৫৪ ধারা

ফৌজদারি কার্যবিধির ৫৪ ধারা এবং ১৬৭ ধারা প্রয়োগের বিষয়ে সর্বোচ্চ আদালতের নির্দেশনা অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। জনগণের স্বার্থে কোড অব ক্রিমিনাল প্রসিডিয়র সিআরপিসিতে আরো সংশোধন আনতে হলে তাও করা হবে বলে জানিয়েছেন আইনমন্ত্রী। বিনা পরোয়ানায় গ্রেফতার সংক্রান্ত ৫৪ ধারা ও রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ সংক্রান্ত হাইকোর্টের রায় মঙ্গলবার বহাল রেখেছেন আপিল বিভাগ। আদালত বলেছেন, পূর্ণাঙ্গ রায়ে কিছু দিক নির্দেশনা পরিবর্তন বা সংশোধন করে দেয়া হবে। সচিবালয়ে সাংবাদিকদের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ফৌজদারী কার্যবিধি অনুযায়ী ৫৪ ও ১৬৭ ধারার প্রয়োগ নিয়ে সুস্পষ্ট নির্দেশনা দেয়া আছে। সে অনুযায়ী কাজ করছে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী। এ ধারাগুলোর যাতে অপপ্রয়োগ না হয় সেজন্য আদ

By মোরছালীন বাবলা on মঙ্গলবার, ২৪ মে ২০১৬ ২১:০৩

অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম বলেছেন, বিনা পরোয়ানায় গ্রেফতার ও রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদের ক্ষেত্রে সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ যে পূর্ণাঙ্গ রায় দেবেন তার আলোকে সরকার পদক্ষেপ নেবে। আজ মঙ্গলবার দুপুরে অ্যাটর্নি জেনারেল কার্যালয়ে আয়োজিত এক প্রেস ব্রিফিংয়ে তিনি এসব কথা বলেন।মাহবুবে আলম বলেন, আমাদের সংবিধানে যে কিছু অনুচ্ছেদ আছে, ৩১, ৩৫ বা মানবাধিকার সংক্রান্ত যেগুলো অনুচ্ছেদ আদালতের অভিমত হলো কোড অফ ক্রিমিনাল প্রসেডিউর, এভিডেন্স এ্যাক্ট বা আমাদের পুলিশদের কাজ করা সংক্রান্ত যে আইন আছে পিআরবি, এ সমস্ত আইনগুলি আর সংবিধান পরিপন্থী হয়ে যাচ্ছে। সুতরাং হাইকোর্ট যে রায় দিয়েছিলেন সে রায়টি ছিল কিছু মন্তব্য বা কিছু রিকমেন্ডেশন, সাংবিধানিক যে বিধি-বিধান তার আলোকে এই ফৌজদারি কার্যবিধি এভি

By মাজহারুল হক মান্না on মঙ্গলবার, ২৪ মে ২০১৬ ১৮:১১

১৩ বছর পর ২৪ মে ৫৪ ধারা নিয়ে হাইকোর্টের আপিল বিভাগ যে রায় দিয়েছে তা বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে জনগণের পক্ষে একটি বিশাল বিজয়। প্রায় একযুগ পর বুধবার আলোচিত ৫৪ ধারা ও ১৬৭ ধারা বিষয়ে হাইকোর্টের আদেশের বিরুদ্ধে সরকারের করা আপিলের রায় দিলেন সর্বোচ্চ আদালত। রাষ্ট্রপক্ষের করা আপিল বাতিল করে দিয়ে আদালত বলেছেন, এই মামলায় পূর্ণাঙ্গ রায়ে হাইকোর্টের কিছু নির্দেশনা পরিবর্তন বা সংশোধন করে দেয়া হবে। হাইকোর্টের রায়ে এর আগে বেশ কিছু উল্লেখযোগ্য নির্দেশনা দেওয়া হয়েছিলো। জেনে নিন সেইসব নির্দেশনা:ক. পুলিশ কাউকে ৫৪ ধারায় গ্রেফতার করতে পারবে না।খ. গ্রেফতারের সময় পুলিশ তার পরিচয়পত্র দেখাতে বাধ্য থাকবে।গ. গ্রেফতারের তিন ঘণ্টার মধ্যে আটককৃতকে গ্রেফতারের কারণ জানাতে হবে।ঘ. বাসা বা ব্যবসা প্রতিষ্ঠা

By চ্যানেল আই অনলাইন on মঙ্গলবার, ২৪ মে ২০১৬ ১৬:২৪

পরোয়ানা ছাড়া গ্রেফতার ও রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ সংক্রান্ত হাইকোর্টের রায়ের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রপক্ষের আপিল নাকচ করেছেন সর্বোচ্চ আদালত। সেই রায়ের বিষয়ে কথা বলেছেন আইনজীবীরা। রায়ের নানান দিক এবং সেই বিষয়ে আদালতের নির্দেশনার বিষয়ে জানান তারা। বাংলাদেশের সংবিধানের অন্যতম প্রণেতা ড. কামাল হোসেন রায় প্রসঙ্গে বলেন, যে বিষয়ে সরকার আপিল করেছিলো; ১৩ বছর আগে আমরা সে রায় পেয়েছিলাম। ওই রায়ে ৫৪ ধারাকে অসাংবিধানিক ঘোষণা করা হয়েছিলো এবং যেসব নির্দেশনা দেওয়া হয়েছিলো, সেই ব্যাপারে আজকে চূড়ান্ত রায় হলো। তখনকার সরকার যে আবেদন ফাইল করেছিলো, আজকে তা আদালত ডিসমিস করেছেন। হাইকোর্টের নির্দেশনা বহাল রেখেছেন। তবে আগের নির্দেশনার সঙ্গে কিছু সংযোজন হয়েছে। রিমান্ডের নির্দেশনাও বহাল রয়েছে। আরেক

