২য় বিশ্বযুদ্ধ

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময়কার একটি ৫শ’ পাউন্ড বা প্রায় ২৩০ কিলোগ্রাম ওজনের বোমা নিষ্ক্রিয় করার উদ্দেশ্যে গ্রিসের থেসালোনিকি শহর থেকে ৭০ হাজারেরও বেশি মানুষকে সরিয়ে নেয়া হয়েছে। আধুনিক গ্রিসে পাওয়া যুদ্ধকালীন বোমাগুলোর মধ্যে এটিকেই সবচেয়ে বড় বলে মনে করা হচ্ছে। এছাড়াও এবারই প্রথম গ্রিসে এক সঙ্গে এত বেশি মানুষ সরিয়ে নেয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছে বিবিসি। গত সপ্তাহে রাস্তার সংস্কার কাজে খোঁড়াখুড়ি করতে গিয়ে বোমাটি আবিষ্কৃত হয়। তবে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, এর অবস্থা এতই খারাপ যে বোঝাই যাচ্ছে না এটি জার্মানির ফেলা বোমা, নাকি মিত্রবাহিনীর। রোববারেরই কোনো এক সময় এটি নিষ্ক্রিয় করা হবে। এই অপারেশন সম্পর্কে একটি ব্লগে দাবি করা হয়, এটি যুদ্ধ পরবর্তী শান্ত সময়ে গ্রিক জনগণকে সরিয়ে

By চ্যানেল আই অনলাইন on রবিবার , ১২ ফেব্রুয়ারি ২০১৭ ০৯:৪২

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় নিক্ষিপ্ত একটি বোমা নিষ্ক্রিয় করতে দক্ষিণ জার্মানির অগসবুর্গ শহর থেকে ৫০ হাজারের বেশি বাসিন্দাকে জোর করে সরিয়ে নেয়া হয়েছে। যে কোনো ধরনের দুর্ঘটনা এড়াতে বড়দিনেও লোকজনকে ঘরবাড়ি থেকে সরিয়ে নেওয়া হয় বলে জানিয়েছে শহর কর্তৃপক্ষ। টানা কয়েক ঘণ্টার চেষ্টায় শেষ পর্যন্ত বোমাটি নিষ্ক্রিয় করা সম্ভব হয়েছে বলে জানিয়েছে জার্মান পুলিশ। সম্প্রতি নির্মাণ কাজ চালানোর সময় বোমাটি পাওয়া যায়। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর অবিস্ফোরিত কোনো বোমার কারণে জার্মানিতে এর আগে কখনো এত বেশি সংখ্যক মানুষকে সরানো হয়নি বলে জানিয়েছে বিবিসি। ধারণা করা হচ্ছে, ১.৮ টন (প্রায় দুই হাজার কেজি) ওজনের এই ব্রিটিশ বোমাটি ১৯৪৪ সালে বিমান হামলার সময় ফেলা হয়েছিল। ওই হামলায় প

By চ্যানেল আই অনলাইন on সোমবার, ২৬ ডিসেম্বর ২০১৬ ১১:৪৬

বাংলাদেশে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময়কার একটি অস্থায়ী কবর আবিষ্কৃত হয়েছে। শুধুমাত্র বাবার ইচ্ছে পূরণ করতেই তাকে সঙ্গে নিয়ে নাইজেরিয়া থেকে বাংলাদেশে এসেছিলেন নাইজেরিয়ান সেনাপ্রধান লেঃ জেনারেল টুকুর ইউসুফ বুরাতাই। তার বাবা ইউসুফ মুরদিমি বুরাতাই ওই বিশ্বযুদ্ধের সময় নাইজেরিয়ান সেনাবাহিনীর লেন্স কর্পোরাল ছিলেন। ৭৩ বছর পর পুরনো সেই কর্মস্থলেই আর একবার ফিরতে চেয়েছিলেন বুরাতাই। এতদিন পর পুরনো সেই স্মৃতিময় স্থানে ফিরে আবেগ আপ্লুত হয়ে পড়েন ইউসুফ। বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর একটি টিম নাইজেরিয়ান সেনাপ্রধানসহ তার পিতাকে নিয়ে চকরিয়ার পুরাতন বিমান বন্দর এলাকায় যায়। এরপর ফাঁসিয়াখালী সেনাক্যাম্প এলাকায় গিয়ে অবিষ্কার হয় ২য় বিশ্বযুদ্ধের সময়কার একটি অস্থায়ী গণকবর। সেখানে নাম না জানা অনেক স

By সরওয়ার আজম মানিক on শনিবার, ১৪ মে ২০১৬ ১০:৪৭