চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

অপু বিশ্বাস কি বাসায় আছেন?

চলতি বছরের এপ্রিলে উন্মোচন হয়েছিল দেশের তারকা অভিনেতা শাকিব খান ও অপু বিশ্বাসের অজানা একটি অধ্যায়! ধারনা করা হচ্ছে, বছর শেষে এই অজানা অধ্যায়টির পরিসমাপ্তি ঘটতে যাচ্ছে। কেননা, শাকিবের সঙ্গে গোপন প্রেম, বিয়ে ও সন্তান জন্মের বিষয় নিয়ে অপু চমক সৃষ্টি করে খবরে আসলেও বছর শেষে শোনা যাচ্ছে দুঃসংবাদ। বিচ্ছেদ ঘটতে যাচ্ছে তাদের। অপু বিশ্বাসের সঙ্গে সংসার আর দীর্ঘ করতে চাইছেন না শাকিব খান। আর এই কারণে তিনি তালাকনামা পাঠিয়েছেন অপুর ঘরে।

বেশ কয়েকদিন ধরেই শাকিব-অপুর বিচ্ছেদের খবরটি মিডিয়া পাড়ায় বাতাসে ছড়াচ্ছিল। শেষ পর্যন্ত সেই গুঞ্জনই সত্য প্রমান হল। অপু বিশ্বাসকে তালাকনামা পাঠিয়েছেন শাকিব, বিষয়টি চ্যানেল আই অনলাইনকে নিশ্চিত করেছেন শাকিবেরই আইনজীবী সিরাজুল ইসলাম।

বিজ্ঞাপন

আর সোমবার বিকালে ‘অপুর বাসায় শাকিবের ডিভোর্স লেটার’ পাঠানোর খবরটি চাউড় হওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই অপুর নিকেতনের বাসার সামনে ভিড় করেন গণমাধ্যমকর্মীরা। যদিও ডিভোর্সের খবরের পর থেকেই ফোনে পাওয়া যাচ্ছিল না চিত্রনায়িকা অপু বিশ্বাসকে। সব সময় যিনি সংবাদকর্মীদের আপডেট দিতেন সেই অপুই পরিচিত সাংবাদিকদের ফোন রিসিভ করছেন না! আবার বাসায় গিয়েও অপুর সঙ্গে সাক্ষাতে ব্যর্থ হন ইলেকট্রনিক, প্রিন্ট ও অনলাইন মিডিয়ার সংবাদকর্মীরা। সবার মুখে একটাই প্রশ্ন, অপু বিশ্বাস কই গেলেন?

অপু বিশ্বাস কি বাসায় আছেন? এমন প্রশ্নেও অপু বিশ্বাসের বাসার দারোয়ান দুই ধরনের উত্তর দিয়েছেন। একজন বললেন, বাসায় আছে কিন্তু এখন তিনি কারো সঙ্গে সাক্ষাৎ করবেন না বলে আমাদেরকে বলে দিয়েছেন। অন্য একজন দারোয়ান বললেন, তিনি বিকালে বাসা থেকে বেড়িয়ে গেছেন। আমরা জানি না।

বিচ্ছেদের খবরে বরাবরই চুপচাপ ছিলেন শাকিব-অপু। তবে এই বিষয়টি নিয়ে গেল মাসে একটি সংবাদসম্মেলন করেন অপু। রাজধানীর বেইলী রোডের ক্যাফে থার্টি-থ্রিতে ডিভোর্সের খবরকে মিথ্যে গুজব আখ্যা দিয়ে অপু বিশ্বাস সেদিন বলেছিলেন, সন্তান সংসার নিয়ে ভালো আছি, আপাতত এর বাইরে কিছু ভাবছি না। ডিভোর্সের খবরটি সংবাদেই প্রথম দেখেছি। আমি বা শাকিব এই বিষয়ে কিছু জানি না। অনলাইন, পত্রিকাতেই আমাদের ডিভোর্সের খবর প্রথম দেখলাম।

বিজ্ঞাপন