অং সান সু চি

মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে চলমান সংকট নিরসন করে শান্তি প্রতিষ্ঠায় তিনটি বিষয়ের ওপর গুরুত্ব দিবেন বলে জানিয়েছেন নোবেল জয়ী নেত্রী অংসান সু চি। বৃহস্পতিবার টেলিভিশনে দেওয়া এক ভাষণে তিনি রাখাইনে শান্তি প্রতিষ্ঠা ও দেশ ছেড়ে পালানো রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নেওয়ার বিষয়ে তাদের উদ্যোগের কথা জানান।রোহিঙ্গা ইস্যুতে চাপে থাকা সু চি টেলিভিশন ভাষণে বলেন: যারা বাংলাদেশে গেছেন তাদের ফিরিয়ে এনে মানবিক সহায়তা দেওয়া, পুনর্বাসন করা এবং রাখাইনের উন্নয়ন ও স্থিতিশীল শান্তি প্রতিষ্ঠা করা হবে।তিনি বলেন: এই এলাকার উন্নয়ন এবং বহু বছর ধরে চলে আসা সমস্যা দূর করে শান্তি প্রতিষ্ঠায় আমরা স্বল্প ও দীর্ঘমেয়াদী পরিকল্পনা হাতে নিয়েছি। আমার নেতৃত্বে মানবিক সহায়তা, পুনর্বাসন এবং উন্নয়ন করে রাখাইনে শান্তি এবং উন্

By চ্যানেল আই অনলাইন on শুক্রবার, ১৩ অক্টোবর ২০১৭ ১৬:১৩

মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যের রোহিঙ্গা নিপীড়ন নিয়ে সমালোচনার মধ্যে থাকা দেশটির নেত্রী অং সান সু চি কে দেয়া ‘ফ্রিডম অব দি সিটি অব অক্সফোর্ড অ্যাওয়ার্ড’ প্রত্যাহার করেছে শহর কর্তৃপক্ষ। এখন তার জন্য এই সম্মাননা আর যথোপযুক্ত নয় এমন উদ্ধৃতি দিয়ে সিটি কাউন্সিলে এক প্রস্তাব পাস করা হয়েছে বলে আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমে সংবাদ এসেছে।মিয়ানমারের গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠায় দীর্ঘ সংগ্রামের স্বীকৃতি হিসেবে ১৯৯৭ সালে তাকে এই সম্মাননা জানিয়েছিল যুক্তরাজ্যের অক্সফোর্ড সিটি কাউন্সিল।মিয়ানমারের রাখাইনে সেনাবাহিনীর দমন অভিযানের মুখে লাখ লাখ রোহিঙ্গার পালিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়ার প্রেক্ষাপটে বিশ্বজুড়ে সমালোচনার মুখে পড়েছেন দেশটির স্টেট কাউন্সিলর পদ নিয়ে কার্যত সরকার প্রধান অং সান সু চি।রোহিঙ্গা

By চ্যানেল আই অনলাইন on মঙ্গলবার, ০৩ অক্টোবর ২০১৭ ২২:০২

অতীতেও রোহিঙ্গা ফিরিয়ে নেয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে তা বাস্তবায়ন করেনি মিয়ানমার। তাই বাংলাদেশ সফরে এসে অং সান সু চি’র দপ্তর মন্ত্রী টিন্ট সোয়ের আশ্বাসে পুরোপুরি আস্থা রাখা যায় না।তবে আন্তর্জাতিক চাপের মুখে মিয়ানমারের মন্ত্রীর এই সফর ইতিবাচকভাবে দেখা যেতে পারে।বাংলাদেশ-মিয়ানমার মন্ত্রী পর্যায়ের বৈঠকে রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নিতে সম্মতি জানিয়েছে দেশটি। এ প্রসঙ্গে মন্তব্য করতে গিয়ে চ্যানেল আই অনলাইনকে এসব কথা বলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক এহসানুল হক।বহুদিন ধরে চলে আসা রোহিঙ্গা সংকটে দেশটির অবস্থান ইতিবাচক ছিলো না জানিয়ে তিনি বলেন, “রোহিঙ্গা ইস্যুতে অতীতের প্রতিশ্রুতিগুলো মিয়ানমার আদৌ কতটুকু বাস্তবায়ন করেছে তা নিয়ে প্রশ্ন আছে। এখন ত

