চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

অস্ট্রেলিয়ায় সবচেয়ে বেশি বেতন পাওয়া সিইও একজন নারী

বাঁধ ভাঙার পালা শুরু হয়ে গিয়েছে বিশ্বজুড়ে। কর্মক্ষেত্রে নারী-পুরুষের বেতনের বৈষম্য ঘুচতে চলেছে ধীরে ধীরে। বড় একটা পদক্ষেপ নিয়ে শুরুটা হলো অস্ট্রেলিয়ায়। ইতিহাসে প্রথমবারের মতো একজন নারীকে অস্ট্রেলিয়ায় সর্বাধিক বেতনের সিইও নির্বাচিত করা হয়েছে।

ম্যাককুয়েরি গ্রুপের প্রধান নির্বাহী শেমারা উইক্রামণায়ক গত অর্থবছরে ১৮ মিলিয়ন ডলার (বাংলাদেশি মুদ্রায় প্রায় দেড়শ কোটি টাকা) আয় করেন। যা ওই প্রতিষ্ঠানের কর্পোরেট প্রধানের চেয়েও ৫০ লাখ ডলার বেশি।

বিজ্ঞাপন

আন্তজার্তিক গণমাধ্যম ডেইলি মেইলের সূত্রে জানা যায়, অস্ট্রেলিয়ান বার্ষিক পর্যালোচনায় প্রতিবেদনে বেশি পারিশ্রমিক প্রাপ্ত ৫০ জনের মধ্যে চারজন নারীর মধ্যে শেমারা অন্যতম।

অন্যদিকে এই প্রতিবেদন অনুসারে, কর্পোরেট এক নারী আইনজীবীর বেতনের পারিশ্রমিক ৭ লাখ ২২ হাজার ডলার।

বিজ্ঞাপন

তবে শেমারার বেতন কাঠামোতে দেখা যায় তিনি সপ্তাহে প্রায় ৩ লাখ ৮০ হাজার ডলার আয় করেন। যা কিনা অস্ট্রেলিয়ান ফুল টাইম একজন কর্মীর ২১১ বার কাজের সমান।

শুধু তাই-ই নয়, গতবছর ব্যাংকিং জগতে অভিজ্ঞ ব্যক্তি হিসেবে ম্যাকুয়েরি গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক হিসেবে প্রথম নারী হয়ে এখানে যোগদান করেন।

শেমারা উইক্রামণায়ক ২০১৯ সালে জলবায়ু পরিবর্তন ও অভিযোজন সম্পর্কিত বিশ্বব্যাংকের গ্লোবাল কমিশনের ভূমিকার জন্য তিনি ফরচুনের অন্যতম ‘মোস্ট পাওয়ারফুল উইমেন’ হিসাবে পুরস্কার লাভ করেন।

প্রতিবেদন অনুযায়ী শীর্ষ ৫০ জনের মধ্যে শেরামার পর সবচেয়ে বেশি পারিশ্রমিক নারীর তালিকায় রয়েছেন কোকা-কোলার সিইও এলিসন্স ওয়াকিনস। তার আয় প্রায় ৪১ লাখ ডলার, অন্যদিকে মিরভাক গ্রুপের সুসান লয়েড-হুরভিটস আয় করেছেন ৪৮ লাখ ডলার এবং ফরটস্কিউ মেটালসের পরিচালক এলিজাবেথ গেইনসের আয় ৫০ লাখ ডলার।

জানা যায়, কেবল মাত্র অস্ট্রেলিয়ার শীর্ষ পাঁচজন সিইও’র বেতন একত্রে হিসাব করে দেখা যায়, তার পরিমাণ প্রায় ১ কোটি ডলার!

Bellow Post-Green View