অ্যামোনিয়া

ট্যাংক বিস্ফোরণে ছড়িয়ে পরা অ্যামোনিয়া গ্যাসে অসুস্থদের অবস্থা এখন ভালো, তারা সুস্থ হয়ে উঠছে। রোগী আসার পরিমাণও কমে আসছে। স্থানীয় ঘরবাড়িগুলোর দরজা-জানালা খোলা রাখার পরামর্শ দিয়েছেন সিভিল সার্জন। আক্রান্তদের বেশি করে পানি এবং শিশুদের বেশি করে দুধ খাওয়াতেও বলেন তিনি।সোমবার রাত ১০ টায় চট্টগ্রাম ডিএপি সার কারখানার ড্যাব প্ল্যান্টের ৫ হাজার টন ধারণ ক্ষমতার অ্যামোনিয়া ট্যাংকে বিস্ফোরণে অ্যামোনিয়া গ্যাস ছড়িয়ে পড়ে আশেপাশের এলাকায়।  এই গ্যাস দক্ষিণের বাতাসে উত্তর দিকে কাফকো, কর্ণফুলী নদী, পতেঙ্গা নেভাল, ১৫নং, বিমান বন্দর, বিজয়নগর, স্টীল মিল বাজার, কাটগড়, আগ্রাবাদ সহ কয়েক কিলোমিটার এলাকায় ছড়িয়ে পড়ে।চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের প্রিন্সিপাল সেলিম জাহাঙ্গীর বলেন, রোগীদের অবস্থা ভালো আছে এব

By চ্যানেল আই অনলাইন on মঙ্গলবার, ২৩ অগাস্ট ২০১৬ ১৫:৩৩