চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

অবনমন ঠেকাতে খেলোয়াড়দের দেহে করোনা সংক্রমণ!

রীতিমত আঁতকে ওঠার বিষয়, করোনার সংক্রমণ থেকে বাঁচতে যেখানে দেশে দেশে লকডাউন চলছে, সবাইকে গৃহবন্দি থাকতে হচ্ছে, সেখানে কিনা ইংলিশ ক্লাব ওয়াটফোর্ড ইচ্ছা করেই খেলোয়াড়-কোচিং স্টাফদের দেহে করোনা জীবাণু ঢুকিয়ে দিচ্ছে! যাতে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে অবনমন থেকে বাঁচা যায়! এমন দাবি আবার দলটির ডিফেন্ডার ক্রিস্টিয়ান কাবাসেলে।

কাবাসেলের বক্তব্য ভয় পাওয়ার মতো হলেও আসলে পুরো বিষয়টা কৌতুক, তবে শ্লেষ মেশানো। কেনো ওয়াটফোর্ড খারাপ খেলছে, একজনের এমন প্রশ্নের জবাবে এই উত্তর দিয়েছেন কাবাসেলে।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

২০১৯-২০ মৌসুমে বেশ করুণ অবস্থা ওয়াটফোর্ডের। রীতিমত অবনমন অঞ্চলে অবস্থান দলটির। করোনাভাইরাসের কারণে দুই মাস বন্ধ থাকার পর আবারও যখন ফেরার অপেক্ষায় প্রিমিয়ার লিগ, তখন দলটিতে আবারও করোনার হানা। দুই খেলোয়াড়সহ ক্লাবটির মোট চারজন কোভিড-১৯ ভাইরাসে পজিটিভ।

বিজ্ঞাপন

ক্লাবের সবশেষ অবস্থা টুইটারে জানানো মাত্র বেশ সমালোচনা হয়েছে ওয়াটফোর্ডকে নিয়ে। একজন লিখেছেন, ‘আমি এবিষয়ে কিছু লিখতে চাই না। তবে তারা পরিস্থিতি যেভাবে ঘোলাটে করছে তা জঘন্য। অবনমন ঠেকাতে তারা যে কৌশল নিয়েছে তা বোঝাই যাচ্ছে। আমি ওয়াটফোর্ডের সমর্থক হলেও লজ্জিত বোধ করতাম।’

টুইটারে সেই ব্যক্তির ইঙ্গিত ইচ্ছে করেই ক্লাবের খেলোয়াড়দের করোনায় সংক্রমিত করছে ওয়াটফোর্ড, যেন অবনমন থেকে বাঁচা যায়। সেই টুইটের পাল্টা জবাবে কাবাসেলে লিখেছেন, ‘আচ্ছা আমাদের কৌশল খোলাসা করছি আপনার কাছে, আমরা প্রতি সপ্তাহে একবার করে কোভিড-১৯ ভাইরাসের জীবাণু ইনজেক্ট করি আমাদের দেহে। কারা কারা এই ইনজেকশন নিতে চান তা ড্রয়ের মাধ্যমে ঠিক করা হয়, যাতে আমাদের আর অবনমনে পড়তে না হয়!’