চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

অস্ট্রেলিয়ায় করোনার নতুন ধরন শনাক্ত, দুই সপ্তাহের লকডাউন

অস্ট্রেলিয়ার বৃহত্তম শহর সিডনিতে ১২৮ জনের শরীরে করোনাভাইরাসের অতি সংক্রামক ডেল্টা ধরন শনাক্ত হওয়ার পর এর বিস্তার ঠেকাতে নগরীটিতে দুই সপ্তাহের লকডাউন দেওয়া হয়েছে।

বিবিসির প্রতিবেদনের তথ্য মতে, এরই মধ্যে অস্ট্রেলিয়ার উত্তর অঞ্চল, কুইন্সল্যান্ড এবং নিউ সাউথ ওয়েলস রাজ্যের কিছু এলাকায় হঠাৎ করোনার নতুন ধরনের প্রার্দুভাব বেড়ে যাওয়ায় ৯ জুলাই পর্যন্ত লকডাউনের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

বিশ্বজুড়ে বিভিন্ন দেশে করোনার সংক্রমণ বাড়লেও গত কয়েকমাসের মধ্যে এবারই প্রথম দেশটির একাধিক অঞ্চলে করোনার ডেল্টা ধরন শনাক্ত হয়েছে।

অন্যদিকে সোমবার অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসনের সাথে দেশটির উচ্চ পর্যায়ের নেতাদের জরুরি বৈঠক হওয়ার কথা রয়েছে।

বিজ্ঞাপন

কোষাধ্যক্ষ জোশ ফ্রাইডেনবার্গ বলেছিলেন, অস্ট্রেলিয়া একটা জটিল সময়ের মধ্য পড়েছে, করোনার ডেল্টা ধরন শনাক্তের পর দেশটির সীমান্ত বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। ভাইরাসটির আরও বিস্তার রোধে নতুন বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়েছে।

রোববার থেকেই অস্ট্রেলিয়ার ডারউইন শহরেও করোনাভাইরাসের একই ধরনের প্রাদুর্ভাবের কারণে বাসিন্দাদেরকে দুইদিন ঘর থেকে বের না হওয়ার নির্দেশনা কঠোরভাবে মেনে চলতে বলা হয়েছে।

ভাইরাসের এ ধরনটি যে মাত্রার সংক্রামক, তাতে আগামী কয়েকদিন আজকের তুলনায় বেশি আক্রান্ত মিলবে বলেই আশঙ্কা করছি আমরা, সিডনিতে এক সংবাদ সম্মেলনে এমনটাই বলেছেন নিউ সাউথ ওয়েলস রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী গ্লেডিস বেরেজিক্লিয়ান।

দেশটিতে এখন পর্যন্ত ৩০ হাজার ৪৫০ জনের মতো কোভিড রোগী শনাক্ত হয়েছে, মৃত্যু হয়েছে ৯১০ জনের।

অবশ্য সাম্প্রতিক মাসগুলোতে দেশটিকে অনেক ছোট ছোট প্রাদুর্ভাব মোকাবেলা করতে হয়েছে। শনাক্ত রোগীর সংস্পর্শে আসা ব্যক্তিদের দ্রুত চিহ্নিত, হাজার হাজার মানুষকে নির্দিষ্ট সময় আইসোলেশনে রাখা এবং ছোট ছোট লকডাউনের মাধ্যমে তারা এখন পর্যন্ত করোনাভাইরাস সংক্রমণকে মোটামুটি নিয়ন্ত্রণেই রেখেছে।