সম্পাদকীয়

গুরুতর অভিযোগ এসেছে দেশের প্রথম প্রধানমন্ত্রী তাজউদ্দিন আহমদের ছেলে এবং সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী তানজিম আহমেদ সোহেল তাজের পক্ষ থেকে। যুক্তরাষ্ট্রে ফেরার পথে শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে কেউ একজন তাকে না জানিয়েই তার সুটকেসের তালা ভেঙে তল্লাশি চালায়। নিরাপত্তার স্বার্থে বিমানবন্দরে তল্লাশি চালানো অস্বাভাবিক কিছু নয়। তবে দেশের সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর নাম লেখা থাকলেও তার অনুমতি ছাড়া ব্যাগের তালা ভেঙে এভাবে তল্লাশি করার ঘটনা কোনভাবেই গ্রহণযোগ্য নয়। সোহেল তাজ শাহজালাল বিমানবন্দরে এভাবে হয়রানিমূলক তল্লাশির অভিযোগ করলেও বিমানবন্দরের নিরাপত্তায় থাকা আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ন (এপিবিএন) পুলিশ বলছে, তালা ভাঙার ঘটনাটি কোথায় ঘটেছে, এ ব্যাপারে তারা নিশ্চিত না।

By সম্পাদনা পর্ষদ on সোমবার, ২৩ অক্টোবর ২০১৭ ২২:২৩

ভিসি নির্বাচন কিংবা শিক্ষকের বিরুদ্ধে আরেক শিক্ষকের নামে মামলা করে আলোচনায় থাকা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় আবারও সংবাদমাধ্যমের শিরোনাম। তবে এবারও শিরোনাম মোটেই ইতিবাচক কারণে নয়, বরং দেশের স্বাধীনতা সংগ্রামসহ যেকোন ক্রান্তিকালে অগ্রণী ভূমিকা পালনকারী এই প্রতিষ্ঠানের জন্য লজ্জার। ঢাবির ঘ ইউনিটে ভর্তি পরীক্ষায় প্রশ্নপত্র ফাঁসের মধ্য দিয়ে ঘটনাপ্রবাহের সূচনা হয়। চ্যানেল আই অনলাইনসহ অনেক গণমাধ্যমে প্রকাশিত খবরে জানা যায়, ঘ ইউনিটে ভর্তি পরীক্ষার আগের রাতে অর্থাৎ বৃহস্পতিবার দিবাগত রাতে বিশ্ববিদ্যালয়ের সাংবাদিকদের কাছে প্রশ্ন পৌঁছায়। পরীক্ষার পর প্রশ্ন ফাঁসের বিষয়টি ঢাবি প্রশাসনের নজরে আনা হলেও তারা দুঃখজনকভাবে বিষয়টি এড়িয়ে যেতে চাইছেন! এমনকি এ বিষয়ে সাংবাদিকদেরও দোষারোপ করতে দেখা গেছে। এর

By সম্পাদনা পর্ষদ on রবিবার , ২২ অক্টোবর ২০১৭ ২০:৩০

মিয়ানমারে জাতিগত নিধনের শিকার হয়ে বাংলাদেশে আসা রোহিঙ্গা শিশুরা বাংলাদেশকে তাদের আশ্রয়দাতা মনে করলেও বিশ্বজুড়ে নিজেদের অবহেলার শিকার হওয়ার বিষয়ও বুঝতে পারছে। ইউনিসেফ এবং জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক সংস্থাসহ বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংস্থার কাছে তারা তাদের অবহেলিত হওয়ার কথা জানিয়েছে। মিয়ানমারের তৈরি করা এই সংকটে প্রাণ বাঁচাতে বাংলাদেশে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের ৬০ শতাংশই শিশু। যে বয়সে তাদের হাতে খেলনা এবং বই থাকার কথা, সেই বয়সে এমন বিভীষিকার শিকার হলেও বিশ্ব নেতৃবৃন্দ যেন একেবারেই চুপ! হাতেগোণা যে দু’চারটা আন্তর্জাতিক প্রতিষ্ঠান রোহিঙ্গা শিশুদের নিয়ে কাজ করছে তারাও অর্থ সংকটে ভুগছে। এ বিষয়ে প্রতিষ্ঠানগুলো আর্থিক সহায়তা না পেলেও পরমাণু অস্ত্র এবং যুদ্ধের দামামায় ঠিকই বিশ্বের অনেক দে

