নেত্রকোনা

জাহিদ হাসান,নেত্রকোনা প্রতিনিধি: নেত্রকোনার কলমাকান্দার গনেশ্বরী নদীর উপর সেতু না থাকায় প্রায় বছরের পর বছর দুর্ভোগ পোহাচ্ছে বিশ গ্রামের মানুষ। জনপ্রতিনিধিদের কাছে তাগাদা দিয়েও কাজ না হওয়ায় এলাকার মানুষ অস্থায়ী কাঠের সেতু বানিয়ে চলাচল করছেন। স্থায়ী সেতু নির্মাণের জন্য জোর দাবি জানিয়েছেন তারা। নেত্রকোনার কলমাকান্দার সীমান্ত এলাকার লেংগুরা, খারনৈ ও রংছাতি ইউনিয়নের উপর দিয়ে বয়ে গেছে ভারতের মেঘালয় থেকে নেমে আসা গনেশ্বরী নদী। ওই নদীতে সেতু না থাকায় স্থায়ী এক দুর্ভোগে পড়ে আছেন ২০ গ্রামের মানুষ। এলাকাবাসীর দীর্ঘদিনের দাবির মুখেও নদীতে একটি সেতু নির্মাণের উদ্যোগ নেয়া হয়নি। তবে এলাকাবাসীর দুর্ভোগ লাঘবে এগিয়ে এসেছে গ্রামের কিছু উদ্যোগী মানুষ। নিজেদের চেষ্টায় নদীর উপর নির্মাণ

By চ্যানেল আই অনলাইন on বুধবার, ০৫ জুলাই ২০১৭ ১৩:৩৩

এটিএন নিউজের নেত্রকোনা জেলা প্রতিনিধি শামীম আহমেদের শিশুকন্যা স্বর্ণা সড়ক দুর্ঘটনায় আহত হয়ে চিকিৎসাধীন অবস্থায়  বৃহস্পতিবার রাতে নি:শ্বাস ত্যাগ করেছে। আহত অবস্থায় ঢাকার একটি বেসরকারী হাসপাতালে

By চ্যানেল আই অনলাইন on শুক্রবার, ২৮ এপ্রিল ২০১৭ ১৬:২৫

কৃষি ঋণ স্থগিত নয়, মওকুফের দাবি জানিয়েছেন সুনামগঞ্জের কৃষক। পাশাপাশি আগামী বছর বোরো ফসল আবাদের জন্য সহজশর্তে ঋণ দেয়ারও দাবি জানিয়েছেন তারা। এদিকে নেত্রকাণায় বিভিন্ন হাওরের বোরো ধান নতুন করে তলিয়ে গেছে। সুনামগঞ্জের হাওর অঞ্চলে ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক কৃষকের পাশাপাশি বর্গা কৃষকেরও একমাত্র ফসল বোরো চাষ করেই দিন চলে। কৃষি ব্যাংকসহ বিভিন্ন ব্যাংক, এনজিও এবং মহাজনের কাছ থেকে ঋণ নিয়ে জেলার ১শ’ ৪২টি হাওরে প্রায় আড়াই লাখ হেক্টর জমিতে এ বছর তারা বোরো আবাদ করে। কৃষি ব্যাংক সূত্র জানিয়েছে, জেলায় মোট কৃষি ঋণ রয়েছে প্রায় ২৫ কোটি টাকা। অতিবৃষ্টি, পাহাড়ি ঢল আর বাঁধ ভেঙে বোরো ফসল হারিয়ে নিঃস্ব হাওর অঞ্চলের কৃষক। নেত্রকোনায় এ পর্যন্ত প্রায় ৮০ হাজার হেক্টর জমির ধান ডুবে গেছে। স্থানীয় কৃষি বিভা

By চ্যানেল আই অনলাইন on বুধবার, ২৬ এপ্রিল ২০১৭ ১৪:১৭

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণমন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া বলেছেন, আগাম বন্যায় হাওরের ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকদের সার্বিক সহযোগিতা করা হবে। মঙ্গলবার নেত্রকোনার আটপাড়া উপজেলার বানিয়াজান ইউনিয়নের সোনাইখালি গ্রামে চেংরাম হাওর এলাকা পরিদর্শনের সময় মন্ত্রী এ কথা বলেন। সভায় ত্রাণমন্ত্রী আরো বলেন, প্রতিটি পরিবারকে মাসে ৩০ কেজি করে চাল ও নগদ ৫০০ টাকা দেয়া হবে। কাজেই খাবার নিয়ে চিন্তা করবেন না, খাদ্যের সংকট নাই। বাংলাদেশ ব্যাংক আপাতত কৃষি ঋণ আদায় স্থগিত করেছে। তাই এনজিওগুলোকে ঋণের কিস্তি আদায় আপাতত এক বছর বন্ধ রাখার আহ্বান করেন তিনি। তিনি বলেন, ত্রাণ নিয়ে কোনো ধরণের কারচুপি হতে দেবেন না। সরকারের পক্ষ থেকে পর্যাপ্ত পরিমাণে ত্রাণ দেয়া হচ্ছে। ত্রাণ নেয়ার আগে আপনার জন্য কত কেজি বরাদ্দ করা

