শিশু

অপরাধে জড়িয়ে পড়া শিশুদের আদালতে না নিতে এবং তাদের প্রতি মানবিক আচরণ করতে বলেছেন আপিল বিভাগের বিচারপতি মোহাম্মদ ইমান আলী। রাজধানীর বিভিন্ন থানা পরিদর্শনের সময় শিশু আইনের বরাত দিয়ে একথা বলেছেন তিনি। বলেছেন, নিরাপত্তার জন্য হুমকি, এমন কয়েদিদের ভবিষ্যতে আদালতে আনার প্রয়োজন পড়বে না। শিশু আইন ২০১৩ অনুযায়ী ১৮ বছর পর্যন্ত সবাই শিশু। এ আইনে বলা হয়েছে, প্রতিটি থানায় শিশু বিষয়ে ডেস্ক গঠন করতে হবে। শিশু আইন মানার অগ্রগতি দেখতে ঢাকার কয়েকটি থানা পরিদর্শন করেছে সুপ্রিম কোর্ট কমিটি অন চাইল্ড রাইটস। কমিটির সদস্য তিন বিচারপতি পুলিশ কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলেন। শিশুদের প্রতি মানবিক আচরণ করতে কর্মকর্তাদের নির্দেশ দেন তারা। এই বিচারপতি বলেছেন, নতুন একটি আইন হয়ে গেলে নিরাপত্তার জন্য হুমকি,

By মোস্তফা মল্লিক on শুক্রবার, ১৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ ১৫:৪৯

বিশ্বে প্রতি ছয়টি শিশুর মধ্যে একটি শিশু যুদ্ধকবলিত অঞ্চলে জন্ম গ্রহণ করছে। সেভ দ্যা চিলড্রেনের এক প্রতিবেদনের বরাত দিয়ে বিবিসি জানিয়েছে, গত ২০ বছরে যুদ্ধের কারণে চরম হুমকির মুখে আছে শিশুরা। নতুন এক গবেষণায় বলা হয়েছে, প্রায় ৩৫৭ মিলিয়ন শিশু যুদ্ধকবলিত এলাকায় জন্ম গ্রহণ করছে। যা প্রায় ১৯৯৫ সালের তুলনায় ৭৫ শতাংশ বেশি। গবেষণায় আরও যে বিষয়টি উল্লেখ করার মত তা হলো- সিরিয়া, আফগানিস্তান, সোমালিয়া যুদ্ধ বিধ্বস্ত দেশগুলোর শিশুরা সবচেয়ে বেশি মৃত্যু ঝুঁকির মুখে থাকে। এছাড়া মধ্যপ্রাচ্যের দেশের শিশুদের মধ্যে বেশিরভাগ শিশুর সংঘাতপূর্ণ অবস্থানে থাকে। প্রতি ৫০ কিলোমিটারে জন্ম নেওয়া শিশুই যুদ্ধকবলিত অঞ্চলে জন্ম নেয়। এদের মধ্যে সংঘাতপূর্ন দেশের তালিকায় আফ্রিকার অবস্থান দ্বিতীয়। এক পরিংখ্

By চ্যানেল আই অনলাইন on বৃহস্পতিবার, ১৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ ১৬:৩৫

নানা কারণে গত কয়েক বছরে অনেক প্রাণী মারা গেলেও প্রায় সাত বছর ধরে জাতীয় চিড়িয়াখানায় নতুন কোনো প্রাণী আনা হচ্ছে না। অনেক প্রাণীই বার্ধক্যজনিত নানা রোগে ভুগছে। ঢাকা চিড়িয়াখানায় নতুন প্রাণী আনার দাবি জানিয়েছেন দর্শনার্থীরা। জীববৈচিত্র্যের আনন্দ পেতে অনেকেই ছুটে আসেন জাতীয় চিড়িয়াখানায়। তবে নতুন প্রাণীর দেখা না পাওয়ায় হতাশ হন অনেকেই। চিড়িয়াখানার দেয়া তথ্যানুযায়ী, বর্তমানে চিড়িয়াখানাটিতে ১শ’ ৩৭ প্রজাতির ২ হাজার ৬শ’ ৯১টি প্রাণী রয়েছে। এর মধ্যে জিরাফসহ উচ্চতায় বড় প্রাণী রয়েছে ১৮ প্রজাতির, বাঘ ও সিংহসহ মাংশাসী প্রাণী ১১ প্রজাতির এবং ৫৬ প্রজাতির পাখি এবং ম্যামালস রয়েছে ১৭ প্রজাতির। বছরের পর বছর একই প্রাণী থাকায় দর্শনার্থী কমে যাওয়ার আশঙ্কা করছেন অনেকেই। চিড়িয়াখানাটির কিউরেট

