সায়েদুল আরেফিন
সায়েদুল আরেফিন

লেখক, উন্নয়কর্মী ও কলামিস্ট

    কালিকা পুরণের সন্ধ্যাকে নিয়েই কামদেবের সৃষ্টি। কামদেবের সৃষ্টির অন্যতম প্রধান উদ্দেশ্য ছিল ষড়রিপুর ঊর্ধ্বে থাকা মহাদেবের মনে কামভাব জাগ্রত করা, কেননা ভবিষ্যতে সতীর সাথে শিবের বিয়ে দেয়ার দরকার হবে। কামদেব সৃষ্ট হয়ে ব্রহ্মাকে জিজ্ঞেস করল যে কাজ কী হবে। ব্রহ্মা তার কাজ নির্ধারণ করে দিলো দুনিয়ার সমস্ত প্রাণী তো বটেই, এমনকি ব্রহ্মা-বিষ্ণু-শিবও তার ‘বশবর্তী’ হবে। লোককে মত্ত করে বলে তার আরেক নাম মদন।কামদেব মনে মনে চিন্তা করল ব্রহ্মা যখন বলেছে যে সে, বিষ্ণু, শিবসহ সকল প্রাণী তার অস্ত্রের বশবর্তী, তখন একবার চেষ্টা করেই দেখা যাক। সে তখন ধনুকে ‘কামশর’ জুড়ে দক্ষ-প্রজাপতি, ব্রহ্মার সব মানসপুত্র এবং ব্রহ্মাকে উদ্দেশ্য করে ‘কামশর’ নিক্ষেপ করল। তখন তারা সবাই সন্ধ্যার দিকে বার বার তাকাতে লা

    By সায়েদুল আরেফিন on বৃহস্পতিবার, ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৭ ১১:২৮

    ‘বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া ছাড়া এদেশে কোন নির্বাচন হতে দেওয়া হবে না’ বলে সরকারের প্রতি হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছেন দলটির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী আহমেদ। ১৮ই ফেব্রুয়ারী ২০১৭ রোববার সকালে রাজধানীর নয়াপল্টন বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন। রুহুল কবির রিজভী আরো বলেছেন, ‘বেগম জিয়ার সাজা হবে। কিন্তু তিনি কী করেছেন? খালেদা ছাড়া কোন নির্বাচন হবে না, হতে পারে না। আর যদি হয় তাহলে সেটা প্রতিহত করা হবে’- বলে হুঁশিয়ারি দেন তিনি। বিএনপি’র মহাসচিব কখরুল ইসলাম আলমগীর, তাঁর দলের বড় বড় কিছু নেতা এমন হুংকার দিচ্ছেন। গত কয়েকদিন ধরে প্রধান নির্বাচন কমিশনারের বিরুদ্ধে কথা বলে আসছিলেন তাঁরা। পরে বিএনপি’র মহাসচিব ফখরুল ইসলাম আলমগীর আর ভাইস চেয়ারম্যান শ

    By সায়েদুল আরেফিন on রবিবার , ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৭ ২০:০৪

    বাংলাদেশের প্রায় ১৭ কোটি মানুষের চাষযোগ্য জমি ৮০ লাখ ৩০ হাজার হেক্টর।যেখানে বাংলাদেশের মোট ভূমির পরিমাণ তিন কোটি ৫৭ লাখ ৬৩ হাজার একর সরকারী বিভিন্ন দপ্তরের সুত্রে জানা যায়,। বিভিন্ন গবেষণায় জানা গেছে যে, বাংলাদেশে বছরে প্রায় ২৫ লাখ মানুষ বাড়ছে। প্রতি বছর নদীগর্ভে বিলীন হচ্ছে ৮,৭০০ (আট হাজার সাত শত) হেক্টর জমি। নির্মাণ কাজের কারণে প্রতি বছর বিলীন হচ্ছে ৩,০০০ (তিন হাজার) হেক্টর জমি।গত ৩৭ বছরে শুধু ঘরবাড়ি নির্মিত হয়েছে প্রায় ৬৫ হাজার একর জমিতে।পরিবেশ অধিদফতরের তথ্য মতে দেশে মোট ইট ভাঁটার সংখ্যা ৪ হাজার ৫১০ উল্লেখ থাকলেও বাংলাদেশে ইট প্রস্তুতকারী মালিক সমিতির হিসেবে ইট ভাটার সংখ্যা ৬ হাজারের অধিক। মৃত্তিকা গবেষক ও কৃষি বিশেষজ্ঞদের মতে প্রায় ৫০ হাজার একর আবাদি জমি এই ইট ভাটাগুলোর দখ

