শিল্প সাহিত্য

নজরুল সংগীত চর্চা এবং গবেষণার অনন্য অবদানের জন্য বিশিষ্ট শিল্পী ফেরদৌস আরাকে সম্মাননা দিয়েছে জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়। শুদ্ধ নজরুল সংগীত চর্চা ও নজরুল গবেষণা নিয়ে দীর্ঘ দিন ধরে কাজ করছে বিশিষ্ট নজরুল সংগীত শিল্পী ফেরদৌস আরা। দ্রোহ প্রেম ও সাম্যের কবির চিন্তাধারাকে শিশু-কিশোরদের মধ্যে বিস্তৃত করার চেষ্টা অব্যাহত রেখেছেন সংগীত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সুরসপ্তকের মাধ্যমে। নজরুল সাধনায় এই অসামান্য অবদানের জন্য তাকে সম্মাননা দেয়া হয়। কাজের স্বীকৃতি সবসময়ই আনন্দের উল্লেখ করে ফেরদৌস আরা বলেন এ সম্মান দেশ এবং জাতির প্রতি তার দায়বদ্ধতা বাড়িয়ে দিয়েছে। এ সময় নতুন প্রজন্মের কাছে নজরুলের আদর্শ এবং সাম্যের সুর তুলে ধরতে নিজেকে আরো নিয়োজিত করার প্রত্যাশা ব্যক্ত করেন তিন

By সৌমিক আহমেদ on শনিবার, ২৭ মে ২০১৭ ১০:১৪

অনুপম হায়াৎ একজন লেখক, চলচ্চিত্র বিশ্লেষক ও নজরুল গবেষক। জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের ১১৮ তম জম্মদিন উপলক্ষে তিনি  আজ উপস্থিত ছিলেন চ্যানেল আই স্টুডিওতে। সেই সময় চ্যানেল আই অনলাইনকে অনুপম হায়াৎ

By জাকির সবুজ on বৃহস্পতিবার, ২৫ মে ২০১৭ ১৮:২৮

ময়মনসিংহে ব্রহ্ম‏পুত্র নদ পাড়ে প্রাকৃতিক পরিবেশে গড়ে উঠেছে শিল্পাচার্য জয়নুল উদ্যান। তবে উদ্যান সংলগ্ন নদ পাড় ও শহর রক্ষা বাঁধে এরইমধ্যে ভাঙ্গন দেখা দিয়েছে। পাড় সংস্কারে দ্রুত উদ্যোগ নেয়ার দাবি জানিয়েছেন পরিবেশকর্মীরা। একইসঙ্গে উদ্যানের সৌন্দর্য বাড়াতে আরো বেশি দেশি গাছ লাগানোর পরামর্শ তাদের। ব্রহ্ম‏পুত্র নদ পাড়ের এই উদ্যানের মূল আকর্ষণ এর প্রাকৃতিক পরিবেশ। ছায়া সুনিবিড় পরিবেশে বসে নদের সৌন্দর্য উপভোগের জন্য প্রতিদিন মানুষের ভিড় জমে। এটি এখন শহরবাসীর প্রধান বিনোদন কেন্দ্র ও আড্ডাস্থল। জেলা প্রশাসন ও বনবিভাগের সহযোগিতায় শিল্পাচার্য জয়নুল আবেদীন উদ্যান ও পার্কটি গড়ে তুলেছে ময়মনসিংহ পৌরসভা। তবে, উদ্যান সংলগ্ন নদ পাড়ের কিছু এলাকা ও পার্শ্ববর্তী শহর রক্ষা বাঁধে ভাঙ্গনের কারণে উদ্

ছোটবেলায় ম্যাজিকের প্রতি ছিল তীব্র আকর্ষণ। মন্ত্রমুগ্ধ হয়ে দেখতাম, হাওয়া থেকে কীভাবে জাদুকর একটি লাল রুমাল, পায়রা অথবা একটি আস্ত ফুলের তোড়া বের করে নিয়ে আসতেন! উত্তর মিলতো না, ঘোরও কাটতো না। একসময় মনে হলো জাদুকর হবো। হলামও, জাদু শেখার বই দেখে দেখে হয়ে গেলাম পুরো দস্তুর জাদুকর। আমার দর্শক- আমি যে প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পড়তাম সেখানকার শিক্ষার্থী ও শিক্ষকরা। হাওয়া থেকে লাল রুমাল বের করে এনে সবাইকে তাক লাগিয়ে দিতাম। অবশেষে ঘোর কাটলো। জাদুর পেটরা পড়ে রইলো স্টোররুমে। আমিও বড হয়ে গেলাম। একসময় পেশা ও নেশা হয়ে উঠলো আলোকচিত্রকলা। আলোকচিত্রকলা জগতে এসে ফিরে পেলাম সেই ম্যাজিক, সেই ম্যাজিশিয়ান। এই ম্যাজিশিয়ান শূন্য থেকে লাল রুমাল বের করে এনে দর্শককে উপহার দেন না। তিনি শূন্য থেকে অসামান্য আলোকচ

