অভিবাসী সমস্যা

মালয়েশিয়ার বন্দীশিবিরে আটক রয়েছে শত শত অভিবাসন প্রত্যাশী বাংলাদেশী এবং মিয়ানমারের নাগরিক। সম্প্রতি অ্যামনেস্টি ইন্টারনেশনাল গবেষণা আকারে এ তথ্য প্রকাশ করেছে।মানবপাচারের শিকার এদের অধিকাংশই এক বছর আগে মালোয়েশিয়ায় আটক হন। তাদেরকে সাগর থেকে তুলে নিয়ে এসে বন্দী করে রাখা হয়েছে বলে গবেষণাপত্রে জানানো হয়েছে।বাংলাদেশীদের মধ্যে অনেকেই আবার মিয়ানমার থেকে আসা রোহিঙ্গা। এ পর্যন্ত আটক থাকা ১১০০ লোকের মধ্যে ৪০০ জনই রোহিঙ্গা বলে নিশ্চিত করেছে মানবাধিকার সংগঠনটি। তবে এদের মধ্যে এখনও অনেক বাংলাদেশী রয়েছে, যারা মানবেতর জীবন যাপন করছে।মালয়েশিয়ায় নিয়ে যাওয়া ১১০০ মানুষের মধ্যে ৫০ রোহিঙ্গাকে আন্তর্জাতিকভাবে রিসেটেল হওয়ার সুযোগ দেয়া হয়। ৬৭০ বাংলাদেশীকে দেশে ফেরত পাঠানো হয়। বাকি প্রায় ৪০০ জনকে

By চ্যানেল আই অনলাইন on শনিবার, ২৮ মে ২০১৬ ১০:৩১

আবারো ভূমধ্যসাগরে অভিবাসীবাহী নৌকা ডুবিতে কমপক্ষে পাঁচ শতাধিক মানুষের প্রাণহানির আশঙ্কা করা হচ্ছে।সোমবার লিবিয়ার তব্রুক থেকে ইতালি যাওয়ার পথে নৌকা ডুবে যায়। ইতালির প্রেসিডেন্ট সার্জিও মাত্তারেলা নৌকাডুবির বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তবে হতাহতের তথ্য নিশ্চিত করেননি তিনি।ঘটনার পর ইতালির উপকূল থেকে জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে কমপক্ষে ১শ অভিবাসীকে। এছাড়া গ্রিসের উপকূল থেকে ৬ জনের মরদেহ উদ্ধার করেছে গ্রিক কোস্টগার্ডের সদস্যরা। উদ্ধার করা অভিবাসীরা জানিয়েছে ডুবে যাওয়া নৌকার অধিকাংশ যাত্রী ছিল পূর্ব আফ্রিকার দেশ ইথিওপিয়া, সুদান, সোমালিয়া ও মিশরের।

By চ্যানেল আই অনলাইন on মঙ্গলবার, ১৯ এপ্রিল ২০১৬ ০৯:০৯

নিকারাগুয়ায় মিললো পাচার হয়ে যাওয়া ১৫ জন বাংলাদেশীর খোঁজ। পাচারকারীরা তাদের মাঝ রাস্তায় ফেলে রেখে পালায়। দেশটির পুলিশ এ তথ্য নিশ্চিত করেছে। নিকারাগুয়ার পুলিশ কমিশনার লিওনিডাসরোক বলেন, এসব অভিবাসীদের কোস্টারিকা থেকে হন্ডুরাসে নিয়ে যাওয়া হচ্ছিলো। পথেই নিকারাগুয়াতে তাদের ফেলে রেখে চলে যায় পাচারকারীরা। তারা মাঙ্গুয়ার ১২ মাইল দক্ষিণে খুবই বিচলিতভাবে ঘোরাফেরা করছিলো। পাচারকারীরা ওই ১৫ জনের সবকিছু কেড়ে নিয়েছে বলে জানায় পাচারের শিকার হওয়া ব্যক্তিরা। সবকিছু হারিয়ে তিনদিন হেঁটে কোস্টারিকান সীমান্তে পৌঁছায় এই ১৫ জন। আপাতত তাদের ইমিগ্রেশন হোল্ডিং সেন্টারে রাখা হয়েছে। রাজনৈতিক অস্থিরতার কারণেই দেশ ছেড়েছে বলে দাবী তাদের।