By চ্যানেল আই অনলাইন on শনিবার, ১৩ জানুয়ারী ২০১৮ ১০:১৫

রাজধানীতে বিভিন্ন সময় পরিত্যক্ত অবস্থায় নবজাতক পাওয়া যায়। হাসপাতালেও সন্তানকে ফেলে যাবার মত ঘটনা ঘটছে। সংশ্লিষ্টরা বলছেন, ধর্ষণ এবং অনাকাঙ্খিত গর্ভধারণ ছাড়াও দরিদ্রদের মধ্যে অপরিকল্পিত সন্তান জন্মের পর শিশুকে পরিত্যক্ত করার ঘটনা ঘটছে। সাময়িকভাবে বিভিন্ন আশ্রয় কেন্দ্রে তাদের আশ্রয় মিললেও স্থায়ী সুরক্ষার কোন বিকল্প নেই। তিন মাসের শিশু রুহি। পৃথিবীর আলো দেখার পর জায়গা হয়েছিলো পথের পাশে আবর্জনার স্তুপে। অমানবিকতার শিকার শিশুটি এখন বেড়ে উঠছে রাজধানীর আজিমপুরের ছোটমণি নিবাসে। শুধু পরিত্যক্ত নয়, হারিয়ে যাওয়া কিংবা পাচারের শিকার হয়ে পরে উদ্ধার শিশুদেরও কারো কারো জায়গা হয় সমাজসেবা অধিদপ্তর পরিচালিত ‘ছোটমণি নিবাসে’। ২০১৫ থেকে ২০১৭ সালে তিন বছরে ছোটমণি নিবাসে আশ্রয় পেয়

By জান্নাতুল বাকেয়া কেকা on রবিবার , ০৭ জানুয়ারী ২০১৮ ১০:১৩

বিশ্বজুড়ে শিশুদের ওপর সহিংসতা বেড়েই চলছে। ২০১৭ সালে এই নির্যাতনের পরিমাণ ভয়াবহ। জাতিসংঘের তথ্য মতে, যুদ্ধের কারণেই বর্তমানে প্রায় বেশির ভাগ শিশুর জীবন বিপন্ন হচ্ছে। প্রতিনিয়ত ঘটছে শিশু ধর্ষণসহ হত্যা এবং শ্লীলতাহানির ঘটনা । এই শিশুদের বড় অংশই বিশ্বের বিভিন্ন জায়গায় যুদ্ধ, সংঘাত, এবং দ্বন্দ্বের কারণে নির্যাতনের  শিকার হচ্ছে। জাতিসংঘ আন্তর্জাতিক শিশু তহবিল (ইউনিসেফের) রিপোর্ট অনুযায়ী, শিশুদের এই সহিংসতা আন্তর্জাতিক আইন লঙ্ঘন করছে এবং দিন দিন এই নির্যাতনের আকার বৃদ্ধি পাচ্ছে। ইউনিসেফের এক অনুষ্ঠানে ডিরেক্টর ম্যানুয়াল ফনটেইন বলেন, এই নির্যাতনের ফলে শিশুগুলো তাদের বাড়ি, শিক্ষা, খেলার জায়গা হারাচ্ছে। এছাড়া মিয়ানমারের বেশির ভাগ রোহিঙ্গা শিশু, নাইজেরিয়ার শিশু, সাউথ সুদানের শিশু, ই

