চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

আইপিএল ম্যাচের বল নিয়ে পালালো পথচারী!

২০২০ আইপিএলের ম্যাচ হচ্ছে আরব আমিরাতের দুবাই, আবু ধাবি ও শারজাহতে। প্রথম দুই ভেন্যুর চেয়ে শারজাহ স্টেডিয়ামে হওয়া ম্যাচগুলো বেশ আলোচনায়। ছোট মাঠ, চারের চেয়ে ছক্কা হচ্ছে বেশি, ক্ষেত্র বিশেষে বল গিয়ে পড়ছে মাঠের বাইরেও। শনিবার এভাবেই মাঠের বাইরে চলে যাওয়া একটি বল আর ফেরত আনা যায়নি, বলটা নিয়ে যে পালিয়েছেন পথচারী!

শনিবার চেন্নাই সুপার কিংস বনাম দিল্লী ক্যাপিটালস ম্যাচে প্রথমে ব্যাট করে মহেন্দ্র সিং ধোনির চেন্নাই। ইনিংসের ১৮তম ওভারের পঞ্চম বলে স্ট্রাইকে রবীন্দ্র জাদেজা। বোলিং প্রান্তে দিল্লীর পেসার তুষার দেশপান্ডে।

বিজ্ঞাপন

তুষারের লেগ স্ট্যাম্পের বাইরে করা বলকে ফ্লিকে লেগ সাইড দিয়ে মাঠের বাইরে পাঠান জাদেজা। অন্যকোনো স্টেডিয়াম হলে ৭৯ মিটার লম্বা ছক্কাটি কোনভাবেই গ্যালারির বেশি যেত না, কিন্তু জাদেজার সেই ছক্কাটি স্টেডিয়ামের ছাদ টপকে পড়ে রাস্তায়।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

শারজাহ স্টেডিয়ামের একটা প্রান্ত দৈর্ঘ্যে খুব ছোট, আর রাস্তার পাশে হওয়ায় ছক্কা একটু বড় হলে প্রায়ই বল উড়ে পড়ছে রাস্তায়। বল রাস্তায় পড়লে অবশ্য সমস্যা হয় না। চলাচল করা পথচারীরা ফেরত পাঠিয়ে দেন স্টেডিয়ামে। এবি ডি ভিলিয়ার্সের এক ছক্কাই যেমন মাঠের বাইরে গিয়ে পড়ার পর আবার ফেরত এসেছে বল।

জাদেজার ছক্কাতে সেটি ঘটেনি, রাস্তায় পড়া বল আর ফেরত আসেনি। টিভি ক্যামেরায় দেখা গেছে বল রাস্তায় পড়া মাত্রই এক পথচারী কুড়িয়ে নিয়ে পালিয়ে যাচ্ছেন। ক্যামেরায় ধরা পড়েছে রাস্তার মাঝে পড়ায় গাড়ি চলাচলের মধ্যেই সেই পথচারী জীবনের ঝুঁকি নিয়ে বল কুড়াচ্ছেন। দৃশ্যটি দেখে হাসিতে ফেটে পড়েন ধারাভাষ্যকাররা!

ম্যাচে ১৩ বলে ৪ ছক্কায় ৩৩ রানের ইনিংস খেলে অপরাজিত ছিলেন জাদেজা। বিধ্বংসী ইনিংসে ১৭৯ রানের সংগ্রহ পেয়েছিল চেন্নাই। অবশ্য শেষ রক্ষা হয়নি ধোনিদের। নায়ক থেকে খলনায়ক হয়েছেন জাদেজাই। শেষ ওভারে দিল্লীর জয়ে জন্য প্রয়োজন ছিল ১৭ রান। ওই ওভারে বোলিং করতে এসে ৫ বলে ২২ রান দিয়ে বসেন জাদেজা। ৫ উইকেটে ম্যাচ হেরে আসরে খাদের কিনারায় চলে গেছে চেন্নাই।