মিয়ানমারের জলসীমা থেকে উদ্ধার হওয়া অভিবাসন প্রত্যাশীদের মধ্যে ষষ্ঠ দফায় ১০৩ বাংলাদেশীকে সোমবার দেশে ফেরত এনেছে ২১ জনের একটি প্রতিনিধি দল। বিজিবি কক্সবাজার ১৭ ব্যাটালিয়নের ভারপ্রাপ্ত অধিনায়ক মেজর ইমরান উল্লাহ সরকারের নেতৃত্বে বিজিবি, জেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসন ও ডাক্তারের সমন্বয়ে গঠিত বাংলাদেশের ২১ জনের এই প্রতিনিধি দল বান্দরবান জেলার নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার ঘুমধুম সীমান্ত দিয়ে মিয়ানমারে পৌঁছান। বিজিবি কক্সবাজার সেক্টরের কমান্ডার কর্ণেল এম. আনিসুর রহমান জানান, সীমান্তের ঘুমধুম জিরো পয়েন্টের বিপরীতে মিয়ানমারের ঢেঁকিবনিয়ায় বাংলাদেশ প্রতিনিধি দলের সঙ্গে মিয়ানমার ইমিগ্রেশন বিভাগের মধ্যে পতাকা বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠক শেষে শনাক্ত হওয়া ১০৩ বাংলাদেশীকে ফেরত আনা হয়।এর আগে ৭৩

পূর্ব ইউরোপের কয়েকটি দেশের বিরোধিতা সত্ত্বেও ১ লাখ ২০ হাজার শরণার্থী নেওয়ার প্রস্তাব অনুমোদন পেলো ইইউ স্বরাষ্ট্র মন্ত্রীদের বৈঠকে। রোমানিয়া, চেক রিপাবলিক, স্লোভাকিয়া ও হাঙ্গেরি বিপক্ষে ভোট দিলেও সংখ্যাগরিষ্ঠের ভোটে প্রস্তাবটি পাশ হয়। বাধ্যতামূলক কোটায় শরণার্থীদের গ্রহণ করতে ব্রাসেলসে ইইউ দেশগুলোর স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীদের বৈঠক বসে। শুরু থেকেই কোটা প্রথার বিরোধিতায় রোমানিয়া, চেক রিপাবলিক, স্লোভাকিয়া ও হাঙ্গেরি। শেষ পর্যন্ত ইইউ এর বেঁধে দেওয়া কোটা অনুযায়ী ১ লাখ ২০ হাজার শরণার্থীকে গ্রহণ করার প্রস্তাবটি অনুমোদন পায়। এরফলে ইতালি, গ্রিস এবং হাঙ্গেরিতে থাকা শরণার্থীদের ভাগ করে নেবে ইউরোপিয় ইউনিয়নের সদস্য দেশগুলো। বিষয়টি চূড়ান্ত হবে বুধবার ইইউ’র প্রেসিডেন্ট এবং প্রধান

ক্রোয়েশিয়াতে বন্যার মতো ধেয়ে আসা অভিবাসীর স্রোত যে কোনো অর্থেই থামানো হবে। ক্রোয়েশিয়াকে কখনোই অভিবাসীর রাষ্ট্র হতে দেবেন না বলে জানিয়েছেন সেখানকার প্রধানমন্ত্রী জোরান মিলানোভিক। অবশ্য দেশটির সীমান্ত এলাকা পুরোপুরি বন্ধ করে দেওয়া হবে না। কিন্তু তাদের সীমা ছাড়িয়ে গেছে।ক্রোয়েশিয়া পেরিয়ে নর্দান ইউরোপে যাওয়ার উদ্দেশ্যে অভিবাসীরা ক্রোয়েশিয়ায় ঢুকে পড়লে তারা তাদের প্রায় সাত থেকে আটটি রাস্তা বন্ধ করে দেয়। তারপরই একথা বললেন সেখানকার প্রধানমন্ত্রী। এরই মধ্যে অনেক অনেক দুশ্চিন্তা ও ক্লান্তি নিয়ে প্রায় ১৪ হাজার অভিবাসী ক্রোয়েশিয়ায় ঢুকে পড়েছে।