By নাসিমুল শুভ on সোমবার, ০২ অক্টোবর ২০১৭ ২০:২৬

চলমান রোহিঙ্গা সংকট নিয়ে সমালোচনার মুখে থাকা মিয়ানমারের নেত্রী অং সান সু চি’র একটি প্রতিকৃতি সরিয়ে ফেলেছে অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। অক্সফোর্ডের সেন্ট হিউজ কলেজ থেকে সরানো হয়েছে সু চি’র প্রতিকৃতিটি।এই কলেজ থেকেই ১৯৬৭ সালে সু চি স্নাতক সম্পন্ন করেন এবং ২০১২ সালে কলেজ কর্তৃপক্ষ তাকে সম্মানসূচক ডিগ্রী প্রদান করে। তবে তাকে দেয়া কলেজের ডিগ্রী কেড়ে নেয়া হবে না বলে জানিয়েছে কর্তৃপক্ষ।বিবিসি জানায়, কলেজের প্রবেশদ্বারে রাখা সু চি’র প্রতিকৃতিটি সরিয়ে সেখানে একটি জাপানি চিত্রকর্ম বসানো হবে। তবে কী কারণে প্রতিকৃতিটি সরানো হয়েছে সে বিষয়ে বিস্তারিত কিছু জানায়নি কর্তৃপক্ষ।কলেজের যোগাযোগ ব্যবস্থাপক বেনজামিন জোনস জানিয়েছেন, সু চি’র প্রতিকৃতিটি একটি ‘নিরাপদ স্থানে’ র

By চ্যানেল আই অনলাইন on শনিবার, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০১৭ ১৪:০৭

রাখাইনে রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর উপর চালানো জাতিগত নিধনের পরিপ্রেক্ষিতে বিশ্বব্যাপী মিয়ানমার সরকারের সমালোচনার জবাব দেয়ার দৃঢ় সংকল্পের ইঙ্গিত দিয়েছেন দেশের ক্ষমতাসীন দলের নেতা এবং রাষ্ট্রীয় উপদেষ্টা অং সান সু চি।জাপানভিত্তিক সংবাদ মাধ্যম নিক্কেই এশিয়ান রিভিউকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে এই ইঙ্গিত দেন তিনি।সু চি বলেন, মিয়ানমার থেকে ৪ লাখ ১০ হাজারের বেশি রোহিঙ্গা বাংলাদেশে পালিয়ে আসার পেছনে যে বিষয়গুলো কাজ করেছে সে সম্পর্কে তিনি আরও খতিয়ে দেখবেন। এছাড়া কিছু সংখ্যক শরণার্থীকে ফিরিয়ে আনার জন্য যেকোন সময় ভেরিফিকেশন প্রক্রিয়া শুরু করতে তার সরকারের প্রস্তুতির পুনরাবৃত্তি করেন তিনি।মিয়ানমারের কূটনৈতিক গোষ্ঠীকে রাখাইন রাজ্যের উত্তরাঞ্চলের সংঘাত আক্রান্ত এলাকাগুলো পরিদর্শনের স

By চ্যানেল আই অনলাইন on শনিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৭ ১৬:২৬

মিয়ানমারের স্টেট কাউন্সিলর অং সান সু চির ভাষণ শুনে দেখলাম অনেকেই মনে করছেন, জাতিসংঘসহ বিভিন্ন দেশের চাপে সু চি তার ভাষণে এখন সুর নরম করে ফেলেছেন। আসলেই কি তাই! তিনি কি এতই কাঁচা রাজনীতিক যে তিনি জানতেন না, এত বড় একটি গণহত্যা করলে বিভিন্ন দেশ থেকে কিছু না কিছু প্রতিবাদ আসবেই! আমার তো মনে হয়, তিনি এর চেয়ে ঢের বেশি প্রতিবাদের জন্য প্রস্তুত থেকেই গণহত্যার অপকর্মটি শুরু করেছেন। কিন্তু তার প্রস্তুতি অনুযায়ী সেই পরিমাণ প্রতিবাদ হয়নি।আর এই যে ভাষণটি তিনি দিয়েছেন, আমার তো মনে হয় অনেক আগেই গণহত্যার পরিকল্পনার পাশাপাশি ভাষণের স্ক্রিপ্ট কিংবা বিষয়বস্তুও তিনি তৈরি করেই রেখেছিলেন। গণহত্যা শেষ হবে আর সুর নরম করে একটি ভাষণ দিয়ে দেবেন। তার নরম সুরের সাথে সাথে বিশ্বের সুরও নরম হয়ে যাবে। এত বড় একটি হত্যাযজ

By হুমায়ুন কবির on বৃহস্পতিবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৭ ১৭:২০