By সম্পাদনা পর্ষদ on শনিবার, ২১ অক্টোবর ২০১৭ ২০:৫৩

নির্যাতনের মুখে মিয়ানমার ছেড়ে বাংলাদেশে এসে আশ্রয় নিয়েছে কয়েক লাখ রোহিঙ্গা। তাদের মধ্যে একটি বড় অংশ শিশু। চোখের সামনে পরিবার পরিজন হারানো ও ভয়াবহ অভিজ্ঞতা নিয়ে তারা এখন অবস্থান করছে বাংলাদেশে। ইউনিসেফসহ বিভিন্ন দেশীয় ও আন্তর্জাতিক প্রতিষ্ঠান সেসব শিশুর জন্য নানা ধরণের কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে। শিশুদের ওইসব ভয়াবহ অভিজ্ঞতা ভুলিয়ে দিতে চেষ্টা করছে তারা। কিন্তু সে চেষ্টাকে চ্যালেঞ্জ করে ক্যাম্পগুলোতে থাকা শিশুরা তাদের ওইসব অভিজ্ঞতাকেই বার বার ফুটিয়ে তুলছে তাদের আঁকা বিভিন্ন ছবিতে। ইউনিসেফ’র ফেসবুক পেজে এমনই কিছু ছবি দেখতে পেল সারাবিশ্ব। সামরিক হেলিকপ্টার থেকে বোমা ফেলে তাদের ঘরবাড়ি জ্বালিয়ে দেয়া, নির্যাতিত মানুষ নৌকায় করে পালিয়ে যাচ্ছে, গাড়ি চাপা দিয়ে মানুষ মেরে ফেলা হচ্ছে ইত্যাদি

By সম্পাদনা পর্ষদ on শুক্রবার, ২০ অক্টোবর ২০১৭ ২২:৩২

বাংলাদেশ যখন বিশ্বজুড়ে মানবিকতার রোল মডেল হিসেবে প্রশংসিত, ঠিক তখনই এলো একটি অমানবিকতার খবর। ‘তিন হাসপাতাল ঘুরে খোলা স্থানে সন্তান প্রসব’ সংক্রান্ত পত্রিকায় প্রকাশিত প্রতিবেদনে জানা যায়, পারভীন আক্তার নামের এক অন্তঃসত্ত্বা নারীকে মাত্র ১ হাজার ৫শ’ টাকা দিতে না পারায় আজিমপুর মাতৃসদন ও শিশুস্বাস্থ্য প্রশিক্ষণ প্রতিষ্ঠান, ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল এবং স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল থেকে ফেরত আসতে হয়। এরপর আজিমপুর মাতৃসদনের গাড়ি পার্কিং এর জায়গায় সন্তান প্রসব করেন পারভিন। প্রথমে নড়াচড়া করলেও কিছুক্ষণের মধ্যেই নবজাতক মারা যায়। তিনটি হাসপাতালে যাওয়ার পরেও এক অন্তঃসত্ত্বা মা প্রাপ্য চিকিৎসা পেতে ব্যর্থ হওয়ার ঘটনাকে দুঃখজনক এবং গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রের সভ্যতার উপর ক

By সম্পাদনা পর্ষদ on বৃহস্পতিবার, ১৯ অক্টোবর ২০১৭ ২০:৩৯

পুঁজিবাদী যুগে বৈশ্বিক বাস্তবতার সমরূপ চিত্র বাংলাদেশেও বিদ্যমান। বাংলাদেশের নিম্ন মধ্যম আয়ের দেশে উত্তরণ, দারিদ্র্যের হার হ্রাস, মানুষের জীবনযাপনের অবস্থানের পরিবর্তন হলেও ধনী ও দরিদ্রের মধ্যে বৈষম্য বাড়ছেই। বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর রিপোর্ট অনুযায়ী, বাংলাদেশে ধনীরা আরও ধনী হচ্ছে এবং দরিদ্ররা দরিদ্র হচ্ছে। এমনকি মোট আয়ের ৩৮ শতাংশ ধনীদের হাতে। ৩৮ শতাংশ আয় ধরে রাখা এই ধনীর সংখ্যা মাত্র ১০ শতাংশ। আর মোট আয়ের মাত্র ১ শতাংশ ভোগ করেন সবচেয়ে গরীব ১০ শতাংশ মানুষ। এর পেছনে দুর্নীতি, রাজনৈতিক দুর্বৃত্তায়ন, স্বজনপ্রীতি, নিয়মনীতির অভাবসহ অনেক কারণ রয়েছে বলে বিশেষজ্ঞরা চ্যানেল আই অনলাইনকে বলেছেন।অবশ্য গত ছয় বছরে সার্বিক দারিদ্র্যের হার সাড়ে ৩১ শতাংশ থেকে কমে ২৪ দশমিক ৩ শতাংশ হয়েছে।

By সম্পাদনা পর্ষদ on বুধবার, ১৮ অক্টোবর ২০১৭ ২২:৪৯

ঢাকার মাটিতে কৃত্রিম আলোয় প্রথম হকি ম্যাচ। হকি মাঠে বিরল দৃশ্য, গ্যালারি ভর্তি দর্শক। বাংলাদেশ হকি দলকে উজ্জীবিত করতে যা যা প্রয়োজন সবই করলেন ক্রীড়াপ্রেমীরা। কিন্তু ম্যাচ শেষে ফিরতে হল মলিন মুখে। পাকিস্তানের কাছে ৭-০ গোলে বিধ্বস্ত, পরের ম্যাচে ভারতের বিপক্ষেও একই ব্যবধান। গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচে জাপানের বিপক্ষে ৩-১এ হার। ৩২ বছর পর দেশের মাটিতে বসা হকি এশিয়া কাপের দশম আসরে বাংলাদেশের চালচিত্র এমন মনখারাপ করাই। গোল আর ফলের খেলার এমন চিত্র বলবে জিমিদের দল আশাজাগানিয়া লড়াই উপহার দিতে ব্যর্থ একেবারেই। কখনও অবশ্য দারুণ শুরুর পরও শেষঅবধি স্নায়ুচাপ ধরে রাখতে পারেনি। প্রস্তুতির ঘাটতি তাতে চোখে পড়েছে আতশ কাচ ছাড়াই। অথচ এই বাংলাদেশই টুর্নামেন্টের কয়েকদিন আগে জাপানকে হারিয়ে দিয়েছিল

