মতামত

যাবজ্জীবন শব্দের মানেই হলো যতদিন জীবন আছে অর্থাৎ আমৃত্যু। কিন্তু যাবজ্জীবন মানে আমৃত্যু কারাদণ্ড কি না, তা নিয়ে নানারকম দ্বিধা ছিল। তবে সর্বোচ্চ আদালত অর্থাৎ আপিল বিভাগ পরিস্কার বলে দিয়েছেন, যাবজ্জীবন মানে আমৃত্যু কারাদণ্ড। ২৪ এপ্রিল আপিল বিভাগের এ রায়ের পূর্ণাঙ্গ অনুলিপি প্রকাশিত হয়েছে। গত ১৪ ফেব্রুয়ারি রায়টি দিয়েছিলেন আপিল বিভাগ যেখানে বলা হয়, যাবজ্জীবন মানে ৩০ বছর কারাভোগ নয়, আমৃত্যু কারাবাস। তার মানে কেউ যদি ২০ বছর বয়সে যাবজ্জীবন সাজা পান এবং তিনি যদি ৮০ বছরও বেঁচে থাকেন, তাহলে তাকে জীবনের বাকি ৬০ বছরই জেলখানায় কাটাতে হবে। দণ্ডবিধির ৫৭ ধারায় বলা আছে, In calculating fractions of terms of punishment, [ imprisonment] for life shall be reckoned as equivalent to [ rigorous imprisonment for thirty years]. অর্থাৎ “দণ্ডের মেয়াদসমূহের ভগ্নাংশসমূহ হিসাব করার ক্ষেত্রে যা

By আমীন আল রশীদ on বুধবার, ২৬ এপ্রিল ২০১৭ ২৩:৪১

বেশ কিছুদিন ধরেই ভীষণরকম অচলাবস্থার মধ্যে রয়েছে দেশের প্রথম বেসরকারি মেডিকেল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশ মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল। প্রতিদিন শত শত রোগী আর স্বজনদের ভীড়ে যে হাসপাতালটি কর্মমুখর থাকতো সেই হাসপাতালে এখন কেবলই নিরবতা। জরুরি ভিত্তিতে কিছু কাজকর্ম চললেও সবই যেনো স্থবির হয়ে পড়েছে। অভ্যন্তরীণ দ্বন্ধ, ব্যক্তি বিশেষের শক্তি প্রদর্শন, শিক্ষার্থীদের উসকে দিয়ে রাস্তায় নামানো, শিক্ষকদের হুমকি প্রদর্শন, ফেসবুকে মিথ্যাচার, হাসপাতালটি যাদের হাতে গড়া তাদের উত্তরাধিকারদেরকে সুকৌশলে সরিয়ে দেওয়ার ষড়যন্ত্র-- এসবই হাসপাতালটির চলার পথে তৈরি করেছে নানা জটিলতা। আর এই জটিলতায় সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে সাধারণ রোগী ও শিক্ষার্থীরা। সবমিলিয়ে হাসপাতালটিতে এখন ধ্বংসের হাতছানি। আশির দশকে

By জাহিদ রহমান on বুধবার, ২৬ এপ্রিল ২০১৭ ১৪:২২

নিঃস্বার্থ, সবাইকে ভালোবাসেন, সবাইকে অনুপ্রেরণা জুগিয়ে থাকেন- জুলহাস মান্নানকে নিয়ে কিছু বলতে গেলে তার বন্ধুরা এই শব্দগুলোই ব্যবহার করে থাকে। জুলহাস- যিনি ছিলেন একজন নিবেদিত সহকর্মী, অনুগত বন্ধু এবং মানবাধিকার রক্ষায় অগ্রপথিক, ২০১৬ সালের এপ্রিলে নিষ্ঠুরভাবে খুন হন তিনি। তিনি শুধু আমার সহকর্মীই ছিলেন না, তিনি ছিলেন আমার বন্ধু এবং যুক্তরাষ্ট্র দূতাবাস পরিবারের অংশ। আমরা যারা ভাগ্যবান তাকে জানতে পেরে, আজ তার মৃত্যুবার্ষিকীতে, আমাদের সকলের ওপর তার অসাধারণ প্রভাব নিয়ে আমি সবার সাথে আমার কিছু অভিজ্ঞতা ভাগ করে নিতে চাই। নিঃস্বার্থ জুলহাস নিঃস্বার্থভাবে জীবনযাপন এবং সমাজকে আরো বৈচিত্র্যময় ও অন্তর্ভূক্তিমূলক করার জন্য নিরলসভাবে কাজ করতেন। নিজের চেয়ে তিনি সব সময় অন্যকে এগিয়ে র

