চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

অবশেষে মৃত্যুর কোলে মুক্তামনি

বিরল রোগে আক্রান্ত সাতক্ষীরার মুক্তামনি মারা গেছে। বুধবার সকালে নিজ বাড়িতে মৃত্যু হয় তার।

রক্তনালির টিউমারের শিকার মুক্তামনির সোমবার রাতে আবারও জ্বর আসে। হাত অনেক ফুলে যায়। হাতের ফোলা অংশ থেকে দুর্গন্ধ বের হতে থাকে আবারও। রাত থেকেই মুক্তামনি কথা বলা বন্ধ করে দিয়েছিল বলে জানিয়েছিলেন তার বাবা ইব্রাহিম হোসেন।

সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালের অর্থো সার্জারি বিভাগের জুনিয়র কনসালটেন্ট ডা. মো. হাফিজ উল্লাহ ওই সময় জানান, মুক্তামনির জেনারেল কন্ডিশন খুবই খারাপ হয়ে গিয়েছিল। দেখা দিয়েছিল রক্তশূন্যতা। তার হাতের অপারেশন করা টিউমারটা আবার বড় আকার ধারণ করেছিল। টিউমারে ক্ষতও দেখা দিয়েছিল বলে জানান তিনি।

বিজ্ঞাপন

মুক্তামনির শারীরিক অবস্থায় চিকিৎসার জন্য ঢাকায় পাঠানোর পরামর্শও দেন চিকিৎসক।

সাতক্ষীরার মেয়ে মুক্তামনির দেহে জন্মের দেড় বছর পর একটি ছোট মার্বেলের মতো গোটা দেখা দেয়। এরপর সেটি গাছের গুঁড়ির রূপ নিয়ে বড় হতে হতে ডান হাত শরীরের চেয়ে ভারি হয়ে উঠে। তার এই বিরল রোগ নিয়ে বিভিন্ন গণমাধ্যমে খবর প্রকাশিত হলে তাকে ঢাকায় পাঠিয়ে সরকারি ব্যবস্থাপনায় চিকিৎসার উদ্যোগ নেয়া হয়।

গত বছরের ১১ জুলাই সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালের একটি অ্যাম্বুলেন্সে করে তাকে ঢাকায় আনা হয়। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মুক্তামনির চিকিৎসার দায়িত্ব নেন। ১২ জুলাই ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের হাসপাতালের বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইউনিটে পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর দেখা যায় লিমফেটিক ম্যালফরমেশন রোগে ভুগছিল মুক্তামনি। এটি একটি জন্মগত রোগ।

বিজ্ঞাপন