চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

অ্যাস্ট্রাজেনেকার ভ্যাকসিন রপ্তানিতে ভারতের নিষেধাজ্ঞা

সেরাম ইনস্টিটিউটের তৈরি অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার ভ্যাকসিন রপ্তানি ও বেসরকারিভাবে বিক্রিতে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে ভারত সরকার। আগামী কয়েক মাস এ নিষেধাজ্ঞা বলবৎ থাকবে।

এই নিষেধাজ্ঞার ফলে আগামী কয়েক মাস শুধু সরকারিভাবেই ভ্যাকসিন সরবরাহ করতে পারবে সেরাম। এতে অনুন্নত ও গরীব দেশগুলোর ভ্যাকসিন পাওয়া আরও কঠিন হবে বলে আশঙ্কা করছেন বিশেষজ্ঞরা।

বিজ্ঞাপন

রোববার এই ভ্যাকসিনটির জরুরি ব্যবহারের চূড়ান্ত অনুমোদন দেয় ভারত। সেরাম ইন্সটিটিউটের সিইও আদর পুনাওয়ালা বলেন, অনুমোদন মেলে এক শর্তে যে ভারতের ভঙ্গুর জনগোষ্ঠীর নিরাপত্তা আগে নিশ্চিত করা হবে। এখন আমরা শুধু ভারত সরকারকে ভ্যাকসিন সরবরাহ করতে পারবো।

ফলে সবার জন্য ভ্যাকসিন সহজলভ্য করতে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার সঙ্গে করোনাভাইরাস ভ্যাকসিনের রপ্তানি নিয়ে কাজ মার্চ ও এপ্রিল পর্যন্ত শুরু করা যাবে না।

বিজ্ঞাপন

পুনাওয়ালা জানান, সেরাম ইন্সটিটিউট আরও বড় চুক্তির কাজ করছিল। সেখানে ৩০ থেকে ৪০ কোটি ডোজ তৈরির কথা চলছিল। যেটা বর্তমানে চুক্তিতে থাকা ১০ কোটির থেকে আলাদা।

প্রথম ১০ কোটি ডোজ বিশেষ মূল্যে ভারত সরকারকে দেওয়া হচ্ছে। সেখানে প্রতি ডোজের দাম পড়বে ২০০ রুপি। আগামী ৭ থেকে ১০ দিনের মধ্যেই যেসব রাজ্যে বেশি ভ্যাকসিন দরকার সেখানে সেগুলোর বিতরণ শুরু হবে।

২০২১ সালের ডিসেম্বরের মধ্যে আরও ২০ থেকে ৩০ কোটি ডোজ তৈরির পরিকল্পনা চলছে।

ভারতে ভ্যাকসিনের সুষ্ঠু বিতরণ করতে হবে বলেও জানান পুনাওয়ালা।