By মার্শা বার্নিকাট on সোমবার, ২৪ এপ্রিল ২০১৭ ১৮:৫৪

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগে'র সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বারবার জাতির সামনে দলটিকে প্রশ্নবিদ্ধ করছেন কিন্তু প্রশ্নবিদ্ধতার কারণ অপসারণে কোন ভূমিকা নিচ্ছেন না। অনেকের প্রত্যাশা ছিলো তিনি সাধারণ সম্পাদক হয়ে দলকে গঠনতান্ত্রিক শৃঙ্খলায় আনবেন। শুদ্ধি অভিযান চালিয়ে দলের বিপজ্জনক পন্থাযাত্রা ঠেকাবেন। মানুষ ভেবেছিলো তিনিই হবেন আওয়ামী লীগে’র রাজনৈতিক ফাটাকেষ্ট। কিন্তু বাস্তব চিত্রে ফুটে উঠছে কেবলই নতুন নতুন বচনবাজী। একবার বলেন, দলে হাইব্রিড নেতা ঢুকেছে পরে বলেন, মৌসুমী পাখি ঢুকেছে। আরেকবার বলেন, কাউয়া ঢুকেছে, কিছুূদিন যেতে না যেতেই আবার বলেন, ফার্মের মুরগী ঢুকেছে। দলের বিভিন্ন সভায় তিনি জোরালো কণ্ঠে বলেছেন, হাইব্রিড নেতাদের দলে ঠাঁই নেই। শুধু বক্তৃতা পর্যন্তই হাইব্রিডরা বহাল ত

By এখলাসুর রহমান on সোমবার, ২৪ এপ্রিল ২০১৭ ১৩:০৩

হাওরের পানি পরীক্ষা করে বাংলাদেশ পরমাণু শক্তি কমিশনের বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন, সুনামগঞ্জের হাওরের পানিতে প্রাথমিকভাবে তেজস্ক্রিয়তার কোনো প্রমাণ পাওয়া যায়নি। গত কয়েক দিন ধরে গণমাধ্যমে প্রকাশিত আর সামাজিক মাধ্যমে ভাইরাল হওয়া মৃত হাঁস আর মরা মাছের ছবি দেখে যে ভয় জন্মেছে, বিজ্ঞানীদের এই বক্তব্য কিছুটা হলেও প্রশান্তি নিয়ে এসেছে। সত্য যখন জানা যায় না, বিজ্ঞানের প্রয়োগ যেখানে স্বচ্ছভাবে হয় না, তখন 'ষড়যন্ত্র' আর 'গুজব' এর ডালপালা বড় হতে থাকে। তারপরেও কিছু প্রশ্ন মনের মধ্যে খচখচানি রয়েই যাচ্ছে। প্রশ্ন উঠতেই পারে, আমরা কি তাহলে নিরাপদ? প্রথমেই মনে আসে, ৪ হাজার হাঁস আর কয়েক হাজার টন মাছ তাহলে কিভাবে মারা গেলো? মফস্ফলের ছেলে হিসেবে ছেলেবেলা থেকে হাঁসকে জেনে এসেছি খুবই শক্ত প্রাণের প্রাণি হিসেবে।

