ভোলা

ভোলার বিচ্ছিন্ন দ্বীপ মনপুরা উপজেলার ল্যান্ডিং ষ্টেশনটি চরম ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে। নির্মাণের প্রায় ১০ বছর পরও সংস্কার না করায় ল্যান্ডিং ষ্টেশনটি নদী গর্ভে বিলীন হতে চলেছে। তাই ঝুঁকি নিয়েই ছোট বড় কার্গো জাহাজ, লঞ্চ ও ট্রলার ওই ল্যান্ডিং ষ্টেশনে নোঙর করছে। সী-ট্রাকসহ লঞ্চ, ষ্টিমার, পণ্যবাহী বড় বড় কার্গো জাহাজ নোঙ্গরের পাশাপাশি যাত্রীদের উঠানামার সুবিধার জন্য ২০০৭ সালে ১৫০ মিটার দৈর্ঘ্য ও ৩ মিটার প্রস্থ র্দীঘ ল্যান্ডিং ষ্টেশনটি নির্মাণ করে বিআইডব্লিউটিএ। কিন্তু ল্যান্ডিং ষ্টেশনের সাথে নদীর তীরে অন্য কোন পন্টুন নির্মাণ না করায় কার্গো জাহাজ, সি-ট্রাক, লঞ্চ, ট্রলারগুলো প্রতিনিয়ত ওই ল্যান্ডিং ষ্টেশনে নোঙর করে। এতে ল্যান্ডিং ষ্টেশনের কয়েকটি পিলার নদীর নিচ থেকে অনেকটা বিচ্ছিন্

By চ্যানেল আই অনলাইন on বুধবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৭ ০৯:৫৩

দীর্ঘ অপেক্ষার পর ভোলার নদীগুলোতে জেলেদের জালে ধরা পড়ছে ঝাঁকে ঝাঁকে ইলিশ। দেরিতে হলেও পর্যাপ্ত ইলিশের দেখা পেয়ে খুশি জেলে ও ব্যবসায়িরা। মৌসুমের শুরুতে ইলিশ না পেয়ে গত দু’মাস চরম হতাশায় দিন কাটিয়েছেন ভোলার তিন লাখেরও বেশি জেলে। গত কয়েকদিন আকস্মিকভাবেই ধরা পড়ছে ঝাঁকে ঝাঁকে ইলিশ। সবচেয়ে বেশি ইলিশ পাওয়া যাচ্ছে মনপুরা, ঢালচর ও চর নিজামের মেঘনা মোহনায়। জেলার সাত উপজেলায় ছোট বড় মিলিয়ে একশ’ ২৭টি মৎস্য অবতরণ কেন্দ্র রয়েছে। এসব কেন্দ্রে আড়ত রয়েছে এক হাজার দুশ’। বর্তমানে প্রতিটি কেন্দ্র থেকে বরিশাল, চাঁদপুর, ঢাকাসহ বিভিন্ন জেলার মোকামগুলোতে প্রতিদিন ২০ থেকে ২৫ ঝুড়ি ইলিশ যাচ্ছে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে ইলিশের অবস্থান ও প্রাপ্তিতে ব্যাপক পরিবর্তন ঘটেছে। ইলিশ প্রজনন

By চ্যানেল আই অনলাইন on বৃহস্পতিবার, ১৪ সেপ্টেম্বর ২০১৭ ১০:৪৯

হারূন উর রশীদ: জলদস্যু আতঙ্কে মেঘনায় ইলিশ ধরতে যেতে পারছে না ভোলার জেলেরা। প্রতিদিনই জলদস্যুরা অপহরণ করছে জেলেদের। আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী দু’এক জনকে উদ্ধার করলেও বেশিরভাগ জেলেই ঘরে ফিরছে মুক্তিপণ দিয়ে। কেউ কেউ মারাও যাচ্ছে জলদস্যুদের হাতে। ইলিশ আহরণ স্বাভাবিক রাখতে নিরাপত্তা জোরদার করার দাবি জানিয়েছে জেলেরা। বিবি জান্নাত মনপুরার চর ফয়েজউদ্দিন গ্রামের কামাল মাঝির স্ত্রী। গত বছর পয়লা অক্টোবর মেঘনায় ইলিশ ধরতে গিয়ে জলদস্যুদের গুলিতে মারা যান কামাল মাঝি। সেই থেকে অভাব অনটনে দিন কাটাচ্ছে তার পরিবার। শুধু জান্নাত নয়, ভোলার উপকূলীয় অঞ্চলে এ রকম আরো বহু জেলে জলদস্যুদের হামলার শিকার হয়েছেন। হাতিয়া ও ভোলার অন্তত ১১টি জলদস্যু বাহিনী এখন দাপিয়ে বেড়াচ্ছে । জলদস্যুরা প্রতিদিনই কাউকে ন

