চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

অস্ট্রেলীয় যুবকের বিরুদ্ধে গুপ্তচরবৃত্তির অভিযোগ নর্থ কোরিয়ার

অস্ট্রেলীয় এক যুবকের বিরুদ্ধে গুপ্তচরবৃত্তির অভিযোগ এনেছে নর্থ কোরিয়া। অ্যালেক সিগলে নামের এ যুবক সংবাদ মাধ্যমের হয়ে গুপ্তরচরবৃত্তি করছিল বলে জানিয়েছে দেশটি।

তবে আটক হওয়ার পর অ্যালেক সিগলেকে গত বৃহস্পতিবার ছেড়ে দেয়া হয়েছে। গুপ্তচরবৃত্তি বা ‘‘শত্রু তাপূর্ণ’’ কাজের অভিযোগে নর্থ কোরিয়া প্রায়ই বিদেশিদের আটক করে থাকে।

বিজ্ঞাপন

বিবিসি জানায়, ২৯ বছর বয়সী অ্যালেক জুনের শেষদিক থেকে নিখোঁজ ছিলেন। কিন্তু বৃহস্পতিবার সুইডিস কর্তৃপক্ষ পিয়ংইয়ং এ নর্থ কোরিয়া সরকারের সঙ্গে সাক্ষাতের পর তাকে ছেড়ে দেয়া হয়।

নর্থ কোরিয়ার এনকে নিউজে সিগলের লেখা প্রকাশিত হতো। এনকে নিউজ সিগলের বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ অস্বীকার করেছে। তারা জানায়, সিগলের লেখায় শুধু পিয়ংইয়ংয়ে জীবনযাপনের অরাজনৈতিক দর্শন উপস্থাপন করা হতো।

বিজ্ঞাপন

তবে নর্থ কোরিয়ার রাষ্ট্রীয় সংবাদ সংস্থা কেসিএনএ বলেছে, সিগলে ছবি এবং বিশ্লেষণসহ বিভিন্ন বিষয়ে তথ্য পাচার করেছে। তিনি আন্তর্জাতিক শিক্ষার্থী হিসেবে দেশের বিভিন্ন স্থানে ঘুরে বেড়ানোর সুযোগে এসব সংগ্রহ করেছেন।

কেসিএ জানায়, এনকে নিউজের মতো নর্থ কোরিয়া বিরোধী সংবাদ মাধ্যমের অনুরোধেই তিনি এসব করেছেন। পরে গুপ্তরবৃত্তির সরল স্বীকারোক্তি করায় মানবাকিতার বিষয় বিবেচনায় নিয়ে তাকে ছেড়ে দেয়া হয়েছে। নর্থ কোরিয়ার সার্বভৌমত্ব লঙ্ঘন করার পরও কেন তাকে ছেড়ে দেয়া হলো সে বিষয়টি বারবার জানিয়ে দেয়া হয়েছে।

তবে কেন তাকে আটক করা হয়েছিল সে বিষয়ে অভিযুক্ত সিগলে কোন মন্তব্য করেননি। মুক্তি পাওয়ার পর তিনি জাপানে তার স্ত্রীর কাছে গেছেন।

পিয়ংইয়ংয়ের একটি বিশ্ববিদ্যালয়ে স্নাতকোত্তর পড়াশোনার সময় থেকেই নর্থ কোলিয়ায় বসবাস করছেন সিগলে। সেখানে তার পর্যটনের ব্যবসাও আছে। কোরিয়ার ভাষাও সে বেশ দক্ষ।

Bellow Post-Green View