    By সায়েদুল আরেফিন on বুধবার, ১৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৭ ২২:৪৪

    ধর্মীয় বিশ্বাস, রক্তের উত্তরাধিকার হিসেবে পাওয়া বিশ্বাস, রাজনৈতিক বিশ্বাস, সাংস্কৃতিক বিশ্বাস, বিজ্ঞানের বিশ্বাস, ইত্যাদি নানা ধরনের বিশ্বাস নিয়ে আমাদের এই দুনিয়ায় বসবাস। কোন সমাজে শিক্ষা বা জ্ঞানের আলো যখন কম, যেখানে নিজের যুক্তি আর কাজ করে না তখন ধর্মীয় বিশ্বাস, রক্তের উত্তরাধিকার হিসেবে পাওয়া বিশ্বাস খুব শক্তিশালী হয়। এটা এতটাই শক্তিশালী হয় যে তা সকল বিশ্বাসকে ছাপিয়ে যায়।তাই ধর্মীয় বিশ্বাসে কেউ আঘাত করলে ঐরকম সমাজের মানুষ হিংস্র হয়ে ওঠতে পারে ক্ষ্যাপা কুকুরদের মতো।  ক্ষ্যাপা কুকুরকে তখন সমাজের সবাই মিলে মেরে ফেলে ব্যক্তিগত নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে।  তবে বেওয়ারিশ কুকুর বা অভিভাবকহীন রাস্তার নেড়ি কুত্তাগুলো নিধন করা স্থানীয় সরকারের দায়িত্বের মধ্য পড়ে। আমাদের সমাজে এটা চ

    By সায়েদুল আরেফিন on সোমবার, ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৭ ১৫:১০

    সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত মারা গেছেন। নানা ব্যস্ততায় তাঁর অসুস্থতার খবর ঠিক মত পায়নি আমি। মৃত্যুর আগেরদিন রাতে দেখলাম উনি অসুস্থ হয়ে হাস্পাতালে ভর্তি। ভাবলাম, ঠিক হয়ে যাবেন, বয়স তো আর খুউব বেশী না। উনার বয়স বেড়েছে অপমানে, না বলতে পারা ক্ষোভে দুঃখে। তাঁর বয়সী অনেক মানুষ এখনো শারীরিকভাবে অনেক শক্ত। উনি কেন থাকবেন না। রুপোর চামচ মুখে দিয়ে যার জন্ম। বিশাল সম্পত্তির মালিক হয়েও যাপন করতেন সাধারণ জীবন। গুলশান, বনানী বারিধারা বা ধানমণ্ডি নয় থাকতে জিগাতলায়, নিজ বাড়িতে। কিন্তু সকালে ঘুম ভাংগার পরেও ফেসবুকে চোখ পড়লো, দাদা নেই, চলে গেছেন না ফেরার দেশে। দেখি কয়েকজন অমানুষ তার সম্পর্কে বাজে বাজে মন্তব্য করেছে, যদিও বেশী মানুষই তাঁর জন্য মর্মাহত।খালেদা জিয়ার মতো তাঁর রাজনৈতিক শত্রুও শোক বার্তা দি

    By সায়েদুল আরেফিন on বুধবার, ০৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৭ ১১:২২

    অনেকেই বলে যেখানে সমস্যা সেখানেই সম্ভাবনা। বন্যা, ঘূর্ণিঝড়ের মতো নদী ভাঙ্গনও আমাদের দেশের জন্য একটি দুর্যোগ৷ এ দেশের বড় বড় নদীগুলোতে ভাঙ্গন এখন স্বাভাবিক ঘটনা, নদীভাঙ্গন এমন এক ধরনের দুর্যোগ যা মূলত আস্তে আস্তে ঘটে৷ ৭০ ও ৮০'র দশক থেকে এ দেশে নদী ভাঙ্গনের তীব্রতা যেমন বেড়েছে তেমনি ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণও বেড়েছে অনেক৷ প্রতি বছর বাংলাদেশে গড়ে ৮,৭০০ হেক্টর জমি নদী গর্ভে বিলীন হয়ে যায়৷ যার অধিকাংশই হলো কৃষি জমি৷এছাড়া প্রতি বছর নদী ভাঙ্গনে প্রায় ১০ লাখ মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হয়৷ এই ক্ষতিগ্রস্ত মানুষজনের অর্ধেকের বেশির পক্ষে টাকার অভাবে ঘরবাড়ি তৈরি করা সম্ভব হয় না৷ তারা পরিণত হয় গৃহহীন, ছিন্নমূল মানুষে৷ এ ধরনের গৃহহীন, ভূমিহারা মানুষেরা সাধারণত বাঁধ, রাস্তা, পরিত্যক্ত রেলসড়ক, খাসচর, খাসজমিতে ভ

    By সায়েদুল আরেফিন on বুধবার, ১৮ জানুয়ারী ২০১৭ ১৫:৩৫

    যশোরে থানার মধ্যে এক যুবককে বিচিত্র কায়দায় পিছমোড়া করে উল্টো ঝুলিয়ে রেখে টাকা আদায় করে ছেড়ে দেওয়ার খবরে দুই পুলিশ সদস্যকে তলবের পাশাপাশি রুল জারি করেছে হাইকোর্ট। ওই ঘটনায় যশোর কোতয়ালি থানার এসআই নাজমুল ও এএসআই হাদিবুর রহমানের বিরুদ্ধে কেন আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে না- তা জানতে চাওয়া হয়েছে রুলে। ওই দুই পুলিশ সদস্যকে ২৫ জানুয়ারি হাইকোর্টে হাজির হয়ে ব্যাখ্যা দিতে হবে। যে যুবকের ওপর নির্যাতন করা হয়েছিল বলে সংবাদমাধ্যমে খবর এসেছে, সেই আবু সাঈদকেও সেদিন হাইকোর্টে হাজির করতে বলা হয়েছে। বিচারপতি কাজী রেজাউল হক ও বিচারপতি মোহাম্মদউল্লাহর হাইকোর্ট বেঞ্চ গত রবিবার (০৮.০১.২০১৭) স্বপ্রণোদিত হয়ে এই রুল জারি করেছে। এছাড়া স্বরাষ্ট্র সচিব, আইজিপি, পুলিশের খুলনা রেঞ্জের ডিআইজি, যশোরের এসপি, কো

    By সায়েদুল আরেফিন on শুক্রবার, ১৩ জানুয়ারী ২০১৭ ১৩:২৫

    কুয়াশা কেটে গিয়ে যেমন আলো ফুটে ওঠে ঠিক তেমনি ধোঁয়াশা কেটে কি সত্য প্রকাশ পাচ্ছে? লক্ষ মানুষের বিমূর্ত শঙ্কার জায়গাটা আবার যেন মূর্ত হতে শুরু করেছে। বাংলাদেশের রাজনীতির আকাশে নতুন করে এ কোন কাল মেঘের আনাগোনা! ১৯৭১-১৯৭৫ সালের মতো আবার শুরু হলো কি সেই অপশক্তির সদম্ভ পদচারণা!বিভিন্ন দলিল দস্তাবেজে জানা যায় যে, ১৯৭২ সাল থেকে ১৯৭৫ সাল পর্যন্ত সরকারে থাকা অবস্থায় আওয়ামী লীগের ৭ জন সংসদ সদস্যকে হত্যা করা হয়। এদের মধ্যে অন্তত একজন আওয়ামীলীগ এমপি (গোলাম কিবরিয়াকে) ঈদের নামাজরত অবস্থায় গুলি করে মারা হয়। যেখানে পরবর্তীতে বাকশালের রাজনৈতিক কর্মসূচীর আলোকে নির্বাচন পরিচালনা করা হয় যেখানে ভালো মানুূষকে নির্বাচিত করার জন্য নির্বাচনী সব খরচ বহন করে রাষ্ট্র। যা ছিল ভালো লোকের রাজনীতিতে আসার