By চ্যানেল আই অনলাইন on বুধবার, ২৬ জুলাই ২০১৭ ১৩:২৬

ভোলায় অনুমোদন ছাড়াই নদী থেকে ড্রেজার দিয়ে বালু উত্তোলন করছে অসাধু ব্যবসায়ীরা। এ কারণে নদী ভাঙনে বিলীন হচ্ছে জনপদ, বদলে যাচ্ছে নদীর গতিপথ। এর পাশাপাশি ভেঙে পড়ছে নদীকেন্দ্রিক ইকোসিস্টেম, ক্ষতি হচ্ছে জীববৈচিত্র্যের। দ্বীপ জেলা ভোলার প্রধান সমস্যা নদী ভাঙ্গন। মেঘনা ও তেঁতুলিয়া নদীর বিভিন্ন পয়েন্টে অন্তত: ১০টি ড্রেজার দিয়ে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করায় এ সমস্যা আরো প্রকট হয়ে উঠছে। সদরের ভেদুরিয়া, ইলিশা, তুলাতুলি, বোরহানউদ্দিন, লালমোহন, তজুমদ্দিন ও চরফ্যাশনের বিভিন্ন এলাকায় নদীতে ভাটার সময় বালু কাটা হচ্ছে। স্থানীয়রা জানিয়েছেন, প্রশাসনের অভিযানের খবর পেলে বালুকাটা জাহাজগুলো নদীর পাড়ে ভিড়িয়ে রাখা হয়। নদী থেকে বালু কেটে নেয়ায় নদী ভাঙনে রাস্তাঘাট, ঘরবাড়ি ও ফসলি জমি বিলীন হয়ে যাচ্ছে।

By চ্যানেল আই অনলাইন on সোমবার, ২৪ জুলাই ২০১৭ ১৩:২৮

হারূন উর রশীদ, ভোলা প্রতিনিধি :  ভোলার উপকূলীয় এলাকায় পানিতে লবণের পরিমাণ বেড়ে যাওয়ায় কৃষিকাজ ও গবাদি পশুপালনে সংকট দেখা দিয়েছে। বিশেষ করে সাগরপাড়ের বিভিন্ন এলাকায় গত কয়েক বছর ধরে আশংকাজনক হারে কমছে ফসল উৎপাদন। ভোলার কৃষি অর্থনীতির গুরুত্বপূর্ণ খাত মহিষ পালন। এ খাত থেকে বাথান মালিকরা বছরে আয় করেন কয়েক কোটি টাকা। বিভিন্ন চর ও বনাঞ্চলে খোলা আকাশের নীচে প্রাকৃতিক ঘাস খেয়েই মহিষ বেঁচে থাকে। কিন্তু লবণাক্ততায় ঘাস জন্মাতে না পারায় দুর্গম চরাঞ্চলের বাথানগুলোতে একে একে মারা যাচ্ছে মহিষ। মনপুরা উপজেলার বিচ্ছিন্ন উপ-দ্বীপ চরনিজাম গ্রামে সাধারণ মানুষের ব্যবহৃত পুকুরে নামানো হচ্ছে বাথানের মহিষ। এতে বহু পুকুরের পানি মানুষের ব্যবহারের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে, অভিযোগ স্থানীয়দের। প্রাণি সম্

By চ্যানেল আই অনলাইন on শনিবার, ২২ জুলাই ২০১৭ ১১:৫৮

মৌসুমী সুলতানা: ঘূর্ণিঝড় মহাসেন ও রোয়ানুর আঘাতে ক্ষতিগ্রস্ত বাঁধগুলো এখনো সংস্কার না হওয়ায় ভোলার উপকূলবাসী ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে। উচু বাঁধ না থাকায় আতঙ্কে রয়েছেন নদীর তীরের প্রায় ৫ লাখ মানুষ। চলতি বর্ষায় ক্ষতিগ্রস্ত বাঁধ দ্রুত সংস্কার না হলে শাহবাজপুর গ্যাস ক্ষেত্রসহ অনেক গুরুপ্তপূর্ণ স্থাপনা হুমকির মুখে পড়ার আশঙ্কা রয়েছে। দুর্যোগ মোকাবেলায় ব্যপক প্রস্তুতি থাকায় ২০১৩ সালে ঘূর্ণিঝড় মহাসেন এবং ২০১৬ তে ঘূর্ণিঝড় রোয়ানুর আঘাতে জানমালের ক্ষয়ক্ষতি কম হলেও ভোলার উপকূলীয় এলাকার বাঁধগুলো ক্ষতিগ্রস্ত হয়। পরে জরুরি ভিত্তিতে ভাঙন রোধে বাঁধ সংস্কার এবং তীর সংরক্ষণ কাজ শুরু হয়। কিন্তু এখনও জেলার ৭ উপজেলার কমপক্ষে ২৩ কিলোমিটার বাঁধ ঝুঁকিতে রয়েছে। বর্ষার আগেই ভাঙন রোধে কাজ শুরু না হলে হ