রাখাইন রাজ্য থেকে বিপুল সংখ্যক মানুষ বাংলাদেশে চলে আসার বিষয়ে মিয়ানমার সরকার ‘গভীরভাবে উদ্বিগ্ন’ বলে জানিয়েছেন দেশটির ভাইস প্রেসিডেন্ট হেনরি ভ্যান থিও।রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীকে ‘রোহিঙ্গা’ সম্বোধন না করে জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের অধিবেশনে তিনি বলেন, ‘তাৎপর্যপূর্ণ’ এমন একটি সমস্যার ব্যাপারে মিয়ানমার তদন্ত করছে। তবে সরকারি বিবৃতির পুনরাবৃত্তি করে রাখাইন রাজ্যে সৃষ্ট সংকটের কারণ এখনও স্পষ্ট নয় এবং দেশটির মুসলিম জনগোষ্ঠীর বেশিরভাগই দেশে রয়ে গেছে বলে দাবি করেন তিনি।বুধবারের অধিবেশনে দেয়া ভাষণে তিনি বলেন, ‘আমি আনন্দের সঙ্গে আপনাদের জানাচ্ছি যে, পরিস্থিতি এখন আগের চেয়ে উন্নত।’ভ্যান থিও বলেন, শুধু মুসলিম না, অন্যান্য সংখ্যালঘুরাও রাখাইন থেকে পালিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নিচ্ছে। ন

By চ্যানেল আই অনলাইন on বৃহস্পতিবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৭ ১৩:০৩

রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে স্টেট কাউন্সিলর অং সান সু চিকে আলোচনার আহ্বান জানিয়েছেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী রেক্স টিলারসন।বুধবার মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পাঠানো এক বিবৃতিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।বিবৃতিতে বলা হয়, মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে চলমান নির্যাতনের কারণে শরণার্থী হওয়া রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নিতে মিয়ানমার সরকারের অঙ্গীকারকে স্বাগত জানিয়েছেন রেক্স টিলারসন।ক্ষতিগ্রস্ত এলাকায় ঘরবাড়ি হারা রোহিঙ্গাদের মানবিক সহযোগিতার জন্যও মিয়ানমার সরকার ও সেনাবাহিনীকে আহ্বান জানিয়েছেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

By চ্যানেল আই অনলাইন on বুধবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৭ ১৭:১৬

রোহিঙ্গাদের ওপর চালানো নির্যাতনের ঘটনায় মিয়ানমারের ক্ষমতাসীন দলের শীর্ষ  নেতা অং সান সু চির বক্তব্যের পরপরই বিষয়টি নিয়ে আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমে স্বনামধন্য কূটনীতিক, মানবাধিকার কর্মী এবং দাতা সংস্থার কর্মকর্তারা তীব্র সমালোচনা করে প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন।গত ২৫ আগস্টে মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে রোহিঙ্গাদের উপর দেশটির সেনাবাহিনীর চালানো গণহত্যা ও নিপীড়নের পর কয়েক লাখ রোহিঙ্গা দেশ ছেড়ে প্রাণ ভয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়।আন্তর্জাতিক মহলে তীব্র সমালোচনার পর ওই ঘটনার কয়েকদিনের মাথায় মঙ্গলবার প্রথমবারের মতো বিষয়টি নিয়ে কথা বলেন নোবেল বিজয়ী অং সান সু চি।তিনি বলেছেন, অর্ধেকের বেশি রোহিঙ্গা গ্রাম সহিংসতায় আক্রান্ত হয়নি। নির্দিষ্ট এলাকাগুলোতে কেন তারা এক অপরের গলা চেপে ধরেনি তা দেখত

By চ্যানেল আই অনলাইন on মঙ্গলবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৭ ২০:১৭

রোহিঙ্গা মুসলিমদের নির্যাতনের বিষয়ে মিয়ানমারের ক্ষমতাসীন দলের নেতা অং সান সু চি ও তার সরকার মিথ্যা বলছে মন্তব্য করে অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল বলেছে, কাদামাটিতে মাথা লুকাতে চাইছে সু চি। রোহিঙ্গাদের ওপর যে নির্যাতন চলছে তা জাতিগত নির্মূল প্রচেষ্টা।সেনাবাহিনীর নিষ্ঠুর নির্যাতনের মুখে যেখানে কমপক্ষে চার লাখ লোক বাংলাদেশে পালিয়ে গেছে, সেখানে এই সংকটে নিজের ভূমিকার কথা উড়িয়ে দিয়েছেন শান্তিতে নোবেল জয়ী এই নেতা।ইন্ডিপেন্ডেন্ট জানায়, বিভিন্ন প্রতিবেদনে উঠে এসেছে সশস্ত্র বাহিনীর সদস্য ও উশৃংখল বৌদ্ধ জনতা পশ্চিম রাখাইন রাজ্যে ব্যাপক ধর্ষণ ও হত্যায় মেতে উঠেছে। জাতিসংঘ একে ‘জাতিগত নির্মূলের পাঠ্যপুস্তক উদাহরণ’ বলে উল্লেখ করেছে।কিন্তু এরপরও টেলিভিশন ভাষণে সু চি তা অস্বীকার করেছেন

By চ্যানেল আই অনলাইন on মঙ্গলবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৭ ১৮:৪৫