By আব্দুল্লাহ আল সাফি on সোমবার, ২৪ এপ্রিল ২০১৭ ১০:২০

সংগীতের ভুবনে ছড়িয়ে-ছিটিয়ে আছে কত কত গান। সুর, লয়, ধ্বনির সম্মিলনে গড়ে ওঠেছে এক মায়াবী জগত। যা ধরা যায় না। ছোঁয়া যায় না। নাগালও পাওয়া যায় না। কেবলই অনুভব করা যায়। তবে গানের আছে প্রকারভেদ। কত রকমের যে বিভাজন। বিভিন্ন রাগের। বিভিন্ন অনুরাগের। কোনোটা আনন্দের। কোনোটা বেদনার। আবেগ আছে। আছে ব্যাকুলতাও। কখন কোন গান যে হৃদয়তন্ত্রী ছুঁয়ে যাবে, অনুভবে বেজে ওঠবে কোন সুর, কেউ বলতে পারে না। মন-মানসিকতা, মেজাজ-মর্জি, পছন্দ-অপছন্দের ওপর নির্ভর করে ভালো লাগা, মন্দ লাগা। মানুষের মন তো বর্ষার আকাশের মতো। কখন কোন রূপ ধারণ করবে, নিজেও জানে না। প্রতিটি মুহুর্তেই বদলায়। বদলে যায়। এরসঙ্গে তাল মিলিয়ে গান লিখেছেন গীতিকাররা। সুর দিয়েছেন সুরকাররা। আর গেয়েছেন কণ্ঠশিল্পীরা। কোনো গান বা সুর যখন প্রচারিত হয়ে য

By দুলাল মাহমুদ on সোমবার, ২৪ এপ্রিল ২০১৭ ০৯:১৩

অনেক বড় অর্জন একটুখানি ভুলের কারণে বা কারো ভুল পরামর্শে নষ্ট হয়ে গেলে খুব আফসোস লাগার কথা। যে আফসোস হবে বঙ্গবন্ধুর আদর্শের মানুষদের। যারা হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে দেখেন অন্য আলোয়। অন্যরকম শ্রদ্ধায়। বাংলাদেশের আর কোনো নেতা এত জেল জুলুম সহ্য করেন নি, যতটা করেছেন বঙ্গবন্ধু। তাঁর ‘অসমাপ্ত আত্মজীবনী’ আর ‘কারাগারের রোজনামচা’ বই দুটি যারাই পড়েছেন তারা নির্দ্বিধায় বলে দেবেন বঙ্গবন্ধু কোন পর্যায়ের নেতা ছিলেন বাংলার জনগণের কাছে। বঙ্গবন্ধু ছিলেন সেই পর্যায়ের নেতা যে পর্যায়ের নেতা হলে স্মৃতিসৌধও নুয়ে শ্রদ্ধা জানায়। সেই বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলায় আবার যদি পাকিস্তানী ভাবধারার উগ্রপন্থী কোনো দলের উত্থান ঘটে তা হলে কিভাবে তা মেনে নেবে সেই জ

By সারওয়ার-উল-ইসলাম on রবিবার , ২৩ এপ্রিল ২০১৭ ১৬:১৫

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকের সাথে আমি যুক্ত ২০০৮ সাল থেকে। চেনা অচেনা মানুষের সঙ্গে বন্ধন তৈরি হতে হতে ভার্চুয়াল এই প্ল্যাটফর্মে আমার বন্ধু সংখ্যা পৌঁছায় সাড়ে তিন হাজারে। কিন্তু গত ১৫ এপ্রিল হঠাৎ বন্ধ হয়ে যায় আমার ফেসবুক আইডি! যা আমার কাছে ব্যক্তিগত এক সামাজিক যোগাযোগ ‘দুর্ঘটনা’ হিসেবেই বিবেচ্য। অনাকাঙ্ক্ষিত এইরূপ ‘দুর্ঘটনায়’ অনেকটা থমকে গিয়ে আমি আমার বন্ধুদের বিষয়টি জানাই। তারা হাস্যরস নিয়ে আমাকে প্রশ্ন ছুড়ে বলে, কেন তোমার আইডি বন্ধ করলো ফেসবুক? কী করেছো তুমি ? খারাপ কিছু করোনি তো ?  মন খারাপের মধ্যেও আপন প্রিয় বন্ধুদের এইরূপ জিজ্ঞাসায় বিরক্ত কিংবা বিব্রত হইনি। কেবলই সরলতায় তাদের বলেছি, আইডি বন্ধ হওয়ার মত কিছুতো আমি করিনি। অবিশ্বাসের ঘোরে আচ্ছন্ন থাকা মানুষের এই পৃথিবীত