By সুদীপ্ত সালাম on রবিবার , ২১ মে ২০১৭ ১৮:৩৭

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসের কলাভবনের সামনের ভাস্কর্য ‘অপরাজেয় বাংলা’র প্রখ্যাত ভাস্কর সৈয়দ আবদুল্লাহ খালিদ (৭৫) আর নেই। গতকাল শনিবার রাত ১১টা ৪৫ মিনিটে রাজধানীর বারডেম হাসপাতালে তিনি ইন্তেকাল করেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। ছেলে সৈয়দ আবদুল্লাহ জহির জানান, আজ রোববার সকাল ১১টায় তার বাবা সৈয়দ আবদুল্লাহ খালিদের মরদেহ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা অনুষদে নিয়ে যাওয়া হবে। এরপর বেলা ১২টায় কলা ভবনের সামনে অপরাজেয় বাংলার পাদদেশে রাখা হবে। বাদ জোহর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় মসজিদে জানাজার পর সৈয়দ আবদুল্লাহ খালিদকে মিরপুর বুদ্ধিজীবী কবরস্থানে দাফন করা হবে। এদিকে ভাস্কর সৈয়দ আবদুল্লাহ খালিদের মৃত্যুতে গভীর শোক জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। জানা গ

অন্য জল, অন্য অন্ন, অন্য অগ্নির মতো আমাদের ভেতর বাস করে আরেক মানুষ। আর জনমে ছ্যাইলা কইরহে আর জনমে মাইয়া কইরহে! জনম ঘুরাইয়া লও হে জনম ঘুরাইয়া লও হেএএএ ছ্যাইল্যা ছ্যাইল্যা ছ্যাইলা, মাইয়া মাইয়া মাইয়া আর জনমে কইর হে।। শরীর বিদ্যা পঠনে স্বর্গীয় কৌতুকীর প্রতি বিশ্বাসী হয়ে উঠবে মানুষ। তাই শরীর বিদ্যা কখনও ধর্মগ্রন্থ হয়ে ওঠে। যে পড়বে সে নত হবে লুকানো শক্তির বিস্ময় থেকে তপস্যায়। শারীরবিদ্যা যা অনুসরণ ও ধারণ করে আয়োজিত, মানবদেহকে ব্যাখ্যা ও শিক্ষার জন্য আধারিত, তা সৃষ্টির জন্য স্রষ্টার প্রতি চমকিত ও শ্রদ্ধাকাতর অবনত করবে। ধর্মগ্রন্থ ও মানব শরীরের পাঠ স্রষ্টাকে আবিষ্কারের উপলক্ষ। ফিজিওলজি ও পবিত্রগ্রন্থ এক সতর্ক সমন্বয় হিসেবে দেখা যায়। ব্যাখ্যায়িত করবার দাবি থেকে কথা হবে, বলব এবং গভীরতর এ

By সৈয়দ রিয়াজুর রশীদ on শনিবার, ২০ মে ২০১৭ ১২:২৫

কুষ্টিয়া ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে হয়ে গেল খুলনা বিভাগীয় বর্তিক উৎসব ২০১৭। উৎসবের আয়োজন করেছে ন্যাশনাল ডিবেট ফেডারেশন বাংলাদেশ এনডিএফবিডি। ‘যুক্তি দায়ে মুক্তি হোক, রবি লালনের ভূমি’ শ্লোগান নিয়ে এই যুক্তিতর্কের আসর। ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের বীরশ্রেষ্ঠ হামিদুর রহমান মিলনায়তনে বিভাগের ১০ জেলার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ২ হাজার শিক্ষার্থী। উৎসব উদ্বোধন করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. হারুন-উর-রশিদ আসকারী। ডিবেট ফেডারেশন সভাপতি এ কে এম শোয়েবের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ উপাচার্য প্রফেসর ড. শাহিনুর রহমান, ট্রেজারার প্রফেসর ড. সেলিম তোহা, বিশিষ্ট অভিনয় শিল্পী শহিদুল আলম সাচ্চুসহ অনেকে। বিস্তারিত দেখুন ভিডিও রিপোর্টে:

By চ্যানেল আই অনলাইন on শুক্রবার, ১৯ মে ২০১৭ ২০:১৪

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় উপাচার্য অধ্যাপক ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক বলেছেন, আমরা শুদ্ধ সংস্কৃতি চর্চা থেকে দূরে সরে যাচ্ছি। বাঙালি সংস্কৃতি বিশ্বের সমৃদ্ধ সংস্কৃতি। নিজস্ব সংস্কৃতি চর্চা করতে হবে। নিজেদের সংস্কৃতি নিয়ে হীনমন্যতায় ভোগা যাবে না। বুধবার সন্ধ্যায় টিএসসিতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সাংস্কৃতিক সংসদ আয়োজিত আন্তঃবিশ্ববিদ্যালয় আবৃত্তি উৎসব-২০১৭ এ প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। ঢাবি উপাচার্য বলেন, জাতীয় সংস্কৃতির সঙ্গে বিশ্ব সংস্কৃতির যোগাযোগ রক্ষা করতে হবে। তবে নিজেদের সংস্কৃতিকে প্রাধান্য দিয়ে তা করতে হবে। সংস্কৃতি চর্চায় সংস্কৃতির পরিমণ্ডল তৈরি করা অতি গুরুত্বপূর্ণ। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সাংস্কৃতিক সংসদ নিয়মিতভাবে সংস্কৃতির বিচিত্র কর্মকাণ্ড চর্চার মাধ্যমে নতুন

By সাইফুল্লাহ সাদেক on বৃহস্পতিবার, ১৮ মে ২০১৭ ০৯:২৯

বিখ্যাত স্প্যানিশ চিত্রশিল্পী ও ভাস্কর পাবলো পিকাসোর আঁকা ‘ফেমে আসিসে, রোব ব্লু’ (নীল পোশাকে অধিষ্ঠিত নারী) ছবিটি নিউইয়র্কে একটি নিলামে সাড়ে ৪ কোটি মার্কিন ডলার মূল্যে বিক্রি হয়েছে। বাংলাদেশি মুদ্রায় এর দাম প্রায় ৩৬৩ কোটি টাকা। এটি পিকাসোর আঁকা সবচেয়ে জনপ্রিয় পোর্ট্রেটগুলোর (ব্যক্তিবিশেষের ছবি) একটি। ছবিটিতে পিকাসো তার অন্যতম প্রেমিকা ডোরা মারকে এঁকেছিলেন তার স্বভাবসুলভ বাঁকানো কৌশলে। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় হিটলারের নাৎসি বাহিনী পেইন্টিংটি দখল করে ফ্রান্সের প্যারিস থেকে মোরাভিয়ায় নিয়ে যাচ্ছিল। কিন্তু পথেই তারা ফরাসি বিদ্রোহীদের একটি দলের আক্রমণের শিকার হয় এবং ওই আক্রমণের সময়ই বিদ্রোহী যোদ্ধারা পেইন্টিংটি আবার সুরক্ষিত অবস্থায় প্যারিসে ফিরিয়ে নিয়ে যায়। ছবিটি ছ’বছর

By চ্যানেল আই অনলাইন on মঙ্গলবার, ১৬ মে ২০১৭ ১১:২৭

জেনারেল জিয়া স্বাধীনতাযুদ্ধের পর খালেদাকে তালাক দিতে চেয়েছিলেন, কিন্তু জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্য তিনি তা পারেননি বলে জানিয়েছেন সাংবাদিক এবং লেখক আব্দুল গাফ্ফার চৌধুরী। ১২ মে লন্ডনে বাংলাদেশের প্রেস মিনিস্টার নাদীম কাদিরের রচিত ‘মুক্তিযুদ্ধ: অজানা অধ্যায়’ বইয়ের মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে আব্দুল গাফ্ফার চৌধুরী এ কথা বলেন। তিনি বলেন: একাত্তরে পাকিস্তানি সেনাদের নিয়ন্ত্রণাধীন ঢাকা ক্যান্টনমেন্ট ছাড়তে খালেদা জিয়া বার বার অস্বীকৃতি জানিয়েছিলেন। তখন জেনারেল জিয়া আমাকে জানিয়েছিলেন, তিনি খালেদাকে তালাক দিবেন। কিন্তু পরে বঙ্গবন্ধুর কারণে জিয়া তা করতে পারেননি। সেসময় আব্দুল গাফ্ফার যুদ্ধকালীন জেনারেল জিয়ার সঙ্গে একই কক্ষে কিছুদিন কাটান

By চ্যানেল আই অনলাইন on সোমবার, ১৫ মে ২০১৭ ২৩:২৩