আনোয়ার শাহাদাত

ডোনাল্ড ট্রাম্প গত সপ্তাহেও প্রধান সংবাদ। প্রতিদ্বন্দ্বী টেড ক্রুজের স্ত্রীকে নিয়ে যে নোংরামির সূত্রপাত তিনি করেছিলেন সেটা যে তার ভুলে হয়েছে স্বীকার করেছেন। তিনি এ যাবতকাল কোনো ভুল স্বীকার করেননি। গত সপ্তাহ সম্ভবত সবচেয়ে খারাপ সময় গেছে তার প্রেসিডেন্সিয়াল প্রচারণার জন্য। এর আগে এত অসহায় তাকে দেখা যায়নি। তিনি কখনো ভুল স্বীকার করেন না, ক্ষমা চান না, খুবই কঠোর ধরনের। এই সব ইমেজই তার সমর্থকরা পছন্দ করে থাকে। ফলে তিনি কখনোই তার ইমেজ রক্ষার্থে যা বলেছেন বা করেছেন তা ফিরিয়ে নেন না। গত সপ্তাহ ছিল তার জন্য সেই অর্থে খারাপ। অবশেষে টেডের স্ত্রীকে নিয়ে নোংরামি ফিরিয়ে নিতে হয়েছে। যা তার সমর্থকরা আবার পছন্দ করবে না। ফলে এখন তার সময় এসেছে কেবল হারাবার।ওই দিকে রিপাবলিকান দল আরও বেশি সংগঠিত ড

By আনোয়ার শাহাদাত on সোমবার, ০৪ এপ্রিল ২০১৬ ১০:২১

আমেরিকান রাজনীতি ও নির্বাচন ইতিহাসে ডোনাল্ড ট্রাম্পের প্রচারণা মানটি এ যাবত কালের সর্বনিম্নে, রুচিহীন, আক্রমণাত্মক, বর্ণবাদী, কী নয়? এর সর্বশেষ সংযোজন তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী টেড ক্রুজের স্ত্রী হেইডিকে  আক্রমণ। এই পর্বের শুরুটা গত ২২ মার্চের মনোনয়ন থেকে যখন রিপাবলিকান অর্থ-প্রদায়কদের (সুপার-প্যাক) পক্ষ থেকে একটি বিজ্ঞাপন প্রচার করা হয় ইউটাহ স্ট্যাটে, সেখানকার মরম্যান খৃষ্টান রক্ষণশীল ভোটারদেরকে উদ্দেশ্য করে। সাবেক রিপাবলিকান প্রেসিডেন্ট প্রার্থী মিট রমনির রাজ্য, তিনি এর আগে গত মাসে দলের হয়ে ডোনাল্ডকে ভোট না দেয়ার জন্য আহবান করেছেন। বলেছেন, ডোনাল্ড একজন ভুয়া এবং প্রতারক, ইত্যাদি। মিট রমনি নিজেও একজন মরম্যান। দলের পক্ষ থেকে অর্থাৎ অর্থ-প্রদায়কদের খরচে বানানো ওই বিজ্ঞাপন