আবদুল জলিলের বিচার

ভুল আইনে করা বিচারে ১৪ বছর সাজা খাটছেন ভোলার আবদুল জলিল। দণ্ড বাতিল করে ক্ষতিগ্রস্ত ব্যক্তিকে ৫০ লাখ টাকা দিতে রাষ্ট্রপক্ষকে নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। রায়ে বলা হয়েছে, বিচারের বদলে অবিচার করায় সেই দায় থেকে অব্যাহতি পেতে পারেন না ওই বিচারক। অ্যাটর্নি জেনারেল বলেছেন, ক্ষতিপূরণ দেওয়ার আদেশের বিরুদ্ধে আপিল করবেন তারা। তবে তার মতে যার মিথ্যা অভিযোগে সাজা খাটতে হয়েছে জলিলকে তাকেই জরিমানা করা উচিত।দণ্ডপ্রাপ্ত আসামী আবদুল জলিল ভোলার চর ফ্যাশনের বাসিন্দা। ধর্ষনের মামলায় ২০০৪ সালে ভোলার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আদালত আসামীকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডাদেশ ও জরিমানা করেন। জেল আপিল করলে জলিলের দণ্ড বাতিল করে মামলাটি পুনঃশুনানির নির্দেশ দেয় হাইকোর্ট। বিচারে আসামীকে আবারও যাবজ্জীবন কারাদণ্

By মাজহারুল হক মান্না on বুধবার, ২৫ মে ২০১৬ ১৭:১৪