By চ্যানেল আই অনলাইন on মঙ্গলবার, ২৪ মে ২০১৬ ১৪:৪৩

পরোয়ানা ছাড়া গ্রেফতার সংক্রান্ত ৫৪ ধারা ও রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ সংক্রান্ত হাইকোর্টের রায়ের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রপক্ষের আপিল বাতিল করেছেন সর্বোচ্চ আদালত। তবে আদালত বলেছেন, এই মামলায় পূর্ণাঙ্গ রায় হাই কোর্টের কিছু নির্দেশনা পরিবর্তন বা সংশোধন করে দেয়া হবে। প্রধান বিচারপতি এসকে সিনহার নেতৃত্বে চার বিচারপতির আপিল বেঞ্চ রাষ্ট্রপক্ষের আপিল খারিজ করে দিয়ে এই সংক্ষিপ্ত রায় প্রকাশ করেন।প্রায় একযুগ পর বুধবার আলোচিত ৫৪ ধারা ও ১৬৭ ধারা বিষয়ে হাইকোর্টের আদেশের বিরুদ্ধে সরকারের করা আপিলের রায় দিলেন সর্বোচ্চ আদালত।পরে রিটকারীর আইনজীবী ড. কামাল হোসেন ও ব্যারিস্টার আমির উল ইসলাম বলেছেন, তের বছর পরে এই রায় ঐতিহাসিক। ফলে ৫৪ ধারায় গ্রেফতারের সময় অবশ্যই হাইকোর্টের নির্দেশনাগুলো মানতে হবে

By মাজহারুল হক মান্না on মঙ্গলবার, ২৪ মে ২০১৬ ০৮:২৯

প্রায় একযুগ পর মঙ্গলবার আলোচিত ৫৪ ধারায় ও ১৬৭ ধারা বিষয়ে হাইকোর্টের আদেশের বিরুদ্ধে সরকারের করা আপিলের রায় দেবেন সর্বোচ্চ আদালত।এই রায়ের মাধ্যমে কোনোরকম গ্রেফতারি পরোয়ানা ছাড়া ৫৪ ধারায় অাটক এবং আটকাবস্থায় জিজ্ঞাসাবাদের ১৬৭ ধারা সংশোধনে দেয়া হাইকোর্টের রায়ের বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হবে।এবছর ২২ মার্চ রাষ্ট্রপক্ষের আপিলের ওপর শুনানি শুরু হয়। শুনানিতে এ বিষয়ে আদালতের নির্দেশনা পালিত না হওয়া হতাশা ব্যক্ত করেন সর্বোচ্চ আদালত। তবে রাষ্ট্রপক্ষের আর্জি আদালত যেন বাস্তবতার বিবেচনায় নির্দেশনা দেন।১৯৯৮ সালে ডিবি পুলিশ সিদ্ধেশ্বরী এলাকা থেকে বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র রুবেলকে ৫৪ ধারায় গ্রেফতার করে এবং পরে পুলিশ হেফাজতে মারা যায় রুবেল। এই ঘটনায় কয়েকটি মানবাধিকার সংগঠন রিট করলে

By চ্যানেল আই অনলাইন on সোমবার, ২৩ মে ২০১৬ ২৩:৩০

পরোয়ানা ছাড়া ৫৪ ধারায় কাউকে গ্রেফতার ও রিমান্ডে জিজ্ঞাসাবাদ করা নিয়ে রাষ্ট্রপক্ষের আপিলের শুনানি শেষ। ২৪ মে রায় দেবেন আপিল বিভাগ। এ বিষয়ে আদালতের নির্দেশনা দেওয়ার পরও পালন না হওয়ায় হতাশা ব্যক্ত করেছে সর্বোচ্চ আদালত। রাষ্ট্রপক্ষ বলেছে আদালত যেন বাস্তবতার বিবেচনায় নির্দেশনা দেন। ১৯৯৮ সালে ডিবি পুলিশ সিদ্ধেশ্বরী এলাকা থেকে বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র রুবেলকে ৫৪ ধারায় গ্রেফতার করে এবং পরে পুলিশ হেফাজতে মারা যায়  রুবেল। এই ঘটনায় কয়েকটি মানবাধিকার সংগঠন রিট করলে ২০০৩ সালে রায় দেন হাইকোর্ট। এতে ফৌজদারী কার্যবিধির ৫৪ ধারায় গ্রেফতার ও রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদের প্রচলিত বিধান সংশোধন করতে সরকারকে নির্দেশ দেওয়া হয়। সংশোধনের আগে কয়েক দফা নির্দেশনা মেনে চলার কথা বলা হয়। রায়ের বিরুদ্ধে

By মাজহারুল হক মান্না on মঙ্গলবার, ১৭ মে ২০১৬ ২১:৫১