অনার কিলিং

‘অনার কিলিং’য়ের নামে কন্যা সন্তানকে পুড়িয়ে মারা মাকে ফাঁসি দিয়েছে পাকিস্তানের একটি আদালত। ১৮ বছর বয়সী মেয়ে জিনাত রফিকের গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে দিয়েছিলেন তারই মা পারভিন বিবি। লাহোরের নিজ ঘরে খাটের সঙ্গে বেঁধে এই নির্মম হত্যাকাণ্ড চালিয়েছিলেন তিনি। এই কাজে সহায়তার অভিযোগে নিহতের মা আনিস রফিককে যাবজ্জ্বীবন কারাদণ্ড দেয়া হয়। সোমবার লাহোরের একটি আদালত এই রায় দেন।পরিবারের অমতে মোটরসাইকেল মেকানিক হাসান খানকে গত বছরের জুন মাসে বিয়ে করেছিলেন জিনাত। বিয়ের এক সপ্তাহ পরেই ৮ জুন মর্মান্তিক মৃত্যু বরণ করে নিতে হয় তাকে। এই হত্যার পর রাস্তায় নেমে আসেন পারভিন। আর প্রতিবেশীদের উদ্দেশ্যে বুক চাপরিয়ে দম্ভ নিয়ে বলতে থাকেন ‘পরিবারের সুনাম নষ্ট করায় আমি তাকে হত্যা করেছি’।জিনাত-হাসান

By চ্যানেল আই অনলাইন on মঙ্গলবার, ১৭ জানুয়ারী ২০১৭ ২১:০৪

অনার কিলিংয়ের জন্য এতদিন থেকে চলে আসা খুনির মুক্তির পথ এবার বন্ধ করে দিলো পাকিস্তান। নতুন আইন অনুযায়ী অপরাধীকে আজীবন কারাদণ্ড ভোগ করতে হবে। এর আগে আক্রান্তের পরিবার চাইলে খুনিকে কারাভোগের সাজা থেকে রক্ষা করতে পারতো। এখন ক্ষমা কেবল এসব অপরাধীকে মৃত্যুদণ্ড থেকে রক্ষা করতে পারবে।পাকিস্তানের যেসব নারী প্রেম ও বিয়ের ক্ষেত্রে দেশটির রক্ষণশীল নিয়ম নীতি ভাঙে তাদের উপর পরিবারের আক্রমণাত্বক আচরণ থেকে সরিয়ে আনার জন্য প্রথম পদক্ষেপ এটি।পাকিস্তানের নিজস্ব মানবাধিকার কমিশনের জরিপ অনুযায়ী গত বছরে অন্তত ১১০০ নারী আত্মীয়-স্বজনের দ্বারা এই ধরনের হত্যাকাণ্ডের শিকার হয়েছেন। তাছাড়াও আরো অনেক এমন ঘটনা রয়েছে সেগুলো সামনেই আসেনি। এর আগে থাকা অনার কিলিংয়ের পর পরিবারের কোনো একটি সদস্য খুন

By চ্যানেল আই অনলাইন on শুক্রবার, ০৭ অক্টোবর ২০১৬ ১৪:৩৮