By চ্যানেল আই অনলাইন on শুক্রবার, ২৬ মে ২০১৭ ২২:২১

ভোলা প্রতিনিধি: ভোলার দৌলতখান উপজেলার উত্তর জয়নগর গ্রামে পল্লী বিদ্যুতের তারে জড়িয়ে মা-ছেলেসহ একই পরিবারের চারজনের মৃত্যু হয়েছে। রোববার সন্ধ্যায় এ ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলো ওই গ্রামের শাহাজলের স্ত্রী সুফিয়া (৩৫), তার ছেলে আবদুল রহমান (১১) এবং একই বাড়ির মোঃ ফয়েজ (১৫) ও সুইটি (১২)। নিহতের পরিবারের সদস্যরা জানায়, শাহাজলের ছেলে আবদুল রহমান এবং সুইটি সন্ধ্যায় পুকুরে গোসল করতে যায়। এসময় তারা পুকুরের পাড়ে থাকা বিদ্যুতের একটি ছেঁড়া তারে জড়িয়ে যায়। তাদের উদ্ধারের জন্য সুফিয়া বেগম এগিয়ে গেলে তিনিও বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হন। পরে তাদের বাঁচাতে গিয়ে মোঃ ফয়েজও বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হন। আহত অবস্থায় তাদের উদ্ধার করে ভোলা সদর হাসপাতালে নেয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক সবাইকে মৃত ঘোষণা করেন। দৌলতখান থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর

By চ্যানেল আই অনলাইন on রবিবার , ১৪ মে ২০১৭ ২২:২৬

  মনপুরার ৩ নম্বর উত্তর সাকুচিয়া ইউনিয়নের চর নিজামে সাত হাজার মানুষের বাস। ইলিশ মৌসুমে স্থায়ী-অস্থায়ী মিলে এর পরিমাণ কয়েক গুণ বেড়ে যায়। নৌ-যান সংকটের কারণে এসব মানুষ বিভিন্ন প্রয়োজনেও দ্বীপ ছেড়ে সহজে অন্য কোথাও যাতায়াত করতে পারে না। তাই দ্বীপটিকে সব সুবিধাসহ আলাদা ইউনিয়ন করা কিংবা পার্শ্ববর্তী ইউনিয়নের সাথে সংযুক্ত করার দাবি এলাকাবাসীর। এছাড়া চরনিজামে আট থেকে দশ কিলোমিটার দীর্ঘ কালকিনি সৈকত থাকলেও যোগাযোগ সমস্যার কারণে পর্যটকরা সেখানে যেতে পারছেন না। সেখানকার স্বাস্থ্য, শিক্ষা, ব্যবসা-বাণিজ্য থেকে শুরু করে ইউনিয়ন পরিষদের সেবা কার্যক্রমও মারাত্মক বিঘ্নিত হচ্ছে। উপ-দ্বীপ চরনিজামবাসীর দাবি বাস্তবায়নের উদ্যোগের কথা জানিয়েছে প্রশাসন। সমস্যা সমাধানে পদক্ষেপ নিয়ে তা

By চ্যানেল আই অনলাইন on শুক্রবার, ২৮ এপ্রিল ২০১৭ ১৬:৩৩

দ্বীপ জেলা ভোলার লালমোহনে দেশের প্রথম ডিজিটাল পার্ক চালু হয়েছে।সজীব ওয়াজেদ জয় পৌর ডিজিটাল পার্কটি বৃহস্পতিবার আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধনের পরই এলাকার সাধারণ মানুষের মধ্যে ব্যাপক সাড়া পড়ে যায়। পার্কটি

By চ্যানেল আই অনলাইন on শুক্রবার, ১৭ মার্চ ২০১৭ ১৮:৩০

দ্বীপজেলা ভোলায় ঘূর্ণিঝড়ের কারণে খোলা আকাশের নিচে বসবাস করছে শতাধিক পরিবার। ঝড় থেমে গেলেও খাদ্য সংকট ও আশ্রয় না থাকায় ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলো মানবেতর জীবনযাপন করছে। গত রোববার থেকে বুধবার টানা কয়েক দফা ভোলার ধনিয়া, ইলিশা এবং চরফ্যাশন উপজেলার মাদ্রাজ ও আসলামপুরসহ বিভিন্ন এলাকার ঘূর্ণিঝড় হওয়ায় ঘর বাড়ী ভেঙ্গে শতাধিক পরিবার আশ্রয়হীন হয়ে পড়েছে। এই ঘূর্ণিঝড়ে প্রাণ হারিয়েছেন ২জন। সবচেয়ে বেশী ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে ভোলার ধনিয়া ইউনিয়নের কালাসুরা ও দড়িরামশংকর গ্রামের মানুষ। সরকারের পক্ষ থেকে কোন ত্রাণ সহায়তা আসেনি বলে অভিযোগ করেছেন ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের সদস্যরা। দুশ্চিন্তায় জনপ্রতিনিধিরাও। শিগগিরই ক্ষতিগ্রস্তদের জন্য গৃহ নির্মাণের অর্থ বরাদ্দের আবেদন করা হবে বলে আশ্বাস দিয়েছ

By চ্যানেল আই অনলাইন on রবিবার , ১২ মার্চ ২০১৭ ১৭:২১