অভিজিৎ হত্যাকাণ্ড

মুক্তমনা লেখক ও ব্লগার অভিজিৎ রায় হত্যা মামলার আসামি ও নিষিদ্ধ জঙ্গি সংগঠন আনসার আল ইসলামের (আনসারুল্লাহ বাংলা টিম) অপারেশন শাখার সদস্য আরাফাত রহমানের পাঁচ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। শনিবার আরাফাতকে ঢাকা মুখ্য মহানগর হাকিম আদালতে হাজির করে পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিট। এ সময় সুষ্ঠু তদন্তের জন্য ১০ দিনের রিমান্ড আবেদন করেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা। শুনানি শেষে ঢাকা মহানগর হাকিম একেএম মঈদ উদ্দিন সিদ্দিকী পাঁচ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। এর আগে শুক্রবার রাতে ঢাকার সাভার থানাধীন আমিন বাজারের বরদেশী এলাকা থেকে ঢাকা জেলা ডিবি পুলিশের (উত্তর) সহায়তায় তাকে গ্রেফতার করে ডিএমপি’র কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিট। গ্রেফতারকৃতের নাম মো. আরাফাত রহমান। তার সাংগঠনিক নাম সিয়াম

By চ্যানেল আই অনলাইন on শনিবার, ২৫ নভেম্বর ২০১৭ ১৮:৪৯

মুক্তমনা লেখক ও ব্লগার অভিজিৎ রায় হত্যাকাণ্ডের সময় জঙ্গি মোজাম্মেল হুসাইন ওরফে সায়মন তার অন্য সহযোগীসহ অপারেশন শাখার দায়িত্বে থাকা জঙ্গিদের চারপাশে গার্ড বা পাহারাদার হিসেবে অবস্থান নিয়েছিল। গতকাল রোববার ঢাকা মহানগর হাকিম আহসান হাবীবের আদালতে জবানবন্দিতে তিনি এসব তথ্য দেন। জবানবন্দি রেকর্ড শেষে তাকে কেরানীগঞ্জে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে পাঠানো হয়। আগের দিন শনিবার রাতে তুরাগের বাউনিয়া থেকে জঙ্গি মোজাম্মেল হুসাইন ওরফে সায়মনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম (সিটিটিসি)। জবানবন্দিতে সায়মন বলে, অভিজিৎ হত্যাকাণ্ডে তিনি সরাসরি জড়িত ছিলেন। তারা বইমেলার স্থান রেকি শেষে হত্যার উদ্দেশ্যে টার্গেট করে অভিজিৎ রায়কে। পরে ঘটনার দিন টিএসসিতে সংগঠনের অপারেশন শ

By চ্যানেল আই অনলাইন on সোমবার, ২০ নভেম্বর ২০১৭ ১৮:১২

নতুন মুক্তমনা ব্লগের প্রতিষ্ঠাতা ও বিজ্ঞানমনস্ক লেখক অভিজিৎ রায়ের সন্দেহভাজন খুনিদের ভিডিও প্রকাশ করে তাদেরকে গ্রেফতারে নগরবাসীর সহায়তা চেয়েছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ-ডিএমপি। রোববার ডিএমপির ভেরিফাইড ফেসবুক পেজে অভিজিৎ হত্যাকাণ্ডে জড়িত সন্দেহভাজনদের পাঁচটি ভিডিও প্রকাশ করেছে। ডিএমপি জানিয়েছে, ভিডিওতে সন্দেহভাজনদের দেখানো হয়েছে। তাদের সম্পর্কে কোনো তথ্য বা পরিচয় জানা থাকলে নগরবাসীকে ডিএমপির অফিসিয়াল ফেসবুক পেজে মেসেজ ইনবক্সে অথবা Hello CT আপ্যসে জানানোর জন্য জন্য অনুরোধ জানিয়েছে।২০১৫ সালের ২৬ ফেব্রুয়ারি রাতে অমর একুশে গ্রন্থমেলা থেকে ফেরার পথে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় অভিজিৎ রায়কে কুপিয়ে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা। অভিজিতের ওপর দুর্বৃত্তদের হামলার সময় তার সঙ্গে ছিলেন স