By চ্যানেল আই অনলাইন on মঙ্গলবার, ২৫ এপ্রিল ২০১৭ ১৭:৪৫

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণমন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া বলেছেন, আগাম বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকদের সার্বিক সহযোগিতা করা হবে। নেত্রকোনার হাওরাঞ্চল পরিদর্শনে এসে রোববার রাতে মতবিনিময় সভা করেন ত্রাণমন্ত্রী। জেলা প্রশাসক ডক্টর মুশফিকুর রহমানের সভাপতিত্বে জেলা প্রশাসন মতবিনিময় সভায় জেলার সরকারি কর্মকর্তা, রাজনৈতিক ব্যক্তিবর্গ, জনপ্রতিনিধি এবং গণমাধ্যম কর্মীসহ বিভিন্ন শ্রেণীপেশার মানুষ মতবিনিময় সভায় অংশ নেন। সভায় হাওরাঞ্চলসহ জেলার দশটি উপজেলায় আগাম বন্যায় ক্ষয়ক্ষতি ও করণীয় সম্পর্কে আলোচনা করা হয়েছে।

By চ্যানেল আই অনলাইন on মঙ্গলবার, ২৫ এপ্রিল ২০১৭ ০৯:০৬

অকাল বন্যায় নিঃস্ব হয়ে পড়েছে নেত্রকোণা জেলার খালিয়াজুরী উপজেলার সাধারণ কৃষক। ফলস ঘরে তোলার মাত্র ১০-১২ দিন আগে এমন দুর্যোগে হতবিহল অবস্থায় দিন কাটাচ্ছে তারা। তবে, তাদের পুনঃর্বাসনে এখন পর্যন্ত নেই কোনো আশ্বাস। এদিকে, বন্যার কারণ হিসেবে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে জেলা পানি উন্নয়ন বোর্ডকে দোষারোপ করা হলেও জেলা নির্বাহী প্রকৌশলী বলছেন: যে জায়গা দিয়ে পানি ঢুকছে সেখানে বাধ রক্ষায় কোনো বরাদ্দ ছিলো না। গতকাল রাতে নেত্রকোনার খালিয়াজুরীর সবচেয়ে বৃহৎ দুটি বাঁধ কীর্তন খোলা ও নাইওরীরখাল বাধ ভেঙ্গে গেছে। এর ফলে পাঙ্গাসিয়া, মরানদী, কাঠালজান এবং দিরাই উপজেলার সুরমা নদীর পর্যন্ত পানি প্লাবিত হয়েছে। তলিয়ে গেছে প্রায় ২ থেকে আড়াইহাজার হেক্টর জমির বোরো ফসল। উপজেলা প্রসাশনের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে,

By মাহবুব মোর্শেদ on মঙ্গলবার, ০৪ এপ্রিল ২০১৭ ১৮:১২

নেত্রকোনায় ‘হেফাজতে ঈমান’ নামের একটি সংগঠনের দাবির মুখে লালন অনুসারীদের একটি নিয়মিত অনুষ্ঠান বন্ধ করে দিয়েছে স্থানীয় প্রশাসন। ওই অনুসারীদের বিরুদ্ধে এলাকায় লিফলেটও বিতরণ করা হয়েছে। এ ঘটনায় কোনো মামলা না হলেও পুলিশ বলেছে, এলাকায় শান্তিশৃঙ্খলা বজায় রাখতেই তারা এই ব্যবস্থা নিয়েছে। তবে এসব ঘটনায় আতঙ্কে রয়েছেন লালন ভক্তরা। বিবিসি জানায়, নেত্রকোণার কেন্দুয়া উপজেলার বাসিন্দা আবদুল হালিমের বাড়িতে লালন ভক্তদের নিয়মিত আসর বসত, যেখানে লালন গানের বাইরেও নানা বিষয়ে আলোচনা হতো। কিন্তু কিছুদিন ধরেই ওই অনুষ্ঠান বন্ধের দাবি করে আসছিল স্থানীয় হেফাজতে ঈমান নামের একটি সংগঠন। তাদের দাবির মুখে সেই অনুষ্ঠানটি বন্ধ করে দেয় স্থানীয় পুলিশ। এরপর তাদের বিরুদ্ধে লিফলেটও

By চ্যানেল আই অনলাইন on বৃহস্পতিবার, ১৫ ডিসেম্বর ২০১৬ ১২:১০