By সম্পাদনা পর্ষদ on মঙ্গলবার, ১৭ অক্টোবর ২০১৭ ১৮:২৭

বর্তমান সময়ের আলোচিত ইন্টারনেটভিত্তিক ব্লু হোয়েলসহ বিভিন্ন মরণখেলার গেটওয়ে লিংক ছয় মাসের জন্য বন্ধের নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। একই সঙ্গে দেশের মুঠোফোন অপারেটরদের রাত্রিকালীন বিশেষ ইন্টারনেট অফারও বন্ধের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। ডিভাইসভিত্তিক অ্যাডিকশনের মানসিক রোগের প্রতীক এসব গেম। ‘ব্লু হোয়েল’ গেমে  খেলোয়াড়দের সামনে চ্যালেঞ্জ হিসেবে বিভিন্ন কাজ করতে দেওয়া হয়, শুরুতে হালকা কিছু কাজ দেওয়া হলেও ধীরে ধীরে ভয়ঙ্কর সব কাজ দেওয়া হয়। সব শেষে চূড়ান্ত কাজ হিসেবে খেলোয়াড়কে আত্মহত্যা করতে বলা হয় বলে জানা গেছে। ২০১৩ সালে রাশিয়ায় ‘এফ৫৭’ নামে যাত্রা শুরু করা গেমটি খেলে বিভিন্ন দেশে কিশোর-কিশোরীদের আত্মহত্যার ঘটনা ঘটে। ‘ব্লু হোয়েল’ গেমে বাংলাদেশেও আত্মহত্যার খবর গণমাধ্যমে আসে, যদিও বিষয়

By সম্পাদনা পর্ষদ on সোমবার, ১৬ অক্টোবর ২০১৭ ২১:২১

তত্ত্বাবধায়ক সরকারের দাবিতে আন্দোলনে ব্যর্থ হয়ে গেলে গত জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশ নেয়নি দেশের অন্যতম প্রধান রাজনৈতিক দল বিএনপি। আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে নির্বাচন কমিশনের সঙ্গে সংলাপে অংশ নিয়েছে বিএনপি নেতৃত্ব। সংলাপের আগেই প্রধান নির্বাচন কমিশনার আত্মবিশ্বাসী ছিলেন বিএনপির বিষয়ে। আজকের সংলাপে বিএনপির সক্রিয় ভূমিকা দেশের নির্বাচনী পরিস্থিতিতে একটি ইতিবাচক দিক। সংলাপ থেকে বের হয়ে নির্বাচন কমিশনের সঙ্গে সংলাপে কিছুটা আশাবাদী হতেই হয় বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেছেন: ২ ঘণ্টা ৩৫ মিনিটের সংলাপ নিছক প্রহসনের সংলাপ হবে না বলে আমরা করছি। কমিশন আমাদের প্রস্তাবগুলো সানন্দে গ্রহণ করেছে এবং তারা আলোচনা করে তাদের সামর্থ্য অনুয

By সম্পাদনা পর্ষদ on রবিবার , ১৫ অক্টোবর ২০১৭ ১৯:২৩

সংবিধানের ষোড়শ সংশোধনী বাতিল করে দেয়া রায়কে কেন্দ্র করে প্রধান বিচারপতির সঙ্গে সরকার এবং সংসদের মধ্যে যে বিরোধ সৃষ্টি হয়েছিল তার ধারাবাহিকতায় পরিস্থিতি এখন নতুন মোড় নিয়েছে। খোদ সুপ্রিম কোর্ট থেকেই জানানো হয়েছে, প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহা বাদে আপিল বিভাগের বাকি পাঁচ বিচারপতিই তার সঙ্গে একই বেঞ্চে বসে বিচারকাজ পরিচালনা করতে অস্বীকৃতি জানিয়েছিলেন। কারণ: স্বয়ং রাষ্ট্রপতি তাদের কাছে প্রধান বিচারপতির দুর্নীতি, অর্থ পাচার এবং নৈতিক স্খলনের যে দালিলিক তথ্যাদি উপস্থাপন করেছেন তার সুরাহা না হওয়া পর্যন্ত তারা প্রধান বিচারপতির সঙ্গে একই বেঞ্চে বসতে পারেন না। বিষয়টি তারা প্রধান বিচারপতিকে জানানোর পর তিনি প্রথমে পদত্যাগ করবেন বললেও পরে রাষ্ট্রপতির কাছে ছুটির আবেদন করেন এব

By সম্পাদনা পর্ষদ on শনিবার, ১৪ অক্টোবর ২০১৭ ২২:০১