By এস এম আশিকুজ্জামান on শনিবার, ২২ এপ্রিল ২০১৭ ১৮:২৭

এ বছরের নববর্ষ উদযাপন খানিকটা ভিন্নভাবে হয়েছে। এদেশের প্রগতিশীল মানুষেরা ভারাক্রান্ত মনে পালন করেছে নতুন বছরের প্রথম দিন। নববর্ষের ঠিক আগের দিন গেজেট প্রকাশ করে স্বীকৃতি দেয়া হয়েছে কওমি মাদ্রাসার সর্বোচ্চ শিক্ষাস্তর দাওরা-ই হাদিসকে স্নাতকোত্তরের সম্মান। পাশাপাশি সুপ্রিম কোর্ট থেকে ন্যায় বিচারের প্রতীক থেমিসের ভাস্কর্য সরিয়ে নেয়ার জন্য হেফাজতে ইসলামের দাবীর প্রতি নমনীয় বক্তব্য রেখে প্রধানমন্ত্রী তার দলের গৃহীত ধর্মনিরপেক্ষ নীতির সঙ্গে আপোষ করেছেন বলে আলোড়ন উঠেছে রাজনৈতিক এবং সামাজিক আলোচনায়। অবশ্য এরপর হেফাজত শুধু সুপ্রিম কোর্ট চত্বর থেকে নয়, দেশের বিভিন্ন স্থানে স্থাপিত সকল ভাস্কর্য অপসারণ করার আহ্বান জানিয়েছে। বলেছে, নববর্ষ উদযাপন ইসলাম সম্মত নয়। ২০১২ সালের শেষের দিক থেকে য

By সাব্বির আহমেদ on শুক্রবার, ২১ এপ্রিল ২০১৭ ১৩:১৪

কথা ছিল নৈরাজ্য বন্ধ করার। প্রতিশ্রুতি ছিল রাজধানীর গণপরিবহন খাতে শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনার। গত কয়েকদিনের চিত্র দেখে মনে হচ্ছে নৈরাজ্য ও বিশৃঙ্খলা আরও বেড়েছে। এ যেন অনেকটা রবীন্দ্রনাথের ‘জুতা আবিষ্কার’ কবিতার হবুচন্দ্র রাজার নির্দেশে গবুচন্দ্র মন্ত্রীর রাজ্য থেকে ধুলা দূর করার অভিযানের মতো! ‘করিতে ধুলা দূর রাজ্য হলো ধুলায় ভরপুর!’ অথবা ‘এমনি সব গাধা ধুলারে মারি করিয়া দিল কাদা!’ পরিবহন খাতে শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনার চেষ্টাও অনেকটা তেমনই হয়ে দাঁড়িয়েছে! তবে এক্ষেত্রে পার্থক্য হলো, যা করা হয়েছে, তা ‘গাধা’র মতো নয়, বরং জেনে-শুনে-বুঝে অত্যন্ত উদ্দেশ্যপূর্ণভাবেই করা হয়েছে। অনেক ঢাক-ঢোল পিটিয়ে গণপরিবহনে ভাড়া নিয়ে নৈরাজ্য, যাত্রী হয়রানি ও বিশৃঙ্খলা ঠেকাতে রাজধানীতে সিটিং সার্ভিস বন্ধের সিদ্ধান্ত গ্রহণ ক

By চিররঞ্জন সরকার on শুক্রবার, ২১ এপ্রিল ২০১৭ ১২:৩৩