চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

অ্যাসাঞ্জের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য না দেয়ায় জামিন বাতিল

জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জ এবং উইকিলিকস এর বিরুদ্ধে সাক্ষ্য না দেয়ায় জামিন পেতে ব্যর্থ হয়েছেন চেলসি ম্যানিং। তার জামিন বাতিল করে আদালত তাকে অনির্দিষ্টকালের জন্য কারাগারে পাঠিয়েছেন।

বিজ্ঞাপন

আদালতের এই আদেশের পর চেলসি এখন উচ্চ আদালতে যাবেন বলে ইন্ডিপেন্ডেন্ট জানিয়েছে।

অ্যাসাঞ্জ এবং উইকিলিকস এর বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে বিচারিক আদালতের তদন্তে অংশ নিতে অস্বীকার করায় গত মাসে ৩১ বছর বয়সী চেলসিকে কারাগারে পাঠানো হয়।

গোপন জুরি বোর্ডের মাধ্যমে এই শুনানীর কাজ চলছে। এই বোর্ডের কাছে গোপনে সাক্ষ্য দিতে অস্বীকৃতি জানিয়ে বিচারককে চেলসি বলেন, ‘‘আপনি যে সাজা দিতে চান, দিতে পারেন।” আমি কোন গোপন প্রক্রিয়ায় অংশ নিব না। বিশেষ করে এমন একটি ঘটনার ক্ষেত্রে, যেখানে এই প্রক্রিয়া কোন রাজনৈতিক বক্তব্য সুরক্ষাকারী কোন কর্মীকে সাজা দেয়ার ক্ষেত্রে ব্যবহৃত হবে।

তার এই বক্তব্যের পরই আদালত তাকে কারাগারে পাঠায় এবং বিচারিক প্রক্রিয়ায় সহযোগিতা না করা পর্যন্ত তাকে সেখানেই রাখার নির্দেশ দেন। এরপর তার আবেদনের প্রেক্ষিতে গত সোমবারও আদালত তার জামিন বাতিল করে দেন।

আদালতের এই নির্দেশের পর ট্রান্সজেন্ডার চেলসির আইনজীবী বলেন, চেলসির কাছ থেকে জোরপূর্বক অ্যাসাঞ্জের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য নেয়ার চেষ্টা করা হচ্ছে। এটি যুক্তরাষ্ট্রের সংবিধানের প্রথম, চতুর্থ এবং ষষ্ঠ সংশোধনী অনুযায়ী চেলসির অধিকারকে খর্ব করছে।

বিজ্ঞাপন

তিনি বলেন, জুরি বোর্ড চেলসির সম্মতি নিতে ব্যর্থ হয়েছে এবং সরকারও এই জুরি বোর্ডের ক্ষমতার অপব্যবহার করছে।

পরে আইনজীবীর মাধ্যমে চেলসি জানান, একন তিনি আবারও সুপ্রিম কোর্টে আপিল করার চিন্তা করছেন।

উইকিলিকসকে সরকারি কূটনৈতিক তারবার্তা সরবরাহ করায় ভূমিকা রাখার অভিযোগে চেলসিকে ২০১৩ সালে ৩৫ বছরের কারাদণ্ড দেয়া হয়।

পরে চেলসি ম্যানিংয়ের সাজা কমিয়ে দেন তৎকালীন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা। এই সেনা সদস্যের সাজার মেয়াদ ২০৪৫ সালে শেষ হওয়ার কথা থাকলেও ২০১৭ সালের ১৭ মে তাকে মুক্তি দেয়া হয়।

Bellow Post-Green View