    By সায়েদুল আরেফিন on মঙ্গলবার, ০৩ জানুয়ারী ২০১৭ ২০:০৬

    মানুষের জীবন একটা পিরামিডের মতো। আমাদের জন্ম যখন হয় তখন আমরা (শৈশবে) থাকি পিরামিডের নীচের অংশে। শৈশবে আমাদের অধিক্ষেত্রের সব কিছু থাকা চাই নিজেদের দখলে। মানে আমাদের জীবনের আঙ্গিনায় যা থাকে তার কোনো কিছুতেই আমরা ছাড় দিতে চাই না। সেই সময় আমাদের নেওয়ার বা পাওয়ার চাহিদা থাকে খুব বেশি। কিন্তু বয়স বাড়ার সাথে সাথে মানুষের চিন্তা-চেতনা, দৃষ্টিভঙ্গি, রুচি, কাজের স্টাইল, প্রত্যাশা সব পাল্টে যায়। একটা উদাহরণ দিয়ে ব্যাপারটা বুঝানোর চেষ্টা করতে পারি। পিরামিডের বেইজটা অনেক বড় আর উপরের দিকটা আস্তে আস্তে সরু হয়ে যায় ভরাটপাথরের। এই ভরাট অংশ মানে আমাদের চরিত্রে নেওয়ার বা পাওয়ার প্রবণতা। বয়স বাড়ার সাথে সাথে পিরামিড যেমন সরু হয় ঠিক তেমনি আমাদের নেবার প্রবণতা কমতে থাকে আর দেবার প্রবণতা বাড়তে থা

    By সায়েদুল আরেফিন on রবিবার , ০১ জানুয়ারী ২০১৭ ১১:০৮

    নিজের জন্মস্থান বা নিজের শৈশব-কৈশোরের স্মৃতি বিজড়িত স্থান মানুষের হৃদয়কে টানে। আমরা যারা গ্রামে জন্ম নিয়ে জীবন জীবিকার জন্য ঢাকা বা অন্য কোনো শহরে এসে স্থিতু হয়েছি নানা কারণে, তারা সময় সুযোগ পেলেই গ্রামে যাবার চেষ্টা করি। অনেকে গ্রামে একটা ঘর বানিয়ে রাখেন যাতে করে অবসরকালীন সময়ে সেখানে গিয়ে থাকতে পারেন, সেই প্রত্যাশায়। কিন্তু বাস্তবে বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই তা আর হয়ে ওঠে না, সন্তানদের মায়ায়। আমরা যেমন জীবিকার জন্যই মূলত গ্রামে আমাদের বাবা-মা’কে ফেলে এসে থাকি শহরে। ঠিক একইভাবে আমাদের সন্তানেরাও শহরে থেকে যেতে চায়, তাদের শহুরে শৈশব-কৈশোরের স্মৃতি নিয়ে। গ্রাম তাদের হৃদয়কে তেমন টানে না, তাদের প্রাণে গ্রামের জন্য টান তেমন থাকে না, যেমনটা থাকে গ্রাম থেকে উঠে আসা তাদের বাবা-মাদের।জীবন বড়

    By সায়েদুল আরেফিন on সোমবার, ২৬ ডিসেম্বর ২০১৬ ২২:১৩