By চ্যানেল আই অনলাইন on রবিবার , ২১ অগাস্ট ২০১৬ ১৭:১৩

লেখক ডক্টর অভিজিৎ হত্যাকাণ্ডের কয়েকটি আলামতের ভেতর কিছু ডিএনএ নমুনা সনাক্ত করেছে এফবিআই ল্যাব। হত্যাকাণ্ডের পেছনে আনসারউল্লাহ বাংলা টিমের সম্পৃক্ততার কথা জানালেও গোয়েন্দা কর্মকর্তারা বলছেন, মুফতি রাহমানীকে জিজ্ঞাসাবাদ করবেন না তারা। মামলাটির তদন্ত করছে গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)।খুন হওয়ার পর ঢাকায় এসে ঘটনাস্থল পরিদর্শনের পর নিজেদের ল্যাবে নিয়ে আলামত পরীক্ষার আগ্রহ প্রকাশ করে মার্কিন তদন্ত সংস্থা এফবিআই। ডিএমপির এডিশনাল কমিশনার মোঃ মনিরুল ইসলাম বলেন, প্রায় ১১টি আলামত আমরা ল্যাবে পাঠিয়েছিলাম। সেই রির্পোটগুলো আমরা পাইনি, রির্পোটগুলো পেলে আমাদের গ্রেফতারকৃত যে আসামীরা কারাবন্দি রয়েছে তাদের ডিএনএ প্রেফাইল মেলালে আমরা এদের সম্পৃক্ততা নিশ্চিত হতে পারবো। শুরু থেকেই গোয়েন্দাদের স

লেখক ডক্টর অভিজিৎ হত্যাকাণ্ডের কয়েকটি আলামতের ভেতর কিছু ডিএনএ নমুনা সনাক্ত করেছে এফবিআই ল্যাব। হত্যাকাণ্ডের পেছনে আনসারউল্লাহ বাংলা টিমের সম্পৃক্ততার কথা জানালেও গোয়েন্দা কর্মকর্তারা বলছেন, মুফতি রাহমানীকে জিজ্ঞাসাবাদ করবেন না তারা। মামলাটির তদন্ত করছে গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)।খুন হওয়ার পর ঢাকায় এসে ঘটনাস্থল পরিদর্শনের পর নিজেদের ল্যাবে নিয়ে আলামত পরীক্ষার আগ্রহ প্রকাশ করে মার্কিন তদন্ত সংস্থা এফবিআই। ডিএমপির এডিশনাল কমিশনার মোঃ মনিরুল ইসলাম বলেন, প্রায় ১১টি আলামত আমরা ল্যাবে পাঠিয়েছিলাম। সেই রির্পোটগুলো আমরা পাইনি, রির্পোটগুলো পেলে আমাদের গ্রেফতারকৃত যে আসামীরা কারাবন্দি রয়েছে তাদের ডিএনএ প্রেফাইল মেলালে আমরা এদের সম্পৃক্ততা নিশ্চিত হতে পারবো। শুরু থেকেই গোয়েন্দাদের স

লেখক ডক্টর অভিজিৎ হত্যাকাণ্ডের কয়েকটি আলামতের ভেতর কিছু ডিএনএ নমুনা সনাক্ত করেছে এফবিআই ল্যাব। হত্যাকাণ্ডের পেছনে আনসারউল্লাহ বাংলা টিমের সম্পৃক্ততার কথা জানালেও গোয়েন্দা কর্মকর্তারা বলছেন, মুফতি রাহমানীকে জিজ্ঞাসাবাদ করবেন না তারা। মামলাটির তদন্ত করছে গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)।খুন হওয়ার পর ঢাকায় এসে ঘটনাস্থল পরিদর্শনের পর নিজেদের ল্যাবে নিয়ে আলামত পরীক্ষার আগ্রহ প্রকাশ করে মার্কিন তদন্ত সংস্থা এফবিআই। ডিএমপির এডিশনাল কমিশনার মোঃ মনিরুল ইসলাম বলেন, প্রায় ১১টি আলামত আমরা ল্যাবে পাঠিয়েছিলাম। সেই রির্পোটগুলো আমরা পাইনি, রির্পোটগুলো পেলে আমাদের গ্রেফতারকৃত যে আসামীরা কারাবন্দি রয়েছে তাদের ডিএনএ প্রেফাইল মেলালে আমরা এদের সম্পৃক্ততা নিশ্চিত হতে পারবো। শুরু থেকেই গোয়েন্দাদের স