চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

অবন্তী রেগেছিলো বলেই সৃষ্টি হলো গান: বললেন বাপ্পী

‘রাগ কমলে ফোন করিস’ হয়ে উঠার পেছনের গল্প

দ্বিতীয়বারের মতো দ্বৈতকণ্ঠে নতুন গান নিয়ে এলেন মেজবাহ বাপ্পী ও অবন্তী সিঁথি…

২০২০ সালের শেষ দিনে নতুন বছরের জন্য ইউটিউবে মুক্তি পেয়েছে মেজবাহ বাপ্পী ও অবন্তী সিঁথির কণ্ঠে গান ভিডিও ‘রাগ কমলে ফোন করিস’। গানের কথা লিখেছেন কলকাতার পীযূষ দাস, সংগীতায়োজন করেছেন সাজিদ সরকার। 

গানটির ভিডিও স্পন্সর করেছে মটোরোলা বাংলাদেশ ও দারাজ। গানটির ভিডিও নির্মাণ করেছে কল্পলোক প্রোডাকশন হাউস। গানটি প্রকাশিত হয়েছে দুই শিল্পী বাপ্পী ও অবন্তীর নিজস্ব ইউটিউবে। এছাড়া মটোরোলা বাংলাদেশ এর অফিশিয়াল ফেসবুক পেইজেও গানটি দেখা যাচ্ছে। শিগগির দারাজের ফেসবুকেও গানটি প্রকাশিত হবে।

বিজ্ঞাপন

আলাদা আলাদাভাবে শিল্পীদের নিজস্ব ইউটিউব চ্যানেলে গান প্রকাশের এমন উদ্যোগটি মূলত চ্যানেল আইয়ের। প্রতিষ্ঠানটির পক্ষ থেকে ইজাজ খান স্বপন জানিয়েছেন, গান নিয়ে চ্যানেল আই বিভিণ্ন সময় বিভিন্ন বয়সী শিল্পীদের নিয়ে রিয়েলিটি শোয়ের মাধ্যমে শিল্পী খুঁজে এনেছে। সেই ধারাবাহিকতা এখনও অব্যাহত। রিয়েলিটি শোয়ের মাধ্যমে উঠে আসা প্রতিভাবান সেইসব শিল্পীদের সবসময় পাশে আছে চ্যানেল আই। শিল্পীদের স্বয়ংসম্পূর্ণ একটি নিজস্ব প্লাটফর্ম তৈরী করে দিতেই এবারের এই উদ্যোগ।

বিষয়টি নিয়ে চ্যানেল আই সেরাকণ্ঠ খ্যাত কণ্ঠশিল্পী বাপ্পী জানান, আমাদের ‘রাগ কমলে ফোন করিস’ গান ভিডিওটি শ্রোতা দর্শকদের সামনে নিয়ে আসতে প্রপার গাইডলাইন পেয়েছি চ্যানেল আই ও ইজাজ খান স্বপন ভাইয়ের থেকেই।

কিন্তু অবন্তীর সাথে কীভাবে? এমন প্রশ্নে বাপ্পী বলেন, ২০১২ সালে অবন্তী সিঁথি আর আমি আলাদা আলাদা দুটো প্লাটফর্মে সংগীত রিয়েলিটির প্রতিযোগী ছিলাম। ও ছিলো ক্লোজআপ ওয়ানে, আমি ছিলাম সেরা কণ্ঠে। ওই সময় থেকেই আমাদের বন্ধুত্ব। এরপর ২০১৮ সালে কলকাতার জি বাংলার সা রে গা মা পা তে আমরা দুজনই অংশ নিয়েছিলাম। আমি আগে চলে আসলেও অবন্তী দারুণ সুনাম অর্জন করে। তো ওই প্লাটফর্মে একসাথে যাওয়ার পর থেকেই আমরা পরিকল্পনা করছিলাম যে, দেশে ফিরে একসঙ্গে কাজ করবো। সেই ভাবনা থেকেই ‘রাগ কমলে ফোন করিস’ গানটি তৈরী হয়।

কথায় কথায় বাপ্পী জানান, এই গান হয়ে উঠার পেছনেও চমৎকার একটি গল্প আছে।

অবন্তী সিঁথি ও মেজবাহ বাপ্পী

তিনি বলেন, আমি আর অবন্তী যখন একসঙ্গে গানের প্ল্যান করি, তখন অবন্তী আমাকে গান লিখতে বলে। কিন্তু আমি কলকাতার পীযূষ দাসকে সাজেস্ট করি। সেই ভাবনা থেকেই আমাদের তিনজনের একটা গ্রুপ চ্যাটবক্সও তৈরী হয়। সেখানেই আমরা গান নিয়ে একের পর এক কথা বলি। ঘন্টার পর ঘন্টা সেখানে কথা হয়। পীযূষ দাস একটি গান লিখে ওই গ্রুপে দেন, আমরা আমাদের পছন্দের কথা জানাই। বলি অন্যরকম একটি গান চাই। তো এগুলোর কোনো একটা ব্যাপার নিয়ে অবন্তী রেগে যায়। তার একটু অভিমান হয়। গ্রুপে আমি আর পীযূষ কথা বলছি, কিন্তু ও আর রেসপন্স করে না। তো ওই সময়ে আমি অবন্তীর উদ্দেশে লিখলাম যে, ‘রাগ কমলে ফোন করিস’। এই লাইনটা লেখার পর পীযূষ সেটা ক্যাচ করে ফেললো। সে আমাকে বললো, দাদা এই লাইনটা নিয়েই তো আমাদের গান হতে পারে। এক ঘন্টার মধ্যে গানটা লিখে আমাকে পাঠালো, আমারও পছন্দ হলো। আমি অবন্তীকে ফরোয়ার্ড করলাম, মজার ব্যাপার হচ্ছে- এটা দেখে অবন্তীরও অভিমান ভাঙলো। অবন্তী রেগেছিলো বলেই সৃষ্টি হলো একটি নতুন গান।

এই গানের মাধ্যমে প্রথমবার কোনো মিউজিক ভিডিওর মডেল হলেন দেশের জনপ্রিয় উপস্থাপিকা ফারজানা বীথি এবং সম্ভাবনাময় তরুণ মডেল রেহান।

এরআগে ২০২০ সালের ভালোবাসা দিবসে জয় শাহরিয়ারের কথা ও সুরে বাপ্পী-অবন্তী প্রথমবার একসঙ্গে গেয়েছিলেন ‘ভালোবেসে দেখো না’ শিরোনামে একটি গান। আজব রেকর্ডস থেকে প্রকাশিত সেই গানটিও বেশ শ্রোতাপ্রিয় হয়।

বাপ্পী আশাবাদী, অবন্তী সিঁথির সঙ্গে নতুন বছরের জন্য গাওয়া ‘রাগ কমলে ফোন করিস’ গানটিও শ্রোতা দর্শকের কাছে গ্রহণযোগ্যতা পাবে।

‘রাগ কমলে ফোন করিস’ গানটি থাকলো এখানে: