জামালপুর

দেশের উত্তরাঞ্চলে বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি অব্যাহত রয়েছে। তবে দক্ষিণ ও মধ্য-দক্ষিণাঞ্চলে পদ্মা নদী সংলগ্ন জেলাগুলোতে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হতে আরো দুই দিন সময় লাগবে বলে বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ কেন্দ্র সূত্রে জানা গেছে। দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তর বলছে, এখন পর্যন্ত বন্যায় দেশের ৩১টি জেলায় ৫১ লাখ মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন। ‘কাবিটা’, ‘টিআর’ এবং ‘ইজিপিপি’ কর্মসূচির মাধ্যমে ক্ষতি কাটানোর উদ্যোগ নেয়া হচ্ছে। পদ্মা সংলগ্ন জেলা মানিকগঞ্চ, মুন্সিগঞ্জ, ফরিদপুর, রাজবাড়ী এবং শরীয়তপুরের বন্যা পরিস্থিতি স্থিতিশীল। তবে পদ্মায় পানি কমতে শুরু করছে। তবে, ধীরে হলেও ঢাকার চারপাশে ৫টি নদ-নদীতে পানি বাড়ছে। তারপরও দুই-তিন দিনের মধ্যে সামগ্রিক পরিস্থিতির উন্নতি আশা করছে বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্কীক

বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের ঘরবাড়ি নির্মাণ করে দেয়া হবে বলে আশ্বাস দিয়েছেন দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া। শনিবার জামালপুরের মেলান্দহ উপজেলার পাইলট প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে বন্যার্তদের মাঝে ত্রাণ দেওয়ার সময় তিনি এ কথা বলেন। বন্যা কবলিত এলাকায় ঢেউটিন ও অর্থ বরাদ্দ দেয়া হবে উল্লেখ করে তিনি বলেন, বন্যার্ত মানুষের দুঃখ-কষ্ট দূর না হওয়া পর্যন্ত সরকার তাদের পাশে থাকবে। বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের ঘরবাড়ি নির্মাণ করে দেয়া হবে। এসময় আরও বক্তব্য রাখেন বস্ত্র ও পাট প্রতিমন্ত্রী মির্জা আজম, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ সচিব (ভারপ্রাপ্ত) গোলাম মোস্তফা ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক রিয়াজ আহমেদ প্রমুখ। মায়া চৌধুরী বলেন, বন্যায় প্রচুর রাস্তাঘাট ক্ষত

By চ্যানেল আই অনলাইন on শনিবার, ১৯ অগাস্ট ২০১৭ ২০:৪৮

হাফিজ রায়হান: জামালপুরে অতীতের সকল রেকর্ড ভঙ্গ করা বন্যায় চরম দূর্ভোগে পড়েছে জেলার ৩ লক্ষাধিক মানুষ। গত দু’দিনের বন্যায় পানির তোড়ে ২ কিশোর নিখোঁজ ও এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। এছাড়া পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় জেলার ৮১৬টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ করেছে জেলা শিক্ষা অধিদপ্তর। এখনও যমুনা নদীর পানি বাহাদুরাবাদ ঘাট পয়েন্টে বিপৎসীমার ১৩৪ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে বইছে। পানি বৃদ্ধি অব্যাহত থাকায় ৬ উপজেলার ৫০ গ্রাম নতুন করে প্লাবিত হয়েছে। বন্যার পানিতে ঘর-বাড়ি ও রাস্তাঘাট তলিয়ে যাওয়ায় যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ছে বন্যা কবলিত এলাকার মানুষ। বাড়ি-ঘর ছেড়ে গবাদি পশু নিয়ে উঁচু বাধ ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে আশ্রয় নিয়েছে বন্যার্তরা। বন্যা কবলিত এলাকার মানুষের মাঝে খাদ্য সংকট দেখা দিলেও ৬০ থেকে ৭০ ভাগ বানভ

By চ্যানেল আই অনলাইন on বুধবার, ১৬ অগাস্ট ২০১৭ ১৫:০৩

জামালপুরের সদর উপজেলার চন্দ্রা রেলক্রসিংয়ে ট্রেনের ধাক্কায় ব্যাটারিচালিত অটোরিকশার চালকসহ সাত জন নিহত হয়েছেন। এই ঘটনায় আহত হয়েছেন আরেকজন যাত্রী। বুধবার সন্ধ্যা ছয়টার দিকে ফৌজদারি-চন্দ্রা সড়কের রেলক্রসিংয়ে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন অটোরিকশার চালক কম্পপুর এলাকার আবদুর রহিম, রেহান আলীর ছেলে সানোয়ার হোসেন, মোহাম্মদ আলীর ছেলে হোসেন আলী, ফরিদুল হক, জামালপুর সদর উপজেলার বাঁশচড়া এলাকার তৈয়ব আলীর ছেলে ইনতাজ আলী,  চন্দ্রা এলাকার মৃত শাহ আলমের ছেলে মীর হোসেন ও শাহপুর এলাকার আবদুল আজিজের স্ত্রী ছালেহা বেগম। এই ঘটনায়  আহত আরেক ব্যক্তিকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। প্রত্যক্ষদর্শী জানায়, জামালপুর সদর উপজেলার চন্দ্রা রেলক্রসিংয়ে কোনো গেটম্যান না থাকায় ট্রেনটি চন্

By চ্যানেল আই অনলাইন on বুধবার, ০৯ অগাস্ট ২০১৭ ২৩:০৩

জামালপুর সদরের দেওলিয়াবাড়ি এলাকায় দুই সহোদর বোনকে গলা কেটে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। বুধবার সকালে সদরের তিতপল্লা ইউনিয়নের দেওলিয়াবাড়ি গ্রামের নিজ বাড়িতে মালয়েশিয়া প্রবাসী শামীম হোসেনের দুই মেয়ে ভাবনা ও লুবনাকে গলা কেটে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা। নিহত ভাবনা পুগলই বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ৯ম শ্রেণীর এবং লুবনা হাসিল মতিউর রহমান একাডেমির ৪র্থ শ্রেণীর ছাত্রী। নিহত ভাবনা ও লুবনার মা তাসলিমা বেগম জানায়, মঙ্গলবার তার নিজ বাবার বাড়ি জামালপুরে বেড়াতে যায় সে। আজ সকাল ৮ টার দিকে তার বাড়িতে এসে ভাবনা ও লুবনাকে গলাকাটা অবস্থায় দেখতে পান তিনি। পরে তার চিৎকারে এলাকাবাসী পুলিশে খবর দেয়। জামালপুর সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নাসিমুল ইসলাম জানান, খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। ন

By চ্যানেল আই অনলাইন on বুধবার, ০২ অগাস্ট ২০১৭ ১৩:১৮

হাফিজ রায়হান: জামালপুরের মেলান্দহে ট্রাক-সিএনজি মুখোমুখি সংঘর্ষে দুই সিএনজি যাত্রী নিহত হয়েছে। বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে মেলান্দহ উপজেলার বেতমারি এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন, রুমা বেগম (৪০) ইসলামপুর উপজেলার পার্থশী ইউনিয়নের মুখশিমলা গ্রামের সাখাওয়াত হোসেনের স্ত্রী এবং স্বপ্না বেগম (৩৫)। মেলান্দহ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো: মাজহারুল করিম জানান, মেলান্দহ উপজেলার বেতমারি এলাকায় জামালপুর থেকে আসা একটি সিএনজির সঙ্গে ইসলামপুর থেকে আসা দ্রুতগতির একটি ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়।

By চ্যানেল আই অনলাইন on শুক্রবার, ২৮ জুলাই ২০১৭ ০৯:২২

মৌসুমী বায়ুর প্রভাবে পরবর্তী ২৪ ঘণ্টার ভারী বৃষ্টিতে আবারো চট্টগ্রাম বিভাগে পাহাড় ধসের আশঙ্কা কথা জানিয়েছে আবহাওয়া অফিস। এছাড়া দেশের ৪টি সমুদ্র বন্দরে এখনও ৩ নম্বর সতর্কতা সংকেত বলবৎ রয়েছে। তবে সারাদেশে বৃষ্টি এবং সমুদ্র বন্দরে এখনও ৩ নম্বর সতর্কতা সংকেত থাকলেও দেশের উত্তর ও মধ্যাঞ্চলে বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি হচ্ছে। কিন্তু এর মধ্যেও নতুন করে বাঁধ ভেঙ্গে প্লাবিত হয়েছে ফেনীর কয়েকটি এলাকা। এছাড়া ত্রাণের অভাব আর নানা রোগ বালাইয়ে দুর্ভোগে রয়েছে বানভাসী মানুষ। এর আগে বৃহস্পতিবার চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগে পাহাড় ধসের আশঙ্কা জানিয়ে আবহাওয়া অধিদপ্তরের সতর্কতা জারি করার পরই চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডের জঙ্গল সলিমপুরে পাহাড় ধসে ৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। সেই সঙ্গে ঢাকা, খুলনা, বরিশাল ও চট্টগ্রাম বি

টানা বৃষ্টিতে প্রধান নদীগুলোর পানি বৃদ্ধি অব্যাহত থাকায় দেশের উত্তর ও মধ্যাঞ্চলে বন্যা পরিস্থিতির আরও অবনতি হয়েছে। এর ফলে বন্যা কবলিত এলাকায় খাদ্য সংকটের পাশাপাশি শিক্ষা কার্যক্রমও বন্ধ রয়েছে। কুড়িগ্রাম কুড়িগ্রামে বন্যার পানিতে ডুবে ২ জনের মৃত্যু হয়েছে। চিলমারী উপজেলার কাচকোলে ডানতীর রক্ষা প্রকল্পের ৫০ মিটার বাঁধ ও রৌমারী উপজেলার যাদুর চরে কত্তিমারী বাজার রক্ষা বাঁধ ভেঙ্গে নতুন করে ৫০ গ্রাম প্লাবিত হয়েছে। জেলার ৭ উপজেলার ৪২ ইউনিয়নের ৫শ’ গ্রামের ২ লক্ষাধিক মানুষ গত ৭দিন ধরে পানিবন্দী জীবন যাপন করছে। অনেক পরিবার বাড়ি-ঘর ছেড়ে উচুঁ জায়গায় আশ্রয় নিলেও এসব এলাকায় খাদ্য ও বিশুদ্ধ খাবার পানির তীব্র সংকট দেখা দিয়েছে। ১শ’ ৫০ টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বন্যার পানি উঠায় শিক্ষা কার্যক্

উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে জামালপুরে বন্যা পরিস্থিতির ভয়াবহ অবনতি হয়েছে। যমুনা নদীর পানি বিপদসীমার ৭৬ সে.মি উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। এর ফলে জেলার লক্ষধিক মানুষ পানিবন্দী হয়ে পড়েছেন। এছাড়া দুর্গত এলাকার শতাধিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানও বন্ধ ঘোষণা করতে হয়েছে। কয়েকদিন থেকেই জামালপুর সদর, ইসলামপুর, মেলান্দহ, মাদারগঞ্জ, দেওয়ানগঞ্জ ও সরিষাবাড়িতে যমুনা ছাড়াও ব্রক্ষ্মপুত্র, ঝিনাইসহ শাখা নদীগুলোর পানি বাড়তে শুরু করেছে। ফলে ২৫টি ইউনিয়নের লক্ষাধিক মানুষ পানিবন্দী হয়ে পড়েছেন। দুর্গত এলাকায় বিশুদ্ধ খাবার পানি, শুকনো খাবার এবং গো-খাদ্যের অভাব দেখা দিয়েছে। তবে বন্যা দুর্গত এলাকায় ৭৯টি মেডিকেল টিম কাজ করছে। জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে বন্যা কবলিত এলাকায় চাল ও নগদ টাকা ছাড়াও শুকনো খাবার বিতরণ

By চ্যানেল আই অনলাইন on বুধবার, ১২ জুলাই ২০১৭ ০৯:৩৫

টানা বৃষ্টিতে কুড়িগ্রাম, টাঙ্গাইল, জামালপুর ও গাইবান্ধার বন্যা পরিস্থিতির অবনতি হয়েছে। ১২ নদীর ১৭টি পয়েন্টে পানি বিপৎসীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। তবে কক্সবাজারের বন্যা পরিস্থিতির কিছুটা উন্নতি হলেও ২ লাখ মানুষ এখনো পানিবন্দী। কুড়িগ্রাম: কুড়িগ্রামের ব্রহ্মপুত্র ও ধরলা নদীর পানি বৃদ্ধি অব্যাহত থাকায় নতুন নতুন এলাকায় বন্যার পানি প্রবেশ করছে। ২০টি ইউনিয়নের নদ-নদী তীরবর্তী চর ও দ্বীপ চরের দেড় শতাধিক গ্রামের লক্ষাধিক মানুষ। পানিবন্দী থাকায় খাদ্য ও বিশুদ্ধ খাবার পানি সংকট দেখা দিয়েছে। টাঙ্গাইল: উজানের ঢল অব্যাহত থাকায় ক্রমেই বৃদ্ধি পাচ্ছে যমুনা নদীর পনি। শুক্রবার সন্ধ্যা থেকে টাঙ্গাইলের নলীন পয়েন্টে বিপৎসীমার ৫ সে.মি. উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। এতে ভূঞাপুর উপজেলার তিন ইউনিয়ন ও গোপা