চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

অভিবাসী ভোট নিয়ে ট্রাম্প-বাইডেনের লড়াই

বাইডেন এশীয় আমেরিকানদের একচেটিয়া ভোট পেলেও এবার স্প্যানিশ ভোটে ভাগ বসাবেন ট্রাম্প ।

ডেমোক্রেটিক পার্টি ইমিগ্রেন্টদের প্রতি সদয়। তারা ক্ষমতায় থাকলে যুক্তরাষ্ট্রে বসবাসরত ইমিগ্রেন্টদের বিভিন্ন ধরণের নাগরিক সুবিধা নিশ্চিত হয়। তাই অন্য ইমিগ্রেন্টদের মতো এশীয় আমেরিকানরাও মার্কিন নির্বাচনে ডেমোক্রেট প্রার্থীদের সমর্থন করেন।

বিজ্ঞাপন

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনেও যথারীতি এশীয় আমেরিকানদের অধিকাংশ ভোটার ডেমোক্রেট প্রেসিডেন্ট প্রার্থী জো বাইডেনের পক্ষেই কাজ করছেন।

এশীয় আমেরিকানরা মনে করছেন, গত চার বছর বর্তমান প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প আকারে ইঙ্গিতে ইমিগ্রেন্টবিরোধী একটি মনোভাব তুলে ধরেছেন। তিনি ইমিগ্রেন্টদের যুক্তরাষ্ট্রে আসা কঠিন করে তুলছেন। বিশেষ করে ইমিগ্রেশন সংক্রান্ত বিভিন্ন ফি আগের তুলনায় অনেক বাড়িয়ে দিয়েছেন।

বিজ্ঞাপন

অথচ যুক্তরাষ্ট্রের অধিকাংশ রাজনীতিবিদ মনে করেন এই দেশ বিনির্মাণে ইমিগ্রেন্টদের গৌরবোজ্জ্বল ভূমিকা রয়েছে। তাই যুক্তরাষ্ট্রে নিজেদের অবস্থান আরও সুসংহত করতে জো বাইডেনকেই যোগ্য মনে করছেন এশীয় আমেরিকানরা।

কিন্তু দাবার গুটি উল্টে গেছে অন্য জায়গায়। যে স্প্যানিশ আমেরিকানরা একচেটিয়া ভোট দিত ডেমোক্রেট প্রার্থীকে, সেখানে এবার ভাগ বসিয়েছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। এবার রিপাবলিকান প্রার্থী দক্ষিণ আমেরিকান বংশোদ্ভূত এই ইমিগ্রেন্ট ভোটারদের অর্ধেক না হলেও কাছাকাছি ভোট পেতে পারেন বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।

কারণ হিসেবে তারা মনে করেন, বর্তমান প্রেসিডেন্ট ক্ষমতায় আসার পর মেক্সিকো সীমান্তে কড়াকড়ি আরোপ করায় অবৈধ স্প্যানিশদের যুক্তরাষ্ট্রে আসা কঠিন হয়ে পড়ে। ফলে যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থান করা বৈধ, অবৈধ স্প্যানিশদের কাজ পাওয়ায় চাপ সৃষ্টি হচ্ছেনা। নিজেদের কর্মসংস্থানের দিকে তাকিয়ে তারা সীমান্তের এই কড়াকড়িকে সমর্থন করছে।

তারা মনে করছে, তাদের আয় রোজগারের জায়গায় কেউ ভাগ বসাচ্ছে না।  আর তাই বৈধ স্প্যানিশদের একটি বড় অংশ রিপাবলিকান প্রার্থী প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে সমর্থন করছে।

উল্লেখ্য, যুক্তরাষ্ট্রে বসবাসকারী অধিকাংশ স্প্যানিশরা ভারী কাজ বা কায়িক পরিশ্রমের কাজে জড়িত।