শরণার্থী প্রবেশ ঠেকাতে সীমান্ত বন্ধ করে দেয়ার পর সার্বিয়ার সঙ্গে সীমান্তের দক্ষিণাঞ্চলীয় দুটি কাউন্টিতে জরুরি অবস্থা ঘোষণা করেছে হাঙ্গেরি।১শ ৭৫ কিলোমিটার সীমান্তে কাঁটা তারের বেড়া তৈরি করে কড়া পুলিশ পাহারা বসিয়েছে দেশটি। বেড়া ডিঙ্গিয়ে সীমান্তে ঢোকার সময় ৬০ শরণার্থীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। সোমবার মধ্যরাত থেকে সীমান্তে কড়াকড়ি আরোপ করা হয়। যদিও এর আগের দিন ৯ হাজারেরও বেশী শরণার্থী হাঙ্গেরি ঢোকে। সীমান্ত বন্ধ করায় কয়েকশ’ শরণার্থী আটকা পড়েছে। সীমান্ত খুলে দেওয়ার দাবিতে বিক্ষোভ করেছে তারা। বিষয়টিকে উদ্বেগজনক বলেছে জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক সংস্থা ইউএনএইচসিআর।

শরণার্থী বিরোধী কঠোর আইন চালু করেছে হাঙ্গেরি। এখন থেকে এই আইনে পুলিশ চাইলে অবৈধভাবে প্রবেশের দায়ে যে কাউকে শাস্তি দিতে পারবে।সোমবার মধ্যরাত থেকে আইনটি কার্যকর হয়েছে এবং মঙ্গলবার সকালেই অবৈধ

রাজনৈতিক কারণে উদ্বাস্তুদের আশ্রয় দেওয়া হলেও অবৈধ অভিবাসীদের কোনোভাবেই জার্মানিতে জায়গা হবে না বলে সাফ জানিয়েছেন ঢাকায় জার্মান রাষ্ট্রদূত ড. থমাস প্রিনজ।তার এ বক্তব্যকে জার্মানিতে অভিবাসী হওয়ার চিন্তা না করতে বাংলাদেশীদেরকে পরোক্ষ সতর্কবাণী হিসেবে বিবেচনা করা হচ্ছে।ঢাকায় জার্মান দূতাবাসের এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, চলতি বছর ইউরোপ সবচেয়ে বড় উদ্বাস্তু সমস্যায় ভুগছে। মধ্যপ্রাচ্য ও আফ্রিকার যুদ্ধাক্রান্ত দেশের মানুষ রাজনৈতিক আশ্রয় চাইছেন। এ বছর জার্মানি একা আট লাখ শরণার্থীকে রাজনৈতিক আশ্রয় দেবে যা স্থানীয় সম্প্রদায়ের জন্য একটা বড় চ্যালেঞ্জ।সরকারের বাজেট ও তাদের কর্মীদের উপরও বেশ প্রভাব ফেলবে এই বিশাল মানুষের বহর। ‘শরণার্থীদের দ্রুত সাহায্য দরকার। তাই তাদের চিকিৎসা সে

সিরিয়ার তিন বছরের বাচ্চা ‘আয়লান’ এর তুরস্কর সমুদ্র সৈকতে পাওয়া যে ছবি বিশ্বজুড়ে আলোড়ন তুলেছে, তা এখন ইউরোপের সবচেয়ে বড় অভিবাসী সমস্যারই প্রতিচ্ছবি হিসেবে দেখা দিয়েছে। শুধু এই ছবিই নয়! এ বছর আরো অনেক ছবিই ঝড় তুলেছে বিশ্বজুড়ে। অভিবাসীদের সমুদ্র যাত্রা নিয়ে বিশ্বে আলোড়ন তোলা ১০ ছবি স্থানীয় এক সাংবাদিকের তোলা অভিবাসীদের দুঃখগাঁথাদুই বছর আগে আফ্রিকান অভিবাসীদের নিয়ে তোলা।আরো একটি অভিবাসী সমস্যা নিয়ে আলোচিত ছবি জিবুতির অভিবাসীরাআরেকটি ছবি এ বছর আয়লানের পর সবচেয়ে আলোচিত হয়েছে যে ছবিটি এ বছরের এপ্রিলে সিরিয়ান অভিবাসীদের গ্রিস আর্মির উদ্ধার তৎপরতাএক সিরিয়ান অভিবাসী পরিবারকাঁটাতারের কষ্টএক সপ্তাহ আগে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম থেকে পাওয়া আলোচিত ছবিছবি সূত্রঃ বিবিসি