চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

অননুমোদিত আর্থিক প্রতিষ্ঠান ও ক্ষুদ্র ঋণের কারবার বন্ধের নির্দেশ

দেশের কোথাও অননুমোদিত ও লাইসেন্স বিহীন ক্ষুদ্র  ঋণের কারবার বা আর্থিক প্রতিষ্ঠানের অস্তিত্ব পাওয়া গেলে প্রশাসনের সহযোগিতায় তা তাৎক্ষণিক বন্ধের নির্দেশে দেয়ার পাশাপাশি ওইসব প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নিতে নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট।

এছাড়া দেশে ক্ষুদ্র ঋণের কারবার করছে এমন অননুমোদিত প্রতিষ্ঠানের কার্যক্রম তদন্তে বাংলাদেশ ব্যাংককে একটি বিশেষ কমিটি গঠন করতে নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। যে কমিটিকে আগামী ৪৫ দিনের মধ্যে স্থানীয় সুদ কারবারীদের তালিকা প্রতিবেদন আকারে আদালতে দিতে মাইক্রোক্রেডিট রেগুলেটরি অথরিটিকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

সারা দেশে চড়া সুদে ঋণদাতা মহাজনদের চিহ্নিত করার নির্দেশনা চেয়ে ব্যারিস্টার সৈয়দ সায়েদুল হক সুমনের করা রিটের শুনানি নিয়ে বিচারপতি আবু তাহের মো. সাইফুর রহমান ও বিচারপতি মো. জাকির হোসেনের ভার্চুয়াল হাইকোর্ট বেঞ্চে সোমবার রুলসহ এই আদেশ দেন।

আদালত তার রুলে লাইসেন্স এবং অনুমোদন ছাড়া ক্ষুদ্র ঋণকারবারী বেসরকারি আর্থিক প্রতিষ্ঠানের কার্যক্রম পর্যবেক্ষণ ও তদারকিতে বিবাদিদের নীরবতা কেন আইনগত কর্তৃত্ববহির্ভূত ঘোষণা করা হবে না, তা জানতে চেয়েছেন। অর্থ সচিব, বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর, মাইক্রোক্রেডিট রেগুলেটরি অথরিটির এক্সিকিউটিভ ভাইস চেয়ারম্যান, ও সমাজসেবা অদিদপ্তরের মহাপরিচালককে এই রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে।

আদালতে আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন রিটকারী আইনজীবী সৈয়দ সায়েদুল হক সুমন। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল নূর উস সাদিক।

বিজ্ঞাপন