By চ্যানেল আই অনলাইন on বৃহস্পতিবার, ২৮ ডিসেম্বর ২০১৭ ১৬:১৩

ছিনতাইয়ের শিকার হওয়া এক নারীর কোল থেকে পড়ে গিয়ে রাজধানীতে এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। সোমবার সকালে রাজধানীর দয়াগঞ্জে এই ঘটনা ঘটে। নিহত শিশুর নাম আরাফাত এবং তার বয়স সাত মাস বলে জানা গেছে। ছিনতাইয়ের শিকার ওই নারীর নাম আকলিমা বেগম। শিশুটির বাবার নাম শাহ আলম গাজী। জানা গেছে, বড় ছেলে আলামিন অসুস্থ থাকায় দুই ছেলেকে নিয়ে সোমবার সকালে ঢাকায় আসেন শাহ আলম ও আকলিমা দম্পতি। গ্রামের বাড়ি শরীয়তপুর থেকে এসে তারা নামেন সদরঘাটে। সেখান থেকে বাবা শাহ আলম বড় ছেলে আলামিনকে নিয়ে শ্যামলীর শিশু হাসপাতালে যান। ছোট ছেলে আরাফাতকে নিয়ে রিক্সায় শনির আখড়ায় বোনের বাসায় যাওয়ার সময় পথে ছিনতাইকারীর কবলে পড়েন আকলিমা। ছিনতাইকারীরা তার ব্যাগ ধরে টান দিলে কোলে থাকা সাত মাসের আরাফাত পড়ে যায়। এরপর তাকে ঢাকা মেডিকেল

By চ্যানেল আই অনলাইন on সোমবার, ১৮ ডিসেম্বর ২০১৭ ১২:৫১

দশ টাকা চুরি করলেও চুরি। আবার ১০ কোটি টাকা চুরি করলেও চুরি। দুজনেই চোর। তবে আমরা এখন কি দেখছি সমাজে? দশ টাকা চুরির অপরাধে একটি শিশুকে পিটিয়ে মেরে ফেলা হয়। আবার ১০ কোটি টাকা চুরি করে ঘুরে বেড়ায় দাপটের সাথে। গত চার পাঁচ বছর ধরে আমরা পত্রিকা খুললেই একটি বহুল আলোচিত খবর পাই। তা হলো ব্যাংকের টাকা চুরি। এক লাখ দুই লাখ টাকা না, কোটি কোটি টাকা। তাও কম বলা হল, হাজার হাজার কোটি টাকা লোপাট করা হয়েছে। বড় বড় পত্রিকাঅলারা তাদের অনেক দামি জায়গা নষ্ট করেছে সেই চোরদের খবর ছেপে। রাঘব বোয়ালরা সেই চোরদের পেছনে জড়িত সেটাও বোঝা গেছে দুএকদিন পর। কারণ যেই পত্রিকা ওই ধরনের খবর ছেপেছে তাদের আবার সেই খবরের প্রতিবাদ ও প্রতিবেদকের বক্তব্য ছাপতে হয়েছে। তার মানে কি দাঁড়াল? আবারও পত্রিকাওয়ালাদের পত্রিকার মূল্য

By সারওয়ার-উল-ইসলাম on বুধবার, ১৩ ডিসেম্বর ২০১৭ ১৬:৩১

তিনি একজন স্কুল শিক্ষক। অন্যের সন্তানকে প্রতৃক মানুুষ হিসেবে গড়ে তোলাই তার ব্রত। অথচ নিজের সন্তানকে তিনি বেঁধে রেখে যান দড়ি দিয়ে। এ যেন প্রদীপের ঠিক নিজেই অন্ধকার। সেই শিক্ষকের নাম কৃষ্ণা রানী ভট্টাচার্য্য। তিনি হবিগঞ্জের চন্দ্রনাথ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক। নিজের সন্তানকে কেন এভাবে বেঁধে রাখেন? তার জবাব- বাধ্য হয়েই এ কাজ করতে হয়। কারণ তার সন্তান বিশেষ চাহিদাসম্পন্ন শিশু। দেখার মতো অন্য কোনো ব্যবস্থা না থাকায় এমন করতে হচ্ছে তাকে। হবিগঞ্জের মাস্টার কোয়ার্টার এলাকায় যাওয়ার পর জানা গেলো, কৃষ্ণা রানি তার ১৪ বছরের শিশুকে দড়ি দিয়ে বেঁধে স্কুলে যান। শিক্ষকের স্বামীও ব্যস্ত থাকেন বাইরের কাজে। স্থানীয়দের সহায়তায় ওই শিক্ষকের বাড়িটি খুঁজেও পাওয়া গেল। সেখানে দেখা যা

