চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

আইনী জটিলতার শঙ্কার মধ্যে শুরু হচ্ছে মার্কিন নির্বাচনের ভোটগ্রহণ

রেকর্ড সংখ্যক আগাম ভোট পড়ায় নির্বাচনের লড়াই আদালতে গড়ানোর শঙ্কা নিয়েই আজ শুরু হচ্ছে মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের ভোটগ্রহণ। শেষ সময়ের প্রচারণায় ব্যস্ত ক্ষমতাসীন রিপাবলিক ও বিরোধী ডেমোক্র্যাট প্রার্থী।

জো বাইডেন ঘুরে বেড়াচ্ছেন ট্রাম্পের ব্যাটেলগ্রাউন্ডগুলোতে। আর ট্রাম্প হানা দিচ্ছেন বাইডেনের দূর্গ বলে পরিচিত ব্যাটেলগ্রাউন্ডগুলোতে। শেষ জনমত জরিপে ডোনাল্ড ট্রাম্পের চেয়ে ১০ পয়েন্ট ব্যবধানে এগিয়ে রয়েছেন জো বাইডেন।

বিজ্ঞাপন

বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যায় শুরু হবে মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচন। বিশ্বের ক্ষমতাধর এ রাষ্ট্রের শাসনভার কার হাতে যাবে সেদিকে তাকিয়ে সারা বিশ্বের মানুষ। আর শেষ মুহূর্তের প্রস্তুতিতে ব্যস্ত নির্বাচন কর্মকর্তারা। স্থানীয় সময়ের তারতম্যের কারণে ৫০টি অঙ্গরাজ্যে আলাদা সময়ে ভোটগ্রহণ হবে। তবে বেশিরভাগ অঙ্গরাজ্যে সকাল ৭টায় ভোটগ্রহণ শুরু হয়ে চলবে রাত ৮টা পর্যন্ত।

নির্বাচনের একদিন আগে চার ব্যাটলগ্রাউন্ড রাজ্যে প্রচারণা চালান ট্রাম্প। সমাবেশে জানান, যেভাবেই হোক নির্বাচনে জেতার ব্যাপারে খুবই আত্মবিশ্বাসী তিনি।

বিজ্ঞাপন

ব্যাটলগ্রাউন্ড রাজ্যগুলোতে শেষ প্রচারণায় ব্যস্ত ছিলেন ডেমোক্রেট প্রার্থী জো বাইডেনও। তাকে বিজয়ী করতে সোমবার সারাদিন জর্জিয়ায় প্রচারণা চালান সাবেক প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা। প্রত্যেক ভোটারকেই ভোট দেয়ার আহ্বান জানান তিনি।

করোনা পরিস্থিতির কারণে এবার রেকর্ড সাড়ে কোটিরও বেশি ভোটার আগাম ভোট দেয়ায় নির্বাচনের ফল ঘোষণা নিয়ে জটিলতা তৈরি হওয়ার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। ডাকযোগে পাঠানো ব্যালট গ্রহণের সময়সীমা বাড়ানো নিয়ে নির্বাচনের পর আইনি লড়াইয়ের ঝুঁকি বেড়েছে। এরই মধ্যে দাঙ্গার আশঙ্কায় বেশ কয়েকটি অঞ্চলে বন্দুক বিক্রি বেড়েছে। তবে সব ধরনের সহিংসতা এড়াতে সতর্ক অবস্থানের কথা জানিয়েছে আইন শৃঙ্খলা বাহিনী।

নির্বাচনকে কেন্দ্র করে হোয়াইট হাউস এলাকায় গাড়ি পার্কিংয়ে বিধি-নিষেধসহ আশপাশের রাস্তা বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। অস্থায়ীভাবে তৈরি করা হয়েছে নিরাপত্তা বেষ্টনি।

দেশটির ৫০টি অঙ্গরাজ্যে একসঙ্গে ভোট হলেও সবার দৃষ্টি ব্যাটেলগ্রাউন্ড অঙ্গরাজ্যগুলোর দিকে। জনমত জরিপে ডেমোক্র্যাট প্রার্থী জো বাইডেন অনেক ব্যবধানে এগিয়ে থাকলেও ৪৬তম মার্কিন প্রেসিডেন্ট কে হচ্ছেন তার অনেকটাই নির্ধারণ করে দেবেন ব্যাটেলগ্রাউন্ড বাসিন্দারা।