চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

‘অভিষেকের সম্মানে আজ কি শুটিং বন্ধ রাখা যেত না?’

অভিষেকের মৃত্যুতে প্রশ্ন তুললেন সহ-অভিনেতা, ঘনিষ্ঠ বন্ধু শুভাশিস মুখোপাধ্যায়

হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে প্রয়াত অভিনেতা অভিষেক চট্টোপাধ্যায়। বুধবার মধ্যরাতে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৫৮ বছর। তার মৃত্যুতে শোকস্তব্ধ গোটা পশ্চিম বঙ্গের সিনেমা ইন্ডাস্ট্রি।

অভিষেকের আকস্মিক মৃত্যুতে ভেঙে পড়েছেন তার দীর্ঘ বছরের ঘনিষ্ঠ বন্ধু ও সহ-অভিনেতা শুভাশিস মুখোপাধ্যায়। নব্বইয়ের দশকের বহু ছবিতে তাদের দু’জনকে একসঙ্গে দেখা গেছে। প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়, অভিষেক চট্টোপাধ্যায় এবং শুভাশিস মুখোপাধ্যায়-কে বলা হত টলিপাড়ার ‘থ্রি মাস্কেটিয়ার্স’। সেই সময়ে এই তিনজন কোনও ছবিতে থাকা মানেই তা সুপারহিট!

Reneta June

বন্ধুর প্রয়াণে শোক প্রকাশ করতে গিয়ে কিছু অভিমানের কথা জানিয়েছেন শুভাশিষ। তিনি বলেন, ‘আমি গিয়েছিলাম মিঠুকে (অভিশেষ চট্টোপাধ্যায়) শেষবার দেখতে। বেশিক্ষণ থাকতে পারিনি। এখন আবার যেতে হবে শুটিংয়ে। আচ্ছা, প্রসেনজিৎ-অভিষেক- তাপস এরাতো একটা যুগ ছিল বাংলা ছবির ইতিহাসে। কীসব সুপারহিট ছবি দিয়েছে বক্স অফিসে। তা অভিষেকের মৃত্যুর দিনে কি ইন্ডাস্ট্রি এদিনের কাজ বন্ধ করে রাখতে পারত না? এটুকু সম্মান কি মিঠুর প্রাপ্য ছিল না?’

বিজ্ঞাপন

হারবার্ট খ্যাত এই অভিনেতা স্মৃতিচারণ করে বলেন,‘মিঠু আমার তো শুধু সহকর্মী ছিল না, আমার ঘনিষ্ঠ বন্ধু ছিল। আত্মীয়ই হয়ে উঠেছিল। কত বছরের সম্পর্ক আমাদের। তাপসটা চলে গেল কিছুদিন আগে, এবার মিঠু। একটু অভিমানী ছিল তবে ভীষণ সোজাসাপ্টা মানুষ ছিল। বিশ্বাস করুন, আমি জানি না কী প্রতিক্রিয়া দেব। আমরাও তো মানুষ। শিল্পী বলে হয়ত আরও বেশি আবেগপ্রবণ। কত কথা মনে পড়ছে…!’
-হিন্দুস্তান টাইমস