By মোস্তফা মল্লিক on সোমবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০১৭ ১১:৫৯

দেশে শিশু সংগঠনগুলোর কার্যক্রম সীমিত হয়ে পড়া স্কুলগুলোতে সংস্কৃতি চর্চা ও খেলাধুলা কমে যাওয়ায় শিশুদের মাঝে অপরাধ প্রবণতা বাড়ছে বলে মনে করেন বিশেষজ্ঞরা। মোবাইল ফোন-ভিডিও গেম-ফেসবুক তাদের অবসরের সঙ্গী। সংশ্লিষ্টরা বলছেন, এতে তাদের জীবনধারা, নৈতিকতা ও মূল্যবোধে নেতিবাচক পরিবর্তন ঘটছে। বেশ কয়েকটি প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, ইন্টারনেট আর অবাধ তথ্যপ্রবাহের এই যুগে তরুণ প্রজন্ম, এমনকি শিশুদেরও এখন অবসরের প্রধান সঙ্গী স্মার্টফোন, ভিডিওগেম, ফেসবুক এবং ইউটিউব। সাহিত্য পড়া, সঙ্গীত, বিতর্ক, আবৃত্তি চর্চার মতো বিষয় দিন দিন কমে আসছে। বিশেষজ্ঞরা বলেছেন, মানবিক মূল্যবোধসম্পন্ন মানুষ হতে হলে শুধু পাঠ্যবইয়ের পড়াশোনা যথেষ্ট নয়। এজন্য খেলাধুলার পাশাপাশি সাহিত্য-সংস্ক

By পরাগ আজিম on মঙ্গলবার, ২৮ নভেম্বর ২০১৭ ১৩:৩৮

শিশুর প্রথম মিথ্যা শেখার শিক্ষক তার মা-বাবা। নিউমার্কেট কিংবা গাউসিয়া থেকে শাড়ি-গহনা অন্যান্য ড্রেস, শিশুর খেলনা ইত্যাদি কিনে সন্তানের সামনেই বলতে থাকেন আমেরিকা, কানাডা, অস্ট্রেলিয়া, সিঙ্গাপুর, চীন,জাপান থেকে মামা, চাচা, খালা, ফুপু অথবা দেবর-ননদ কেউ না কেউ কেবল পাঠাচ্ছেন আর পাঠাচ্ছেন। কখনো কখনো সন্তানকে শিখিয়েও দেয়া হয়, আমরা যে সাত লাখ টাকায় গাড়িটা কিনেছি; সবাইকে বলতে হবে পঁয়ত্রিশ লাখ টাকা এর দাম। মধ্যবিত্তের অন্য ধরনের মিথ্যা: বাসায় বসে থেকেই সন্তানকে বলে পাঠায়, গিয়ে বলো বাসায় নেই। মিথ্যা বাণী শুনে পাওনাদার চলে যায়। গৃহকর্মী শিশু সন্তানকে মিথ্যা সংবাদ পাঠিয়ে বলে,"গিয়া কইবি মায়ের অসুখ, আজ কামে আসতে পারবো না।" প্লে গ্রুপ থেকেই শুরু হয়ে যায় লেখা-পড়ার নামে চালবাজি, ধান্দাবাজি অর্থাৎ প

By শামীমা খানম on মঙ্গলবার, ২১ নভেম্বর ২০১৭ ১৯:৫৬