চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

অগণিত জীবন বাঁচালেন শিক্ষকরা

যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ার নির্বিচারে গুলি চালিয়ে ৪ জনকে হত্যাকারী এক বন্দুকধারী প্রাথমিক স্কুলে গুলি চালালেও সেখানে প্রবেশ করতে পারেননি। শিক্ষকদের তাৎক্ষণিক পদক্ষেপে বেঁচে যায় অগণিত প্রাণ। পুলিশের পক্ষ থেকে এমনটি জানানো হয়। স্থানীয় সময় মঙ্গলবার এই হামলার ঘটনা ঘটে।

বন্দুক হামলায় দুই শিশুসহ আরও অন্তত ১০ জন আহত হন। ক্যালিফোর্নিয়ার স্যাকরামেন্টো থেকে ১৬০ কিলোমিটার উত্তরের ছোট শহর কর্নিংয়ে এই হামলার ঘটনা ঘটে।

বিজ্ঞাপন

একটি সেমি-অটোমেটিক অস্ত্র ও দুটি হ্যান্ডগান নিয়ে উত্তর ক্যালিফোর্নিয়ায় বেশ কয়েকটি জায়গায় হানা দিয়ে এই হত্যাকাণ্ড চালানো হয়।

কাছেই গুলিবর্ষণের আওয়াজ শুনে র‌্যাঞ্চো তেহামা রিজার্ভ স্কুলের শিক্ষকরা প্রবেশ দরজা বন্ধ করে দেয়। শিক্ষকদের এই পদক্ষেপের প্রশংসা করে  কর্তৃপক্ষ। বলে, “এটি ‘অসংখ্য’ জীবন বাঁচানোর জন্য ‘স্মরণীয়’ হয়ে থাকবে।”

পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয়, স্কুল লক্ষ্য করে গুলি চালানোর ফলে একজন শিশু গুলিবিদ্ধ হয়। অন্যান্যরা ভাঙ্গা গ্লাসের আঘাতে আহত হয়।

পরবর্তীতে পুলিশ একটি চুরি করা গাড়িতে থাকা হামলাকারীকে গুলি করে হত্যা করে। হামলাকারী স্থানীয়ভাবে কেভিন নীল (৪৩) নামে পরিচিত।

পুলিশ জানায়, হামলাকারী তার অধিকাংশ আক্রান্তকেই টার্গেট করে লক্ষ্যহীনভাবে। স্কুলেও সে গুলি চালায়। কিন্তু শিক্ষকরা দরজা বন্ধ করে দিলে সে সেখানে প্রবেশ করতে পারেনি। ছয় মিনিট পর সেখান থেকে চলে যায় সে।

জানা যায়, একজন মা তার সন্তানকে স্কুলটিতে নিয়ে আসার সময় গাড়িতেই গুলিবিদ্ধ হন। তখনই স্কুলটি সতর্ক হয়ে উঠে। সেই মা গুরুতর আহত হন।

বিজ্ঞাপন

অ্যাসিসট্যান্ট শেরিফ ফিল জনস্টোন বলেন, “এই হামলাকারী লক্ষ্যহীনভাবে মানুষকে হত্যা করে। আমাকে বলতেই হবে, এই ঘটনা যতটা মর্মান্তিক ও  খারাপ, তারচেয়েও খারাপ হতে পারতো।”

এপি এমন একজন নারীর সাথে কথা বলেন যিনি নিজেকে হামলাকারী নীলের মা বলে পরিচয় দেন। তিনি বলেন, নীলের সাথে তার প্রতিবেশীদের দীর্ঘ সময় ধরে বিবাদ ছিলো। নর্থ ক্যারোলিনায় বেড়ে উঠা নীল গাঁজা চাষে নিয়োজিত ছিলো। সম্প্রতি দীর্ঘ সময়ের বান্ধবীকে বিয়ে করে সে।

নীলের বোন শেরিদান ডুর এপিকে বলেন, তার ভাই মাদকাসক্ত ছিলো বলে তার বিশ্বাস। মানসিক অসুস্থতা ও সহিংস মেজাজ ছিলো তার।

কেভিন নীলের কাছে বন্দুক থাকার বিষয়টি শেরিদানকে ‘স্তম্ভিত ও ভীত’ করে। তিনি আশা প্রকাশ করেন, এই হামলার ফলে মার্কিনীরা বুঝবে এ ধরণের মানুষদের বন্দুক পাওয়ার ক্ষেত্রে নিয়ন্ত্রণ আরোপ করা কতটা প্রয়োজন।

“এটা এমন গল্প যা আমাদের অসংখ্যবার শুনতে হচ্ছে।”

পুলিশের পক্ষ থেকে বন্দুকধারীর পরিচয় আনুষ্ঠানিকভাবে এখনও নিশ্চিত করা হয়নি।

রেঞ্চো তেহামায় মঙ্গলবার সকালে এক প্রতিবেশীর সাথে বিবাদের পরপরই এই  নির্বিচার গুলিবর্ষণের সুত্রপাত বলে ধারণা। একজন প্রতিবেশীকে তিনি হত্যা করেছেন বলেও জানায় পুলিশ।

বন্দুক হামলায় নিহতের ঘটনায় শোক প্রকাশ করে টুইট করেছেন মার্কিন ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্স। “উত্তর ক্যালিফোর্নিয়ায় গুলিতে হতাহতের ঘটনায় আমি গভীরভাবে শোকাহত।”, টুইটে বলেন পেন্স।

আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সাহসিকতার প্রশংসা করে তিনি আরও লিখেন, “আমরা পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করছি ও কেন্দ্রীয় সরকার তাদের সহায়তায় পাশে রয়েছে। আহতদের দ্রুত আরোগ্য কামনা করছি।”

Bellow Post-Green View