদেশী বিনিয়োগ আকৃষ্ট করা সম্ভব হবে।

সেই সঙ্গে  দেশের স্কুল গুলোকে দ্রুত ডিজিটাল করার পরামর্শও তাদের। এ খাতে উন্নয়নের ধারা অব্যাহত থাকলে তৈরী পোশাক খাতকে ছাড়িয়ে যাওয়া সম্ভব বলে মনে করছে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ।

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের অতিরিক্ত সচিব পার্থপ্রতিম দেব চ্যানেল আইকে জানান, তারা ইতিমধ্যে আইসিটি খাতকে কর অব্যাহতির পাশাপাশি বিশেষ প্রণোদনা দেয়ার জন্য অনুরোধ করেছেন। তিনি আশা করেন আগামী বাজেটে এর প্রতিফলন ঘটবে।

২০২১ সালের মধ্যে মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত হতে বাংলাদেশকে আইটি খাতে বিনিয়োগ বাড়াতে হবে, আর সেদিকে গুরুত্ব দিয়েই তৈরী হচ্ছে আগামী অর্থবছরের বাজেট।

Bellow Post-Green View