নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক এবং গবেষক মোবাশ্বের হাসান সিজারের নিখোঁজের ৭ দিন পার হলেও তার কোন খোঁজ না পাওয়ার ঘটনায় উদ্বিগ্ন তার পরিবার, বন্ধু, সহকর্মী এবং সহপাঠীরা। তাদের প্রতিটি মুহূর্ত কাটছে উদ্বেগ আর উৎকণ্ঠায়। সিজারের ফিরে আসার অপেক্ষায় দিন কাটছে তাদের।

সিজারের নিখোঁজের সপ্তম দিনে বিষয়টি নিয়ে ফেসবুকে একটি আবেগঘন স্ট্যাটাস দিয়েছেন প্রবাসী সাংবাদিক সুলতানা রহমান। সেখানে তিনি সিজারের সঙ্গে বিশ্ববিদ্যালয়ে তার কাটানো নানা আনন্দঘন মুহূর্তের কথা তুলে ধরেছেন। ফেরত চেয়েছেন নিখোঁজ হয়ে যাওয়া সিজারকে।

সুলতানা রহমান তার ফেসবুক স্ট্যাটাসে লিখেছেন,

ভাবছিলাম-দূরে থাকলে বোধ হয় সব কিছু থেকে দূরে থাকা যায়। কিন্তু না। এক সপ্তাহ ধরে ছেলেটার কোনো হদিস নেই! প্রতিদিন রাতে ঘুমাতে যাবার আগে ভাবি, হয়ত ঘুম থেকে উঠে জানবো সিজারকে পাওয়া গেছে খুলনার কোনো জঙ্গি আস্তানায়, অথবা ভয়ঙ্কর ষড়যন্ত্রে লিপ্ত ভরুঙ্গিমারিতে, কিংবা পালানোর সময় গ্রেনেডসহ আটক ভারত সিমান্তে- তবু তাকে পাওয়া যাক, তবু সিজার ফিরে আসুক!

শেষ কবে সিজারের সঙ্গে কথা হয়েছে মনে নেই। থেকে থেকে মনে পরছে বিশ্ববিদ্যালয়ের দিনগুলো, নানা সময়ে তার নানাবিধ যৌক্তিক অযক্তিক আবদার, লন্ডনে থাকা অবস্থায় তার নাদুস নুদুস হাতে হাড়ি পাতিল ধোয়ার দৃশ্য দেখে আমার অট্ট হাসি,সিজারের রাধা চিকেন কারি, শাহবাগের দিনগুলোতে ফেসুকের পাতায় তপ্ত বাক্য বিনিময় —— নাহ , কোথায় হারিয়ে গেলো ছেলেটা,,,,সিজারকে ফেরত চাই